অর্জুনের ছাল কি?

টার্মিনালিয়া মহাজাতির অন্তর্গত একটি চিরহরিৎ বৃক্ষ হল অর্জুন। এরই মতন বিস্ময়কর ঔষধি বৃক্ষ হচ্ছে হরিতকী (টারমিনালিয়া চেবুলা) এবং বহেড়া (টারমিনালিয়া বেল্লেরিকা)। শোভাময় অর্জুন গাছের ঔষধি গুণ রয়েছে এর বাকলের ভিতরে, যাকে হৃদয়'এর একটি বলবর্ধক ঔষধ বলে মানা হয়। এমন কি, ঋক বেদেও অর্জুন গাছের উল্লেখ পাওয়া যায়। হৃদয়ের স্বাস্থ্যের সামগ্রিক উন্নতির জন্য আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকরা অর্জুনের বাকল সুপারিশ করেন। আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানে হৃদয়ের বিভিন্ন রোগে যেমন হৃদরোগ (হার্ট এ্যাটাক), হৃদয় বৈকল্য (হার্ট ফেলিওর) এবং এমন কি সন্ন্যাস রোগে (স্ট্রোক) অর্জুনের বাকলের নিরাময় ক্ষমতা এবং উপকারিতা নিয়ে বিস্তর গবেষণা হয়েছে। আপনি শুনলে হয়তো আশ্চর্য হয়ে যাবেন যে বিশ্বাস করা হয় অর্জুনের বাকল রাখলে হৃদয় চক্র (মানব দেহের শক্তির কেন্দ্র) শক্তিশালী হয় এবং এর ঔষধি গুণগুলিকে তুলনা করা হয় পশ্চিমের হওথ্রন ভেষজ চিকিৎসার সাথে।

অর্জুন মূলত একটি ভারতীয় গাছ। সাধারণত নদী বা নালার ধারে এই গাছ জন্মায়। এর উচ্চতা 20 থেকে 30 মিটার পর্যন্ত হতে পারে। অর্জুনের বাকল মসৃণ এবং ধূসর, কিন্তু এরই মধ্যে কিছু সবুজ এবং লাল ছোপ আছে। অর্জুনের পাতাগুলি প্রায় আয়তাকার। গাছের শাখায় একটি পাতা অপরটির বিপরীত দিকে থাকে। মে থেকে জুলাই মাসে গাছে সাদা-ক্রিম রঙের ফুলের গুচ্ছ দেখা যায়। কাঁচা অবস্থায় অর্জুন ফল সবুজ রঙের হয়, পরে তা পরিপক্বতা পেলে রঙ বলদে কাঠের মত বাদামী রঙ হয়। ফলগুলির স্বতন্ত্র পাখা থাকে, যা অর্জুনের চিহ্নিত বৈশিষ্ট্যগুলির একটি।

আপনি কি জানতেন?

'টারমিনালিয়া' শব্দটি একটি ল্যাটিন শব্দ থেকে এসেছে, যার অর্থ 'প্রান্ত'। এটি সম্ভবত অর্জুন গাছের পাতার কথা ভেবেই এসেছে, কারণ পাতাগুলি শাখার প্রান্তে হয়। 'অর্জুন' শব্দটির অর্থ 'সাদা' বা 'উজ্জ্বল'। এর কারণ হয়তো এর ফুলগুলি সাদা রঙের অথবা এর বাকলের রঙ উজ্জ্বল সাদা।

অর্জুন গাছ সম্পর্কে কিছু মৌলিক তথ্য

  • বৈজ্ঞানিক নাম: টারমিনালিয়া অর্জুনা
  • পরিবার: কমব্রিটাসিয়া
  • সাধারণ নাম: অর্জুন, সাদা মারুধ
  • সংস্কৃত নাম: অর্জুন, ধবলা, নদীসার্য্য
  • ব্যবহৃত অংশ: বাকল
  • আদি প্রাপ্তি স্থান এবং ভৌগলিক বিতরণ: অর্জুন আদিতে ভারত এবং শ্রীলংকাতে জন্মাত। এখন বাংলাদেশ, নেপাল, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড এবং মালয়েশিয়াতেও পাওয়া যায়।
  • কর্মশক্তি: অর্জুনের বাকল পিত্ত এবং কফ হ্রাস করে কিন্তু বাত বৃদ্ধি করে। কাজেই দেহে এর একটি শীতল প্রভাব আছে।
  1. স্বাস্থ্যের উপকারে অর্জুনের বাকল - Arjuna tree bark health benefits in Bengali
  2. অর্জুনের বাকলের ব্যবহার বিধি - How to use arjuna bark in Bengali
  3. অর্জুন বাকলের মাত্রা - Arjuna bark dosage in Bengali
  4. অর্জুনের বাকলের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া - Arjuna tree bark side effects in Bengali

