গয়েটর - Goiter in Bengali

Dr. Anurag Shahi (AIIMS)MBBS,MD

May 12, 2019

October 05, 2020

গয়েটর
গয়েটর

গয়েটর কি?

গয়েটর, যা আয়োডিনের অভাবে হয়ে থাকে, এর ফলে থাইরয়েড গ্রন্থি অস্বাভাবিক ভাবে বেড়ে যায়। শরীরে আয়োডিনের অভাব গয়েটরের আসল কারণ। আয়োডিনের মাত্রা কম থাকার কারণে, থাইরয়েড গ্রন্থি থাইরক্সিন নামক হরমোনটি তৈরী করতে অসফল হয়, যার ফলে থাইরয়েড উদ্দীপক হরমোনের (টিএসএইচ) মাত্রা বেড়ে যায়, ফলে থাইরয়েড গ্রন্থিটি ফুলে যায়, যাকে গয়েটরও বলা হয়ে থাকে।

গয়েটর প্রধানত দুই প্রকারের, তাদের নাম,

  • ডিফিউজ গয়েটর: সমস্ত থাইরয়েড গ্রন্থিটির বৃদ্ধি হয়।
  • নোডুলার গয়েটর: থাইরয়েড গ্রন্থির কিছু অংশ অথবা থাইরয়েড গ্রন্থির নোডুলারগুলি বৃদ্ধি পায়।

গয়েটরের প্রধান লক্ষণ ও উপসর্গগুলি কি কি?

গয়েটরের উপসর্গগুলি আলাদা হয়, বিশেষত অবস্থার কারণ অনুযায়ী সেটি ঘটে।

  • গয়টারের সাধারণ উপসর্গটি হল:
    • ঘাড়ের  নিচের অংশ ফুলে যাওয়া।
  • এছাড়া অন্যান্য উপসর্গগুলি হল:
    • গলার মধ্যে আঁটভাব অথবা কাঠিন্য।
    • গলার আওয়াজে কর্কশভাব।
    • কাশি
    • যখন বৃদ্ধি পাওয়া থাইরয়েড গ্রন্থি ইসোফেগাস বা খাদ্যনালীর ওপর চাপ সৃষ্টি করে তখন খাবার গিলতে সমস্যা হয়।
    • শ্বাসনালীতে চাপ পড়ার ফলে শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্ট হয়।
  • হাইপারথাইরয়েডিসমের মূল উপসর্গগুলি হল:
    • তাপ সহ্য না হওয়া।
    • ওজন কমে যাওয়া
    • বেশি খিদে পাওয়া
  • হাইপোথাইরয়েডিসমের মূল উপসর্গগুলি হল:

গয়েটরের প্রধান কারণগুলি কি কি?

গয়েটরের সবচেয়ে সাধারণ কারণ হল শরীরে আয়োডিনের অভাব।

খাদ্য তালিকায় আয়োডিনের অভাব থাকলে, এবং যে খাদ্যদ্রব্যগুলি খাদ্যে উপস্থিত আয়োডিনকে নিষ্ক্রিয় করে দেয় যেমন ফুলকপি, বাঁধাকপি ও ব্রোকলি সেগুলির কারণে মূলত শরীরে আয়োডিনের অভাব দেখা দেয়।

  • অন্যান্য কারণগুলি হল:
    • হাইপারথাইরয়েডিসম - থাইরয়েড হরমোনের উচ্চ মাত্রা।
    • হাইপোথাইরয়েডিসম - থাইরয়েড হরমোনের নিম্ন মাত্রা।
    • গ্রেভস ডিসিস - থাইরয়েড কোষ দ্বারা থাইরয়েড হরমোনের উৎপাদন বৃদ্ধি।
    • হাশিমোতো ডিসিস - রোগ প্রতিরোধ প্রক্রিয়ার অস্বাভিকতার কারণে ক্ষতিগ্রস্থ থাইরয়েড গ্রন্থি।
    • থাইরয়েড ক্যান্সার
    • কিছু ওষুধ যেমন লিথিয়াম এবং ফেনাইলবুটাজোন, এগুলি সেবন করার কারণেও অনেক সময় গয়েটর হয়ে থাকে।

কিভাবে এটি নির্ণয় করা হয় ও এর চিকিৎসা কি?

