ম্যানিয়া - Mania in Bengali

Dr. Ayush PandeyMBBS,PG Diploma

May 10, 2019

March 06, 2020

ম্যানিয়া
ম্যানিয়া

মেনিয়া (ম্যানিয়া) কি?

মেনিয়া বা ম্যানিয়া এমন একটি অবস্থা যাতে আপনি শারীরিক ও মানসিকভাবে অত্যন্ত সক্রিয় অনুভব করেন, যা দৈনন্দিন জীবনযাপনের উপর গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব ফেলে। মেনিয়া বা উন্মত্ত মানসিকতার পর্ব সাধারণত একসপ্তাহ বা তার বেশি সময় ধরে থাকে এবং এটি হাইপোমেনিয়ার একটি গুরুতর আকার। এটি একটি উপসর্গ যা সাধারণত বাইপোলার ডিসর্ডার, পোস্টপার্টাম সাইকোসিস এবং এরকম অন্যান্য রোগে আক্রান্ত মানুষের মধ্যে দেখা যায়, যেখানে মেজাজ চরম পর্যায়ে থাকে (অত্যধিক উঁচুতে অথবা অত্যধিক তলানিতে অনুভব হয়)। এই সমস্ত মানুষের মধ্যে মেনিয়া প্রায়শই বিষণ্নতায় পরিবর্তিত হয়।

ভারতে বাইপোলার রোগের ব্যাপকতা 0.1 শতাংশ হার সহ পুরুষদের মধ্যে উচ্চমাত্রায় হতে দেখা যায়। ভারতের জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য সমীক্ষা 2015-16 অনুযায়ী, 40-49 বছর বয়সী ব্যক্তিদের মধ্যে বাইপোলার রোগ সংক্রান্ত ঘটনারই সর্বাধিক তথ্য পাওয়া গিয়েছিল।

এর সঙ্গে যুক্ত প্রধান লক্ষণ এবং উপসর্গগুলি কি কি?

উন্মত্ত মানসিক অবস্থার ঘটনাপর্ব চলাকালীন আপনি যে সমস্ত কাজকর্ম করবেন অথবা উপলব্ধি করবেন:

  • অত্যন্ত খুশি, উদ্দীপনা ধরে রাখতে অক্ষম।
  • অত্যধিক সক্রিয়।
  • খুব দ্রুত কথা বলা বা চিন্তাভাবনা করা।
  • ঘুমোতে অথবা খেতে অনিচ্ছুক।
  • সহজেই বিভ্রান্ত হওয়া।
  • সহজেই বিরক্ত হওয়া এবং রেগে যাওয়া।
  • বিশেষ ক্ষমতার অধিকারী মনে হওয়া।
  • অন্তর্দৃষ্টির অভাব।
  • অমূলক চিন্তাভাবনা এবং ধারণা পোষণ।

ঘটনাপর্বের পর, আপনার হয়ত বা মনে থাকবে যে কি ঘটেছিল এবং নিজের কর্মকাণ্ড ও কথাবার্তার জন্য বিব্রতবোধ হতে পারে। আপনি ক্লান্তি এবং ঘুমও অনুভব করবেন।

এর প্রধান কারণগুলি কি কি?

মেনিয়ার সম্ভাব্য কারণগুলি হল:

  • বাইপোলার রোগ।
  • মানসিক চাপ
  • জিনগত কারণ।
  • ঋতুর পরিবর্তন।
  • নির্দিষ্ট ওষুধ অথবা অ্যালকোহলের ব্যবহার।
  • স্নায়ুর কার্যকারিতায় অস্বাভাবিকতা।
  • নির্দিষ্ট কিছু রোগের অবস্থার অন্তিম পর্যায়ের প্রকাশ।
  • প্রসবাবস্থা।
  • প্রিয়জনকে হারানো, বিবাহবিচ্ছেদ, হিংসাত্মক, অবমাননাকর, বেকারত্ব, আর্থিক সমস্যার মতো ঘটনা।

এটি কিভাবে নির্ণয় এবং চিকিৎসা করা হয়?

মেনিয়ার চিকিৎসায় আপনার চিকিৎসক (মনোরোগ বিশেষজ্ঞ) বিশেষভাবে সাহায্য করতে পারেন। মেনিয়া সৃষ্টি করতে এমন সমস্ত অন্যান্য কারণের সম্ভাবনা দূর করার জন্য তিনি আপনার চিকিৎসাগত ও ব্যক্তিগত ইতিহাস জিজ্ঞাসা করবেন। ইতিহাস জেনে নিলে কোনও সাম্প্রতিক দুঃখজনক ঘটনা চিহ্নিত এবং আপনার মানসিক স্বাস্থ্যের মূল্যায়ন করতে সহায়তা করবে।

মেনিয়া বা ম্যানিয়ার ব্যবস্থাপনায় সাধারণত অ্যান্টি-সাইকোটিক্স দেওয়া হয়। বাইপোলার রোগ সম্পর্কিত মেনিয়ার ক্ষেত্রে, মুড স্টেবিলাইজার দেওয়া হয়। ক্ষতিকারক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলি প্রতিরোধের জন্য নিয়মিত রক্ত ​​পরীক্ষার প্রয়োজন হয় (অথবা কিছু মুড স্টেবিলাইজার ওষুধ)। ওষুধের পাশাপাশি, সাইকোথেরাপি (যা ধরণ চিহ্নিত করতে সহায়তা করে, বর্তমানে ভালোভাবে বাঁচতে উৎসাহিত করে বা সমস্যার সমাধান করে) এবং পরিবার ও বন্ধুবান্ধবদের কাছ থেকে সমর্থন দুর্দান্তরকম সহায়ক হতে পারে।



তথ্যসূত্র

  1. Prasad G. Rao. An overview of Indian research in bipolar mood disorder. Indian J Psychiatry. 2010 Jan; 52(Suppl1): S173–S177. PMID: 21836675.
  2. Suresh Bada Math and Ravindra Srinivasaraju. Indian Psychiatric epidemiological studies: Learning from the past. Indian J Psychiatry. 2010 Jan; 52(Suppl1): S95–S103. PMID: 21836725.
  3. Queensland Health. [Internet]. The State of Queensland. Caring for a person experiencing Mania.
  4. Mind. [Internet]. National Association for Mental Health. Hypomania and mania.
  5. Dailey MW, Saadabadi A. Mania. [Updated 2019 May 13]. In: StatPearls [Internet]. Treasure Island (FL): StatPearls Publishing; 2019 Jan-.

ম্যানিয়া জন্য ঔষধ

ম্যানিয়া के लिए बहुत दवाइयां उपलब्ध हैं। नीचे यह सारी दवाइयां दी गयी हैं। लेकिन ध्यान रहे कि डॉक्टर से सलाह किये बिना आप कृपया कोई भी दवाई न लें। बिना डॉक्टर की सलाह से दवाई लेने से आपकी सेहत को गंभीर नुक्सान हो सकता है।