অর্জুনের বাকল স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই উপকারী, তবে এর সব চেয়ে বেশি উপকার হল হৃদয়ের স্বাস্থ্য রক্ষায়। স্বাস্থ্য রক্ষায় অর্জুনের উপকারিতাগুলি একবার দেখে নেওয়া যাক।

  • রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে: অন্য ওষধির সাথে মিলিত ভাবে অর্জুনের বাকল রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। দেখা গিয়েছে যে অর্জুনের বাকল ঊর্ধ্বশ্বাসে আরাম দেয়, এবং কনজেস্টিভ হার্ট ফেলিয়োর'এর রোগীদের সিস্টোলিক রক্তচাপ হ্রাস করে।
  • এথেরোস্ক্লেরোসিস প্রতিরোধ করে: বৈজ্ঞানিক গবেষণাতে প্রমাণিত যে দুধের সাথে অর্জুনের বাকল খেলে কোলেস্টেরল'এর মাত্রা হ্রাস পায়। এটি একটি অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, তাই লিপিড'এর পারঅক্সিডেশান প্রতিরোধ হয়, ফলে এথেরোস্ক্লেরোসিস'এর ঝুঁকি কম হয়।
  • হৃদয়ের উপকারী: অর্জুনের বাকল কোলেস্টেরল এবং রক্তচাপ হ্রাস করে, যে দুটি হৃদরোগের ঝুঁকির কারণ বলে চিহ্নিত। অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি-ক্লটিং গুণ থাকাতে অর্জুনের বাকল স্ট্রোক, হৃদরোগ এবং বয়স সম্পর্কিত কার্ডিওভাসকুলার সমস্যাগুলি প্রতিরোধ করে।
  • অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল: এমআরএসএ এবং ভিআরএসএ দুটি সাধারণ অ্যান্টি-বায়োটিক প্রতিরোধী প্যাথোজেনের স্ট্রেন যেগুলি ত্বকের উপরে কাজ করে। অর্জুনের বাকলের নির্যাস এই দুটি প্যাথোজেন'এর বিরুদ্ধে অ্যান্টি-বায়োটিক ক্রিয়া প্রদর্শন করে। এর অ্যান্টি-বায়োটিক ক্রিয়া শুধু মাত্র গ্রাম-পজিটিভ ব্যাকটেরিয়ার উপরেই সীমাবদ্ধ।

উপরে বর্ণিত উপকারগুলি ছাড়াও, অর্জুনের বাকল রক্তের চিনির মাত্রা কম করে, কাশি প্রতিরোধ করে এবং পাকস্থলীর আস্তরণকে অত্যধিক অম্বল থেকে রক্ষা করে। অবশ্য, মানব দেহের উপরে পরীক্ষার অভাবে অর্জুনের বাকলের এই উপকারগুলির সম্পর্কে নিশ্চিত ভাবে কিছু বলা যায় না।

হৃদয়ের উপকারে অর্জুন - Arjuna herb for heart in Bengali

কার্ডিওভাসকুলার সমস্যাগুলি, যেমন মাইওকার্ডিয়াল ইনফারাকশান, করোনারী হার্ট ডিজিজ এবং ইসকেমিক হার্ট এ্যাটাক'এর ক্ষেত্রে আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকরা অর্জুনের বাকল চূর্ণ ব্যবহারের সুপারিশ করেন। এটি শুধু ঝুঁকিই হ্রাস করে না, নিয়মিত খেলে হৃদয়ের সামগ্রিক স্বাস্থ্য এবং কার্যক্ষমতার উন্নতিও করে।