শারীরিক পরীক্ষা ও তার সাথে কতকগুলি পরীক্ষার মাধ্যমে গয়টার নির্ণয় করা হয়।

পরীক্ষাগুলির মধ্যে রয়েছে:

  • থাইরয়েড হরমোনের মাত্রা পরিমাপ করার জন্যে রক্ত পরীক্ষা।
  • গ্রেভস ডিজিজ ও হাশিমোতো ডিজিজের এন্টিবডি সনাক্ত করার জন্য রক্ত পরীক্ষা।
  • আল্ট্রাসাউন্ড স্ক্যান।
  • ম্যাগনেটিক রেজোনেন্স ইমেজিং (এমআরআই) ও কম্পিউটেড টোমোগ্রাফি (সিটি) স্ক্যান।
  • বায়োপসি।
  • থাইরয়েডের কার্যকারিতা মূল্যায়ন করার জন্যে হরমোন টেস্ট।

গয়েটরের চিকিৎসা মূলত গয়েটরের কারণ, উপসর্গ এবং আকারের উপর নির্ভর করে।

  • লঘুভাবে বৃদ্ধিপ্রাপ্ত থাইরয়েড গ্রন্থি যার থাইরোয়েড হরমোনের মাত্রা স্বাভাবিক সেটিকে পর্যবেক্ষণে রাখা যেতে পারে।
  • আপনার ডাক্তার থাইরয়েডের অস্বাভাবিক কার্যকারিতার জন্য কিছু ওষুধ নির্ধারণ করতে পারেন।
  • আয়োডিনের প্রয়োজনীয় মাত্রা বজায় রাখতে আয়োডিন সাপ্লিমেন্ট বা সম্পূরক দেওয়া হতে পারে।
  • আপনার ডাক্তার অতিসক্রিয় থাইরয়েডের কারণে সেবন করার জন্য রেডিওঅ্যাক্টিভ থাইরয়েড থেরাপির পরামর্শ দিতে পারেন।
  • ক্যান্সারের ক্ষেত্রে অথবা অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়া গয়েটরের ক্ষেত্রে, রেডিওঅ্যাক্টিভ থাইরয়েড চিকিৎসার পাশাপাশি অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন হতে পারে।



তথ্যসূত্র

  1. National Health Portal [Internet] India; Goitre
  2. Medeiros-Neto G. Multinodular Goiter. [Updated 2016 Sep 26]. In: Feingold KR, Anawalt B, Boyce A, et al., editors. Endotext [Internet]. South Dartmouth (MA): MDText.com, Inc.; 2000-.
  3. Sarah Muirhead. Diagnostic approach to goitre in children. Paediatr Child Health. 2001 Apr; 6(4): 195–199. PMID: 20084235
  4. MedlinePlus Medical Encyclopedia: US National Library of Medicine; Simple goiter
  5. MedlinePlus Medical Encyclopedia: US National Library of Medicine; Toxic nodular goiter

গয়েটর ৰ ডক্তৰ

Dr. Tanmay Bharani Dr. Tanmay Bharani Endocrinology
15 Years of Experience
Dr. Sunil Kumar Mishra Dr. Sunil Kumar Mishra Endocrinology
23 Years of Experience
Dr. Parjeet Kaur Dr. Parjeet Kaur Endocrinology
19 Years of Experience
Dr. M Shafi Kuchay Dr. M Shafi Kuchay Endocrinology
13 Years of Experience
অনেক সময় অডিও র জন্য মুহূর্তের বিলম্ভ হতে পারে

গয়েটর জন্য ঔষধ

গয়েটর के लिए बहुत दवाइयां उपलब्ध हैं। नीचे यह सारी दवाइयां दी गयी हैं। लेकिन ध्यान रहे कि डॉक्टर से सलाह किये बिना आप कृपया कोई भी दवाई न लें। बिना डॉक्टर की सलाह से दवाई लेने से आपकी सेहत को गंभीर नुक्सान हो सकता है।