কুষ্ঠ রোগ - Leprosy in Bengali

Dr. Ajay Mohan (AIIMS)MBBS

May 08, 2019

March 06, 2020

কুষ্ঠ রোগ
কুষ্ঠ রোগ

কুষ্ঠ রোগ কি?

কুষ্ঠ বা হ্যানসেন রোগটি ম্যাইকোব্যাকটেরিয়াম লেপরের কারণে সৃষ্ট ত্বক এবং স্নায়ুর সংক্রমণ বিশেষ। এই অবস্থায় ত্বক, শ্লৈষ্মিক ঝিল্লি, পেরিফেরাল স্নায়ু, চোখ এবং শ্বাসযন্ত্র প্রভাবিত হয়।

ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (ডাব্লুএইচও) অনুসারে, কুষ্ঠ সম্ভবত শ্বাসযন্ত্রের মাধ্যমে এবং পোকামাকড়ের মাধ্যমে ছড়ায়, আবার অন্যদিকে বেশীরভাগ মানুষ মনে করেন সংক্রামিত ব্যক্তির সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগের মাধমেও ছড়ায়।

স্কিন স্মীয়ার (ত্বকের ক্ষত অংশ থেকে নমুনা নেওয়া হয়) পরীক্ষার ফলের উপর ভিত্তি করে নিম্নলিখিত অবস্থাগুলির শ্রেণীবদ্ধ করা হল:

  • পাউসিবেসিলারি কুষ্ঠ (পিবি) - নেতিবাচক স্মীয়ার।
  • মালটিবেসিলারি কুষ্ঠ (এমবি) - ইতিবাচক স্মীয়ার।

এর প্রধান লক্ষণ ও উপসর্গগুলি কি কি?

এই অবস্থার উপসর্গগুলি স্পষ্ট দেখা যায় যা এই রোগকে সহজে সনাক্ত করতে সাহায্য করে:

  • ফ্যাকাশে দাগ বা ছোপযুক্ত চামড়া, মূলত মসৃণ।
  • অসার ও বিবর্ণ ক্ষত যা পার্শ্ববর্তী এলাকার তুলনায় হালকা বর্ণের।
  • চামড়ার উপর ক্ষুদ্র উঁচু ফোঁড়া জাতীয় বস্তু।
  • শুষ্ক ও শক্ত চামড়া।
  • পায়ের পাতার নিচের অংশে ঘা।
  • মুখের বা কানের কিছু অংশ উঁচু হয়ে ফুলে যাওয়া।
  • চোখের পাতা ও ভ্রূ র সম্পূর্ণ বা আংশিক ক্ষতি বা নষ্ট হয়ে যাওয়া।

অন্যান্য উপসর্গের মধ্যে রয়েছে:

  • সংক্রামিত জায়গায় অসারভাব ও ঘাম হওয়া।
  • পঙ্গু হয়ে যাওয়া।
  • পেশীতে দুর্বলতা।
  • নার্ভের বা স্নায়ুর বৃদ্ধি, বিশেষত কনুই ও হাঁটুর চারপাশে।
  • মুখের নার্ভে বা স্নায়ুতে প্রভাব পরার দরুন অন্ধত্ব।

পরবর্তী পর্যায়ে, এটির ফল যা হতে পারে:

  • পা ও হাত অসমর্থ হয়ে যাওয়া।
  • আঙ্গুল ও পা ছোট হয়ে যাওয়া এবং শুকিয়ে যাওয়া।
  • পায়ের আলসার বা ঘা ভাল না হওয়া।
  • নাক বিকৃত হয়ে যাওয়া।
  • চামড়ায় জ্বালাভাব অনূভব করা।
  • ব্যথাযুক্ত বা সংবেদনশীল স্নায়ু।

এর প্রধান কারণগুলি কি?

