ই.কোলাই সংক্রমণ - E. coli Infection in Bengali

Dr. Ajay Mohan (AIIMS)MBBS

December 01, 2018

March 06, 2020

ই.কোলাই সংক্রমণ
ই.কোলাই সংক্রমণ

ই. কোলাই সংক্রমণ কি?

এশেরিকিয়া কোলাই, সাধারণত ই. কোলাই নামে পরিচিত, এটি আপনার অন্ত্রে প্রাকৃতিকভাবেই থাকে। 1880র দশকের শেষ দিকে আবিষ্কৃত হওয়ার সময় থেকেই, এই ব্যাকটেরিয়া ব্যবহৃত হয়েছে মাইক্রোবাইলোজি এবং বায়োটেকনোলোজির গবেষণায় কারণ এর ব্যবহার সহজ এবং এটি বায়বীয় ও অবায়বীয় দুই অবস্থাতেই বৃদ্ধির ক্ষমতা রাখে। এর 7টি ভিন্ন রোগসম্বন্ধনীয় ধরন রয়েছে, যা একাধিক সংক্রমণের জন্য দায়ী যেমন মূত্রনালীতে সংক্রমণ (ইউটিআই), রক্তে বিষক্রিয়া, মেনিনজাইটিস এবং ডায়রিয়া। ভারতে, প্রতিবছর সাধারণত ই. কোলাই সংক্রমণ দেখা যায়, ডায়রিয়া এবং ইউটিআই এর মধ্যে খুবই সাধারণ।

এর প্রধান লক্ষণ এবং উপসর্গগুলি কি কি?

আপনার অনেকরকম উপসর্গের অভিজ্ঞতা হতে পারে এটির উপর  নির্ভর করে যে, কোন ধরনের ই. কোলাই সংক্রমণ আপনার হয়েছে। সংক্রমণের ধরণের উপর ভিত্তি করে, যে সকল লক্ষণ এবং উপসর্গগুলি দেখা যায়:

  • শিশুদের ডায়রিয়া এবং ভ্রমণকারীদের ডায়রিয়া: জলের মতো মলত্যাগ (কখনও কখনও সাথে কফও থাকে) এবং বমি
  • রক্তপ্রদাহজনিত কোলাইটিস: রক্তযুক্ত মল।
  • ক্রোনস রোগের সাথে ই. কোলাই সংক্রমণ: অন্ত্রে অনবরত প্রদাহ, অন্ত্রের দেওয়ালে ক্ষত এবং জলের মতো মলত্যাগ।
  • ইউটিআই: মূত্রত্যাগের সময় ব্যথা, প্রস্রাবে দুর্গন্ধ এবং প্রচন্ড জ্বর
  • নবজাতকের মেনিনজাইটিস: সদ্যোজাতদের প্রচন্ড জ্বরের লক্ষণ।

এর প্রধান কারণগুলি কি কি?

সংক্রমণের প্রধান কারণ হল রোগজনক ই. কোলাইয়ের কারণে খাবার এবং জল দূষিত হওয়া। যদিও ই. কোলাই অন্ত্রের ভিতরে বন্ধুত্বপূর্ণ একটি ব্যাকটেরিয়া, তবে এটি রোগজনক প্রজাতির হওয়ার কারণে মানুষের দেহে ব্যাপক ক্ষতি সৃষ্টি করতে পারে। এগুলি এমনকি সুস্থ শরীরেও সংক্রমণ তৈরী করতে এবং ছড়িয়ে পড়তে পারে এই সকল উপায়ে:

  • দূষিত জল পান
  • দূষিত খাবার খাওয়া
  • ই. কোলাই দ্বারা দূষিত মাটিতে উৎপন্ন সব্জি খাওয়ার কারণে
  • অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস
  • হাসপাতালের দূষিত আবর্জনার প্রবাহে থাকা ই. কোলাই

এটি কিভাবে নির্ণয় এবং এর কিভাবে চিকিৎসা করা হয়?

