ব্রংকাইটিস - Bronchitis in Bengali

Dr. Nabi Darya Vali (AIIMS)MBBS

November 29, 2018

March 06, 2020

ব্রংকাইটিস
ব্রংকাইটিস

ব্রংকাইটিস কি?

ব্রংকাইটিস একটা সাধারণ ফুসফুসের অবস্থা যেখানে ব্রংকিয়াল টিউবগুলির লাইনিং উদ্দীপ্ত হয়। এই টিউবগুলি ফুসফুসের ভিতরে ও বাইরে বাতাস নিয়ে যায়, এবং এদের জ্বালা, বাতাস চলাচলের স্থান সরু হওয়ার কারণে শ্বাসপ্রশ্বাসে অসুবিধা করে। ঘন মিউকাস তৈরী হবার জন্য সাধারণত ব্রংকাইটিসে কাশি হয়। ব্রংকাইটিস তীব্র বা দীর্ঘস্থায়ী হতে পারে।

এর প্রধান লক্ষণ এবং উপসর্গগুলি কি কি?

ব্রংকাইটিসের উপসর্গগুলি অবস্থার পর্যায়ের উপর ভিত্তি করে ভিন্ন হয়। যদিও কিছু উপসর্গগুলি তীব্র ও দীর্ঘস্থায়ী ব্রংকাইটিসের ক্ষেত্রে সাধারণ থাকে, কিছু বিশেষ উপসর্গ দীর্ঘস্থায়ী পর্যায়ে উল্লেখ করা যেতে পারে।

সাধারণ উপসর্গগুলি:

  • বুক শক্ত হয়ে যাওয়া এবং নিঃশ্বাসের কমতি
  • হাল্কা জ্বর এবং শরীর ঠান্ডা হয়ে যাওয়া
  • কাশির সাথে মিউকাস যেটা পরিষ্কার, সবুজাভ অথবা ফ্যাকাশে হলুদ, এবং কখনও রক্ত মাখা হতে পারে।

তীব্র ব্রংকাইটিস:

বেশীরভাগ উপসর্গগুলি সাধারণত এক সপ্তাহের মধ্যে ভালো হয়ে যায়, যদিও কাশি আরো দীর্ঘ হতে পারে।

দীর্ঘস্থায়ী ব্রংকাইটিস:

  • বারে বারে কাশি হওয়া
  • কাশি মৃদু বা খুব খারাপ হতে পারে
  • কম করে তিন মাস থাকে

ব্রংকাইটিসের প্রধান কারণগুলি কি কি?

ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের মত ঠান্ডা লাগা ও ফ্লু সৃষ্টিকারি সাধারণ ভাইরাস ব্রংকাইটিসের জন্য দায়ী। যাইহোক, দীর্ঘস্থায়ী ব্রংকাইটিসের ফলে গ্যাস্ট্রিক রিফ্লাক্স, ফুসফুসে উত্তেজক পদার্থের প্রকাশ হতে পারে যা ঘরে বা কাজের জায়গায় রাসায়নিক, কম প্রতিরোধ ক্ষমতা বা সিগারেট খাওয়ার কারণে হয়।

এটি কিভাবে নির্ণয় এবং চিকিৎসা করা হয়?

বিশেষত প্রারম্ভিক পর্যায়ে, ব্রংকাইটিসকে একটি সাধারণ ঠান্ডা লাগা থেকে আলাদা করা মুশকিল হতে পারে। অবস্থাটির রোগ নির্ণয় করতে চিকিৎসক সচরাচর নিম্নলিখিত পরীক্ষাগুলি ব্যবহার করেন:

  • অ্যালার্জি বা অন্যান্য রোগের লক্ষণের জন্য থুতুর পরীক্ষা
  • নিউমোনিয়া বা অন্যান্য সমস্যাগুলি যা কাশি হওয়া বোঝায় তা নির্ণয় করতে বুকের এক্স-রে করা হয়, বিশেষ করে ধূমপানকারীদের ক্ষেত্রে
  • ফুসফুসের ক্ষমতা এবং এম্ফিসেমা অ্যাস্থমার লক্ষণ দেখতে পালমোনারী ফাংশন টেস্ট ধার্য করা হয়

যেহেতু বেশীরভাগ তীব্র ব্রংকাইটিসের ঘটনা ভাইরাস ঘটিত হয়, তাই অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয় না। প্রায়শই, দুই দিনের মধ্যে রোগটি নিজের থেকেই ঠিক হয়ে যায়। যাইহোক, চিকিৎসকেরা ভালো ঘুম নিশ্চিত করতে কাশির সিরাপ দেন এবং জ্বালা কমাতে ও কম হওয়া শ্বাস চলাচল বাড়াতে ওষুধ দেন। অ্যাজমা বা ফুসফুসের অন্যান্য অসুখের জন্যও ওষুধ দেওয়া হয়। শ্বাসের ব্যায়াম, অক্সিজেন থেরাপি, ধূমপান ছেড়ে দেওয়া, তরল পদার্থ বেশী করে খাওয়া এবং বাষ্প অন্তঃশ্বসন হল অন্যান্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা যা উপসর্গগুলিকে উপশম করতে সাহায্য করে। গ্রহণ করা সতর্কতাগুলি হল:

  • বাইরে গেলে মাস্ক ব্যবহার করুন
  • হিউমিডিফাইয়ার ইনডোরস্ ব্যবহার করুন
  • দূষক ও উত্তেজকের থেকে দূরে থাকুন
  • বারবার হওয়া আটকাতে ফ্লুয়ের টীকা নিন



তথ্যসূত্র

  1. National Heart, Lung, and Blood Institute [Internet]: U.S. Department of Health and Human Services; Bronchitis
  2. Center for Disease Control and Prevention [internet], Atlanta (GA): US Department of Health and Human Services; Bronchitis
  3. American lung association. Learn About Acute Bronchitis. Chicago, Illinois, United States
  4. MedlinePlus Medical Encyclopedia: US National Library of Medicine; Acute Bronchitis
  5. MedlinePlus Medical Encyclopedia: US National Library of Medicine; Chronic Bronchitis

ব্রংকাইটিস জন্য ঔষধ

ব্রংকাইটিস के लिए बहुत दवाइयां उपलब्ध हैं। नीचे यह सारी दवाइयां दी गयी हैं। लेकिन ध्यान रहे कि डॉक्टर से सलाह किये बिना आप कृपया कोई भी दवाई न लें। बिना डॉक्टर की सलाह से दवाई लेने से आपकी सेहत को गंभीर नुक्सान हो सकता है।