কুষ্ঠরোগটি ম্যাইকোব্যাকটেরিয়াম লেপরে নামক ব্যাকটেরিয়ার কারণে হয় যা সাধারণত আমাদের পরিবেশে থাকে। জিনগত পরিবর্তন এবং বৈচিত্র্য কুষ্ঠরোগের সম্ভাবনা বৃদ্ধি করে। একইভাবে, প্রতিরক্ষা পদ্ধতিতে পরিবর্তন এবং প্রদাহের ফলে এটি হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। রোগটি দীর্ঘস্থায়ী সংক্রামিত ব্যক্তির সাথে দীর্ঘস্থায়ী যোগাযোগের কারণে বা বাতাসে নিঃশ্বাস নেওয়ার সময় নাসারন্দ্রের মাধ্যমে প্রবেশ করা ব্যাকটেরিয়ার কারনেও ছড়াতে পারে।

এটি কিভাবে নির্ণয় ও চিকিৎসা করা হয়?

কুষ্ঠরোগ নির্ণয় করা হয় ত্বকের রঙের দ্বারা যা ত্বকের আসল রঙের চেয়ে গাঢ় বা হালকা হয়। এই ছোপগুলি লালচে হতে পারে।পরীক্ষার ফলাফল নিশ্চিত করতে, ডাক্তার একটি ত্বক বা নার্ভ বায়োপসি পরিচালনা করতে পারে।

এই অবস্থায় এন্টিবায়োটিকের দ্বারা চিকিৎসা করা যাতে পারে, এই বহু-ড্রাগ থেরাপি অ্যান্টিবায়োটিক  সহ্য করার ক্ষমতা এড়াতে গুরুত্বপূর্ণ। এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত ড্যাপসন, ক্লোফাজিমিন ও রিফাম্পিসিন।যদি এই ওষুধ থেকে অ্যালার্জি হয় তাহলে মিনোসাইক্লিন, ক্ল্যারিথ্রোমাইসিন ও অফ্লক্সাসিন কার্যকারী বিকল্প।

সারহীনতা এড়াতে বিশেষ জুতাগুলি বেছে নিন যা পাটিকে সুরক্ষিত করে স্বাভাবিক গতিপথে আনবে। অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে দৃশ্যমান বিকৃতির চিকিৎসা করা যেতে পারে এবং আত্মবিশ্বাস উন্নত করতে সাহায্য করে।

সম্পূর্ণভাবে, এই রোগের চিকিৎসা করতে প্রায় এক বছরের উপর লাগবে। আপনার ডাক্তারের কাছ থেকে দ্রুত পরামর্শ নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ। জোর করে সময় মতো চিকিৎসা করলে এটি সম্পূর্ণ নির্মূল হতে পারে।



তথ্যসূত্র

  1. World Health Organization [Internet]. Geneva (SUI): World Health Organization; What is leprosy?
  2. U.S. Department of Health & Human Services. Leprosy. National Library of Medicine; [Internet]
  3. Center for Disease Control and Prevention [internet], Atlanta (GA): US Department of Health and Human Services; Signs and Symptoms
  4. Alina Bradford. Leprosy: Causes, Symptoms & Treatment. Oct 8, 2016 12:55 am ET
  5. Joel Carlos Lastória et al. Leprosy: review of the epidemiological, clinical, and etiopathogenic aspects - Part 1*. An Bras Dermatol. 2014 Mar-Apr; 89(2): 205–218. PMID: 24770495

কুষ্ঠ রোগ ৰ ডক্তৰ

Dr. Arun R Dr. Arun R Infectious Disease
5 वर्षों का अनुभव
Dr. Neha Gupta Dr. Neha Gupta Infectious Disease
16 वर्षों का अनुभव
Dr. Lalit Shishara Dr. Lalit Shishara Infectious Disease
8 वर्षों का अनुभव
Dr. Alok Mishra Dr. Alok Mishra Infectious Disease
5 वर्षों का अनुभव
অনেক সময় অডিও র জন্য মুহূর্তের বিলম্ভ হতে পারে

কুষ্ঠ রোগ জন্য ঔষধ

কুষ্ঠ রোগ के लिए बहुत दवाइयां उपलब्ध हैं। नीचे यह सारी दवाइयां दी गयी हैं। लेकिन ध्यान रहे कि डॉक्टर से सलाह किये बिना आप कृपया कोई भी दवाई न लें। बिना डॉक्टर की सलाह से दवाई लेने से आपकी सेहत को गंभीर नुक्सान हो सकता है।