হার্ট ফেলিওর এবং হৃদয় সংক্রান্ত অসুখে অর্জুন গাছের বাকলের কার্যকারিতা নিয়ে  অনেক প্রাণী-দেহের উপরে এবং ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা করা হয়েছে। এই গবেষণাগুলি থেকে জানা যাচ্ছে যে অর্জুন গাছের বাকলে অনেকগুলি সক্রিয় জৈব যৌগিক পদার্থ আছে, যেমন, ফ্ল্যাভোনয়েডস, ট্যানিনস এবং মিনারেল, যেগুলি যৌথ ভাবে এই গাছটিকে সর্ব কালের শ্রেষ্ট হৃদয়-সুরক্ষক করে তুলেছে।

একটি ক্লিনিক্যাল পরীক্ষায় 10 জন হৃদরোগীকে তিন মাসের জন্য প্রথাগত ওষুধের সাথে অর্জুনের বাকল চূর্ণ খেতে দেওয়া হয়েছিল। একই সাথে, একটি নিয়ন্ত্রিত দলকে শুধুই প্রথাগত ওষুধ খেতে দেওয়া হয়েছিল। 3 মাস পর দেখা গিয়েছিল, যে দলটিকে অর্জুনের বাকল চূর্ণ খেতে দেওয়া হয়েছিল, তাদের হৃদয়ের স্বাস্থ্য উল্লেখ যোগ্য ভাবে উন্নতি করেছিল, বিশেষত বাম দিকের ভেন্ট্রিক্যাল (হৃদয়ের একটি অংশ) শক্তিশালী হয়েছিল।

অন্য আরেকটি গবেষণায় 40 জন সুস্বাস্থ্যের অধিকারী মানুষদের 8 সপ্তাহ ধরে অর্জুনের বাকল এবং অশ্বগন্ধার ক্যাপসুল খেতে দেওয়া হয়েছিল। 8 সপ্তাহ পরে দেখা গিয়েছিল যে হার্টের সাধারণ দুর্বলতা অশ্বগন্ধা হ্রাস করেছিল এবং অর্জুনের বাকল কার্ডিওভাসকুলার সহনশীলতার উন্নতিতে কার্যকর ছিল। অধিকন্তু, অর্জুনের বাকল হচ্ছে উৎকৃষ্ট অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং প্রদাহ-বিরোধী, যার ফলে হৃদয়ের টিস্যুর উপরে চাপ কমে যায় এবং হৃদয়ের পেশীগুলির কোন বয়সের বা জীবনধারা-সংক্রান্ত অবনতি হ্রাস পায়। সুপারিশ করা হচ্ছে যে অর্জুন বাকলের সঠিক মাত্রা জানার জন্য আপনার আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের সাথে কথা বলুন।

(আরও পড়ুন: হৃদরোগের প্রকার এবং কারণ

অর্জুনের বাকল ও কলেস্টেরল - Arjuna herb for cholesterol in Bengali

অর্জুনের বাকলের হাইপোলিপিডেমিক (কোলেস্টেরল হ্রাস করা) গুণ পরীক্ষা করার জন্য অনেক গবেষণা হয়েছে। প্রাণীদের উপরে গবেষণা এবং ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা সুনিশ্চিত করেছে যে দেহের লিপিড (ফ্যাট/চর্বি) প্রোফাইলের ভারসাম্য বজায় রাখতে  অর্জুন গাছ একটি উৎকৃষ্ট ঔষধি।

একটি পরীক্ষাতে 21 জন করোনারী হার্টের রোগীদের দুধের সাথে মিশিয়ে 1 গ্রাম অর্জুন বাকল চূর্ণ 4 মাস ধরে খেতে দেওয়া হয়েছিল। দেখা গিয়েছিল যে দেহের লিপিড'এর পরিমাণ বজায় রাখতে অর্জুনের বাকলের ইতিবাচক প্রভাব ছিল।

আরও গবেষণা দেখাচ্ছে যে অর্জুনের বাকল এলডিএল'র (খারাপ কোলেস্টেরল) পরিমাণ কমিয়ে দেয়। যার ফলে অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস (ধমনীতে চর্বি জমা) এবং কার্ডিওভাসকুলার অসুখ যেমন, স্ট্রোক এবং হার্ট এ্যাটাক'এর ঝুঁকি হ্রাস পায়। কাজেই নির্দ্বিধায় বলা যায় যে হাইপোলিপিডেমিক হিসাবে অর্জুনের বাকলের ভবিষ্যৎ খুব উজ্জ্বল।

