myUpchar प्लस+ के साथ पूरेे परिवार के हेल्थ खर्च पर भारी बचत

স্তন পিণ্ডগুলো হল স্তনে অস্বাভাবিক টিস্যু বা কোষ বৃদ্ধি। এগুলো গোল অথবা অসমান, যন্ত্রণাহীন অথবা যন্ত্রণাদায়ক, ক্ষত সহ বা ছাড়া, নরম অথবা শক্ত, এবং ক্যান্সারযুক্ত (কর্কটরোগযুক্ত) অথবা অ-ক্যান্সারযুক্ত (কর্কটরোগ না থাকা) হতে পারে। অনেক স্তন পিণ্ড ক্ষতিকারক নয়। সেজন্য, যখন আপনি কোনও স্তন পিণ্ড সনাক্ত করেন অথবা আপনার রোগনির্ণয় করা হয়, দুশ্চিন্তা করবেন না। যাই হোক, একজন ডাক্তারের সাহায্য ছাড়া এগুলোর রোগলক্ষণ নির্ণয় করা যায়না।   

অতএব, যখনই আপনি আপনার স্তনে কোনও পিণ্ড সন্দেহ করবেন চিকিৎসাগত সাহায্য চাওয়ার জন্য আপনার কখনও দেরী করা উচিত নয়। কোনও স্তন পিণ্ডকে উপেক্ষা করা মোটেই কোনও ভাল চিন্তাধারা নয় কারণ এগুলো ছড়াতে পারে এবং আপনার অস্বস্তি সৃষ্টি করতে পারে। যদি চিকিৎসা না করে ফেলে রাখা হয়, এগুলো গুরুতর জটিলতা সৃষ্টি করতে পারে এবং আপনাকে হয়তো আপনার স্তন বাদ দিতে হতে পারে। 

  1. অ-ক্যান্সারযুক্ত স্তন পিণ্ড - Non cancerous breast lumps in Bengali
  2. ক্যান্সারযুক্ত পিণ্ড - Cancerous lumps in Bengali
  3. বাড়িতে স্তন পিণ্ড কিভাবে পরীক্ষা করা যায় - How to check for breast lumps at home in Bengali
  4. স্তন পিণ্ড উপসর্গসমূহ - Breast lump symptoms in Bengali
  5. স্তন পিণ্ডের কারণসমূহ এবং ঝুঁকির বিষয়গুলি - Breast lump causes and risk factors in Bengali
  6. স্তনে পিণ্ডের জন্য রোগ নির্ণয় - Diagnosis for lump in breast in Bengali
  7. স্তন পিণ্ড চিকিৎসা - Breast lump treatment in Bengali

অ-ক্যান্সারযুক্ত স্তন পিণ্ডগুলো হল স্তনগুলিতে সেইসমস্ত অস্বাভাবিক বৃদ্ধি যেগুলোর ক্যান্সার বা কর্কটরোগের কোষ থাকেনা। এগুলো স্তন টিস্যু বা কোষগুলির বাইরে ছড়ায় না এবং জীবন-সংশয়কারী নয়।  

  • ফাইব্রোঅ্যাডেনোমা
    এটা হল সবচেয়ে পরিচিত স্তন পিণ্ড যা মহিলাদের ক্ষেত্রে ঘটে। একটা ফাইব্রোঅ্যাডেনোমায়, স্তনের তন্তুময় এবং গ্রন্থিময় উভয় কোষগুলির একটা অস্বাভাবিক বৃদ্ধি হয়। এই পিণ্ডগুলো সাধারণতঃ নরম থেকে শক্ত হয় এবং স্তনে চলনশীল হয়। এগুলো স্তন কোষের চারপাশে স্থির থাকেনা।  
     
  • সিস্ট (ক্ষুদ্র থলির মত ঝিল্লিযুক্ত তরল, বায়ু বা আধা-কঠিন পদার্থে ভরা কোষ) 
    সিস্টগুলো হল নরম, তরল-ভরা ক্ষুদ্র থলি-সদৃশ বৃদ্ধি যেগুলো চেহারায় বেশির ভাগ গোল হয়। এগুলো স্তনগুলিতে সামান্য ব্যথা সৃষ্টি করতে পারে। 
     
  • ফাইব্রোসিস্টিক রোগ
    স্তনগুলির ফাইব্রোসিস্টিক রোগে তিন ধরণের টিস্যু ক্ষতি জড়িত যার মধ্যে রয়েছে সিস্ট গঠন, ফাইব্রোসিস (তন্তুময় টিস্যুর অস্বাভাবিক বৃদ্ধি), এবং স্তন গ্রন্থিগুলির টিস্যুগুলির অতিবৃদ্ধি। 
     
  • স্ফীতি বা ফোঁড়া
    স্তনে কোনও সংক্রমণের কারণে স্ফীতি বা ফোঁড়া হয়। এগুলো কখনও কখনও স্তন ত্বকে ক্ষতের সাথে যুক্ত থাকে। এগুলো যন্ত্রণাদায়ক এবং অস্বস্তিকর। স্তন্যদানকারিনী মহিলাদের ক্ষেত্রে স্ফীতি বা ফোঁড়া বেশির ভাগ ঘটে।
     
  • অ্যাডেনোমা
    অ্যাডেনোমাগুলো হল টিউমার যা স্তনের গ্রন্থিগুলির ভিতরের আবরণ বা এপিথিলিয়াম যখন অস্বাভাবিকভাবে বাড়তে শুরু করে তখন ঘটে। 
     