বিভিন্ন ই. কোলাই সংক্রমণ নির্ণয়ের জন্য প্রধানত নমুনায় উপস্থিত ব্যাকটেরিয়া বা তার বিষের পরীক্ষা করা হয়। সংক্রমণের উপর নির্ভর করে, যেসব নির্ণয়কারক পরীক্ষাগুলি করা হয়:

  • ইউটিআই: মূত্র পরীক্ষা এবং মূত্র অনুশীলন।
  • ডায়রিয়া: মলের নমুনা পরীক্ষা।
  • নবজাতকের মেনিনজাইটিস: সেরিব্রোস্পাইনাল ফ্লুইড (সিএসএফ) পরীক্ষা এবং অনুশীলন।
  • ক্রোনস রোগ: অন্ত্রের ক্ষত পরীক্ষার জন্য প্রচলিত রেডিওলজি এবং আলসারেটিভ কোলাইটিস থেকে তাদের আলাদা করা, পাশাপাশি ই. কোলাইয়ের উপস্থিতি নিশ্চিত করার জন্য মলের পরীক্ষা করা হয়।

ই. কোলাই যেহেতু অনেকগুলি ওষুধ প্রতিরোধকারী ক্ষমতাযুক্ত, তাই এর চিকিৎসা কঠিন হতে পারে। ই. কোলাই সংক্রমণের চিকিৎসা পদ্ধতিগুলি হল:

  • যুক্তিসঙ্গতভাবে অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার
  • প্রোবায়োটিকস
  • ব্যাকটেরিওফেজ থেরাপি
  • অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল পেপ্টাইড

ওষুধের সাথে, নিজের যত্ন নিতে হবে যেমন পরিমান মতো জল খাওয়া এবং বিশ্রাম নেওয়া উপকারী হতে পারে।

প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থাগুলি হল সঠিক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, সতর্কভাবে খাবার খাওয়ার অভ্যাস এবং পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা।



তথ্যসূত্র

  1. Zachary D Blount. e Life. 2015; 4: e05826. Published online 2015 Mar 25. doi: [10.7554/eLife.05826]
  2. Nerino Allocati et al Escherichia coli in Europe: An Overview. Int J Environ Res Public Health. 2013 Dec; 10(12): 6235–6254.
  3. V.Niranjan and A.Malini. Antimicrobial resistance pattern in Escherichia coli causing urinary tract infection among inpatients.. Indian J Med Res. 2014 Jun; 139(6): 945–948
  4. Center for Disease Control and Prevention [internet], Atlanta (GA): US Department of Health and Human Services; E. coli (Escherichia coli).
  5. Center for Disease Control and Prevention [internet], Atlanta (GA): US Department of Health and Human Services; E. coli (Escherichia coli)

ই.কোলাই সংক্রমণ ৰ ডক্তৰ

Dr. Arun R Dr. Arun R Infectious Disease
5 वर्षों का अनुभव
Dr. Neha Gupta Dr. Neha Gupta Infectious Disease
16 वर्षों का अनुभव
Dr. Lalit Shishara Dr. Lalit Shishara Infectious Disease
8 वर्षों का अनुभव
Dr. Alok Mishra Dr. Alok Mishra Infectious Disease
5 वर्षों का अनुभव
অনেক সময় অডিও র জন্য মুহূর্তের বিলম্ভ হতে পারে

ই.কোলাই সংক্রমণ জন্য ঔষধ

ই.কোলাই সংক্রমণ के लिए बहुत दवाइयां उपलब्ध हैं। नीचे यह सारी दवाइयां दी गयी हैं। लेकिन ध्यान रहे कि डॉक्टर से सलाह किये बिना आप कृपया कोई भी दवाई न लें। बिना डॉक्टर की सलाह से दवाई लेने से आपकी सेहत को गंभीर नुक्सान हो सकता है।