 (আরও পড়ুন: উচ্চ কোলেস্টেরলের চিকিৎসা

রক্তচাপ ও অর্জুনের বাকল - Arjuna bark for blood pressure in Bengali

আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকদের মতে, অন্যান্য ঔষধির সাথে যখন অর্জুনের বাকল মিশিয়ে মিশ্র চিকিৎসা করা হয় তখন তা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে খুবই উপযোগী হয়। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে অর্জুনের বাকলের উপযোগিতা নিয়ে অনেক গবেষণা হয়েছে, এবং ফলাফল জানাচ্ছে যে আয়ুর্বেদের এই দাবি হয়তো সত্যি।

একটি ক্লিনিক্যাল পরীক্ষায়, 10 জন সিএইচএফ (কনজেস্টিভ হার্ট ফেলিওর, হৃদয় দক্ষতার সাথে রক্ত সঞ্চালন করতে পারে না) রোগীকে দিনে দু'বার 4 গ্রাম অর্জুনের বাকল চূর্ণ এক মাসের জন্য খেতে দেওয়া হয়েছিল। মাসের শেষ, দেখা গিয়েছিল যে ঊর্ধ্বশ্বাসের উপসর্গ এবং সিস্টোলিক ও ডায়াস্টোলিক রক্তচাপ জনিত সমস্যা উল্লেখযোগ্য ভাবে কমে গিয়েছিল।

এই সব সত্যেও আপনার চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করে নেবেন যে আপনার শরীর অনুযায়ী অর্জুনের বাকল চূর্ণ কতটা পরিমাণে খাওয়া সঠিক হবে।

(আরও পড়ুন: উচ্চ রক্তচাপের চিকিৎসা

মধুমেহ ও অর্জুনের বাকল - Arjuna bark for diabetes in Bengali

প্রাণী-ভিত্তিক মডেল এবং গবেষণাগারের পরীক্ষা দাবি করছে যে অর্জুনের বাকল একটি উৎকৃষ্ট হাইপোগ্লাইসেমিক (রক্তে চিনির মাত্রা হ্রাস করে) ঔষধি। পরীক্ষাগুলির ফলাফল জানাচ্ছে যে অর্জুনের বাকল রক্ত থেকে গ্লুকোজ উত্তোলন বৃদ্ধি করে এবং গ্লুকোজ উৎপাদনে জড়িত কিছু এনজাইম'কে বাধা দেয়। ফলে রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমে যায়।

অবশ্য মানব-দেহে গবেষণার তথ্যের অভাবে মানুষের দেহে অর্জুনের বাকলের মধুমেহ-বিরোধী চরিত্র সম্পর্কে নিশ্চিত ভাবে কিছু বলা যায় না।

কাশি ও অর্জুনের বাকল - Arjuna bark for cough in Bengali

প্রাণীদেহে পরীক্ষার ফল ইঙ্গিত দেয় যে অ্যারাবিনোগ্যালাক্টান, অর্জুনের বাকলে প্রাপ্ত একটি রাসায়নিক যৌগ, কাশির উপসর্গ হ্রাস করতে কার্যকর। কিন্তু মানব-দেহে পরীক্ষার ফলাফলের অনুপস্থিতিতে উচিৎ হবে একজন আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের কাছে অর্জুন বাকলের কাশি নিরাময়ের প্রভাবের বিষয়ে জেনে নেওয়া।

অর্জুনের বাকলের ঘনীভূত-বিরোধী গুণ - Arjuna bark as an anti-coagulant in Bengali

অর্জুনের বাকল রক্ত ঘনীভূত হওয়া বা জমাট বাঁধা (অ্যান্টি-কোয়াগুল্যান্ট) বন্ধ করতে পারে কিনা সেই বিষয়ে গবেষণা উপকারী হতে পারে। আরও বলা হচ্ছে যে রক্তের প্লেট-লেট'এর জমাট বাঁধা এড়াতে, অথবা রক্ত জমাট বাঁধা শুরু করা সংক্রান্ত কোন সংকেতে হস্তক্ষেপ করে তা বন্ধ করতে অর্জুনের বাকল কার্যকর হতে পারে। অবশ্য অর্জুন বাকলের অ্যান্টি-কোয়াগুল্যান্ট গুণকে প্রতিষ্ঠা করতে আরও গবেষণার প্রয়োজন আছে।

রক্তপাতের বিশৃঙ্খলা ও অর্জুনের বাকল - Arjuna bark for bleeding disorders in Bengali

রক্তপাতের বিশৃঙ্খলার প্রতিকার হিসাবে আয়ুর্বেদে অর্জুনের বাকলের ব্যাপক ব্যবহার আছে। এই অসুখগুলির উদাহরণ হল, হিমোফিলিয়া, ভন উইলিব্র্যান্ড রোগ, অস্বাভাবিক এবং প্রায়শই শরীরের অভ্যন্তরীণ থেঁতলে যাওয়া এবং রক্তপাত, ঋতুস্রাবের সময় বেশি রক্তপাত এবং রক্তক্ষরণ।

আয়ুর্বেদ চিকিৎসকদের মতে অর্জুনের বাকল একটি উৎকৃষ্ট 'ভাস্কোকনস্ট্রিকটার" (রক্তনালী সরু করে দেয়) , ফলে রক্তক্ষরণের সময় রক্তপাত কম হয়। অবশ্য, মানব দেহের উপরে অর্জুনের বাকলের এই প্রভাবের বিষয়ে এখনও কোন গবেষণা হয়নি।

পাকস্থলীর ঘা ও অর্জুনের বাকল - Arjuna bark for stomach ulcers in Bengali

প্রাণী-দেহে পরীক্ষাগুলি ইঙ্গিত দেয় যে অর্জুনের বাকলের ইথানল নির্যাস পাকস্থলীতে মিউকোসাল ব্যারিয়ার শক্তিশালী করে পাকস্থলীর ঘা'এর তীব্রতা হ্রাস করে। তবে মানব-দেহে এই ধরণের পরীক্ষা এখনও হয়নি যা থেকে এর সত্যতা যাচাই করা যেতে পারে। কাজেই আপনার যদি পাকস্থলীর ঘা থাকে, তাহলে অর্জুনের বাকল সেবন করার আগে একজন আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করে নেবেন।

হার ভাঙা ও অর্জুনের বাকল - Arjuna bark for fractures in Bengali

হঠাৎ আঘাত বা চাপ লাগলে অথবা অস্টিওপরোসিস থাকলে হাড় ভাঙতে পারে। সাধারণ চিকিৎসার অন্তর্গত হল হাড়ের বিকল্পগুলি (হাড় জোড়া দেওয়ার জৈব অথবা কৃত্রিম পদার্থ) এবং বৃদ্ধির ফ্যাকটারগুলি। কিন্তু বৃদ্ধির ফ্যাকটারগুলি খুবই দামি এবং এদের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে। ভাঙা হাড় জোড়া দিতে আয়ুর্বেদ চিকিৎসকরা অর্জুনের বাকলের লেই (পেস্ট) ব্যবহার করেন। ল্যাবোরেটারির পরীক্ষাগুলি দাবি করে যে অর্জুনের বাকলের নির্যাস হাড়ের টিস্যুর পুনর্জন্ম দিতে খুবই কার্যকর। তবে মানব দেহে পরীক্ষার অভাবে অর্জুনের বাকলের এই নিরাময়ের দাবি নিশ্চিত করা যায় না।

অর্জুনের বাকলের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট গুণ - Arjuna bark antioxidant in Bengali

অর্জুনের বাকলের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট গুণ পরীক্ষা করার জন্য অনেক গবেষণা হয়েছে। ল্যাবোরেটারি এবং প্রাণী-দেহের উপরে পরীক্ষা জানাচ্ছে যে অর্জুনের বাকলের প্রভাবে অ্যান্টি-অক্সিডেন্টগুলির, যেমন লিভারের সুপার অক্সাইড ডিসমিউটেজ, ক্যাটালেজ, ভিটামিন এ, সি এবং ই, পরিমাণ বৃদ্ধি পায়।

অবশ্য, মানব-দেহে অর্জুন বাকলের এই আ্যন্টি-অক্সিডেন্ট গুণ এখনও পরীক্ষিত হয়নি।

অর্জুনের বাকলের অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল গুণ - Arjuna bark as an antimicrobial in Bengali

দেখা গিয়েছে যে অর্জুনের বাকলের জল এবং এসিটোন নির্যাস বিভিন্ন স্ট্যাফাইলোকক্কাস অরিয়াস'এর (এক ধরণের ব্যাকটেরিয়া) বিভিন্ন স্ট্রেইনের বিরুদ্ধে এবং অ্যান্টি-বায়োটিক প্রতিরোধী ভিআরএসএ এবং এমআরএসএ স্ট্যাফাইলোকক্কাস'এর বিরুদ্ধে  কার্যকরী।

আর একটি পরীক্ষা দেখাচ্ছে যে একটি বিস্তৃত সীমার (ওয়াইড রেঞ্জ) অ্যান্টিবায়োটিকের বদলে বিশেষ প্রকারের ব্যাকটেরিয়ার (গ্রাম নেগেটিভ) বিরুদ্ধে অর্জুনের বাকলের নির্যাস সম্ভবত বেশি কার্যকরী। মানব দেহে পরীক্ষার অভাবে অর্জুনের বাকল চিকিৎসায় ব্যবহার করার আগে আপনার আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের সাথে কথা বলে নিন।

অর্জুনের বাকল সাধারণত গুড়ো করে ব্যবহার করা হয়। এর স্বাস্থ্য সংক্রান্ত উপকারিতার জন্য আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকরা এটি অন্য ভাবেও ব্যবহার করেন যেমন, ক্যাপসুল, বড়ি এবং অর্জুন চা।

আপনি যদি আয়ুর্বেদিক চিকিৎসার সাথে পরিচিত থাকেন, তাহলে আপনি নিশ্চয়ই অর্জুনের দুধ বা 'ক্ষীরপাকা'র কথা জানেন। এটি অর্জুনের বাকল চূর্ণ এবং দুধ থেকে প্রস্তুত একটি সুপরিচিত আয়ুর্বেদিক ঔষধ। আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকদের মতে, ক্ষীরপাকা হৃদয়ের জন্য একটি উৎকৃষ্ট বলবর্ধক ঔষধ। এই ঔষধ বাড়িতে প্রস্তুত করার প্রণালী নিচে দেওয়া হল:

  1. জল, দুধ এবং অর্জুনের বাকল 32:8:1 অনুপাতে মিশিয়ে নিন।
  2. অল্প তাপে এই মিশ্রণ গরম করুন যতক্ষণ না সব জল বাষ্প হয়ে উবে যায়।
  3. মিশ্রণটি ছেঁকে নিন। কাঁধা বা অর্জুনের দুধ উপভোগ করুন।

ঔষধ হিসাবে ব্যবহার ছাড়াও অর্জুনের কাঠ বাড়ি-ঘর তৈরির জন্য শোভাময় কাঠ এবং জ্বালানি হিসাবে ব্যবহৃত হয়। অর্জুনের ডালগুলি বড় শামিয়ানার মত কাজ করে, কাজেই ছায়া দেওয়ার জন্য রাস্তার ধারে এই গাছ রোপিত হয়। মানুষের এমনই বিশ্বাস যে জলের উৎস, যেমন ইঁদারার পাশে অর্জুন গাছ লাগালে বায়ু দূষণ থেকে থেকে রক্ষা করে জলকে বিশুদ্ধ রাখে।

কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই এক সপ্তাহ পর্যন্ত 500 মিলিগ্রাম অর্জুন বাকলের চূর্ণ নেওয়া যেতে পারে। কিন্তু আদর্শ মাত্রা নির্ভর করবে একজন ব্যক্তির বিভিন্ন শারীরিক এবং মানসিক অবস্থার উপর। কাজেই, সুপারিশ করা হচ্ছে যে অর্জুনের বাকল কোন রূপে সেবন করার আগে একজন আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করে নেবেন।

  1. গর্ভবতী এবং স্তন্যদাত্রী মহিলাদের উপরে অর্জুনের প্রভাব সংক্রান্ত কোন গবেষণা হয়নি। কাজেই বৈজ্ঞানিক প্রমাণের অভাবে, সুপারিশ করা হচ্ছে যে গর্ভবতী অথবা স্তন্যদাত্রী মহিলারা যেন অর্জুনের বাকল ব্যবহার না করেন।
  2. টারমিনালিয়া রক্ত জমাট বাধা হ্রাস করে। কাজেই আপনার যদি রক্তের বিশৃঙ্খলা থাকে বা আপনার কোন শল্য চিকিৎসা হবে, তাহলে অর্জুনের ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকবেন।
  3. অর্জুনের বাকলের শক্তিশালী হাইপোগ্লাইসেমিক প্রভাব আছে। কাজেই, আপনার রক্তের চিনির মাত্রা যদি স্বাভাবিক ভাবেই কম থাকে, অথবা আপনি একজন মধুমেহ রোগী এবং ওষুধ খাচ্ছেন, তাহলে কোন প্রকারে অর্জুনের বাকল খাওয়ার আগে চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করে নেবেন।
  4. অন্য কোন ওষুধের সাথে অর্জুনের বাকলের কোন মিথস্ক্রিয়ার (ড্রাগ ইন্টার‍্যাকশন) কথা এখনও জানা নেই। তবে আপনি যদি অন্য কোন রকম ওষুধ নিতে থাকেন, তাহলে আপনার আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করে তবেই অর্জুনের বাকলের কোন সম্পূরক (সাপ্লিমেন্ট) নেবেন।

उत्पाद या दवाइयाँ जिनमें Arjuna है

তথ্যসূত্র

  1. Dwivedi S, Jauhari R. Beneficial effects of Terminalia arjuna in coronary artery disease. Indian Heart J. 1997 Sep-Oct;49(5):507-10. PMID: 9505018
  2. Shridhar Dwivedi, Deepti Chopra. J Tradit Complement Med. 2014 Oct-Dec; 4(4): 224–231. PMID: 25379463
  3. Maulik SK, Talwar KK. Therapeutic potential of Terminalia arjuna in cardiovascular disorders. Am J Cardiovasc Drugs. 2012 Jun 1;12(3):157-63. PMID: 22583146
  4. Maulik SK, Katiyar CK. Terminalia arjuna in cardiovascular diseases: making the transition from traditional to modern medicine in India. Curr Pharm Biotechnol. 2010 Dec;11(8):855-60. PMID: 20874682
  5. Sandhu JS et al. Effects of Withania somnifera (Ashwagandha) and Terminalia arjuna (Arjuna) on physical performance and cardiorespiratory endurance in healthy young adults. Int J Ayurveda Res. 2010 Jul;1(3):144-9. PMID: 21170205
  6. B. Ragavan, S. Krishnakumari. Antidiabetic effect ofT. arjuna bark extract in alloxan induced diabetic rats. Indian J Clin Biochem. 2006 Sep; 21(2): 123–128. PMID: 23105628
  7. Sivová V, Bera K, Ray B, Nosáľ S, Nosáľová G. Cough and Arabinogalactan Polysaccharide from the Bark of Terminalia Arjuna. Adv Exp Med Biol. 2016;935:43-52. PMID: 27334729
  8. Malik N, Dhawan V, Bahl A, Kaul D. Inhibitory effects of Terminalia arjuna on platelet activation in vitro in healthy subjects and patients with coronary artery disease. Platelets. 2009 May;20(3):183-90. PMID: 19437336
  9. Devi RS, Narayan S, Vani G, Shyamala Devi CS. Gastroprotective effect of Terminalia arjuna bark on diclofenac sodium induced gastric ulcer. Chem Biol Interact. 2007 Apr 5;167(1):71-83. Epub 2007 Feb 2. PMID: 17327128
  10. Devi RS et al. Ulcer protective effect of Terminalia arjuna on gastric mucosal defensive mechanism in experimental rats. Phytother Res. 2007 Aug;21(8):762-7. PMID: 17471603
  11. Shreya Mandal et al. Analysis of phytochemical profile of Terminalia arjuna bark extract with antioxidative and antimicrobial properties. Asian Pac J Trop Biomed. 2013 Dec; 3(12): 960–966. PMID: 24093787
ऐप पर पढ़ें