  • প্যাপিলোমা (আব)
    প্যাপিলোমাগুলো (আব) হল আঙুল-সদৃশ অভিক্ষেপ (বেরিয়ে আসা অংশ) যা দুগ্ধ নালীগুলির ভিতর এবং বাইরে উভয়দিকে জন্মায়। এগুলো স্তনবৃন্ত থেকে ক্ষরণের সাথেও যুক্ত থাকতে পারে। এই ক্ষরণ রক্তের চিহ্নও দেখাতে পারে। 
     
  • লিপোমা এবং ফ্যাট নেক্রোসিস
    লিপোমা হচ্ছে স্তনের ভিতরের ফ্যাটি টিস্যুর অস্বাভাবিক বৃদ্ধি। ফ্যাট নেক্রোসিস ঘটে যখন স্তনের মেদ কোষগুলির মৃত্যু এবং ছেদ ঘটে। 

ক্যান্সারযুক্ত পিণ্ডগুলি গোড়ার দিকে যন্ত্রণাদায়ক হয়না কিন্তু সেগুলো দ্রুতভাবে বাড়ে। এগুলোর সুনির্দিষ্ট সীমারেখা থাকেনা। এই বৃদ্ধিগুলি বিস্তৃত হতে পারে এবং সংলগ্ন টিস্যুগুলি ধ্বংস করতে পারে। এগুলো সাধারণতঃ শক্ত এবং চারপাশের এবং অন্তর্নিহিত স্তন টিস্যুতে এঁটে থাকতে পারে। যদি চিকিৎসা না করে ফেলে রাখা হয়, কয়েকটি ক্যান্সার কোষ ভেঙে যেতে পারে এবং শরীরের বিভিন্ন অংশে চলাচল করতে পারে এবং সেখানে ক্যান্সার সৃষ্টি করতে পারে। এটা মেটাস্ট্যাসিস ক্যান্সার বা ক্যান্সারের স্থানান্তরণ হিসাবে পরিচিত।    

(আরও পড়ুন: স্তন ক্যান্সারের উপসর্গসমূহ)

স্তনের স্ব-পরীক্ষণ হল আপনার স্তনগুলোতে কিরকম অনুভূতি হচ্ছে সেটা জানার একটা ভাল পদ্ধতি। সেজন্য, প্রতিমাসে এটা করা আপনাকে জানান দেবে আপনার স্তনগুলিতে কোনও অস্বাভাবিকতা আছে কিনা। প্রতি মাসে আপনার রজঃস্রাব শেষ হওয়ার তিন থেকে পাঁচ দিন পর আপনার স্তন পরীক্ষা করুন। আপনার স্তনগুলো নিজে নিজে পরীক্ষা করার জন্য আপনি এই পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করতে পারেনঃ   

শোয়া  

শায়িত অবস্থা আপনার স্তনগুলোর একটা ভাল পরীক্ষায় সাহায্য করে এবং সেগুলোতে কোনও পিণ্ড আছে কিনা সেটা খুঁজে বার করা সহজ হয়। আপনি শুয়ে পড়তে পারেন এবং আপনার মাথার পিছনে আপনার বাঁ হাতটা রাখুন। আপনার ডান হাত দিয়ে, আপনার বাঁদিকের স্তন পরীক্ষা শুরু করুন। এরকম করার উদ্দেশ্যে, আপনার স্তন পরীক্ষা করার জন্য ছোট, মৃদু অথচ দৃঢ়, বৃত্তাকার ভঙ্গী প্রয়োগ করুন। আপনার স্তনের নীচ থেকে শুরু করুন এবং উপরের দিকে যান। আপনার ডান স্তন পরীক্ষা করার জন্য একই পদ্ধতি পুনরাবৃত্তি করুন এবং আপনার ডান হাতা আপনার মাথার পিছনে রাখুন।     

বসা

শোয়া অবস্থায় পরীক্ষা শেষ করার পর, আপনি উঠে বসতে পারেন এবং আপনার বগল বা বাহুমূলগুলো পরীক্ষা করা শুরু করুন কারণ আপনার স্তন টিস্যু প্রতিটা বগল পর্যন্তও বিস্তৃত। কোনও অস্বাভাবিক বৃদ্ধি বা পিণ্ড আপনার বগলগুলিতে গভীরতর টিস্যু অনুভব করার জন্য একই বৃত্তাকার ভঙ্গী প্রয়োগ করুন। আপনি আপনার স্তনবৃন্তও মৃদুভাবে চিপতে পারেন সেগুলো থেকে কোনও ক্ষরণ হচ্ছে কিনা।

দাঁড়ানো

আপনি দুভাবে পরীক্ষা করতে পারেন; একটা, আপনার হাতগুলো আপনার কোমরে রেখে এবং অপরটি আপনার মাথার উপরে সেগুলো তুলে। যখন এটা আপনি করছেন, আয়নায় আপনার স্তনগুলোর দিকে তাকান এবং নীচের ব্যাপারগুলো পরীক্ষা করুনঃ

  • উভয় স্তনের বহির্ভাগের সীমারেখা কম বা বেশি সমান হওয়া উচিত।
  • পরীক্ষা করুন উভয় স্তনের ত্বক একরকম এবং আপনার শরীরের বাকি ত্বকের মত স্বাভাবিক কিনা। 
  • পরীক্ষা করুন স্তনগুলির কোনটায় কোনও টোল পড়া অথবা কমলার খোসার মত চেহারার উপস্থিতি আছে কিনা। যদি এটা থাকে, আপনার একজন ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা উচিত।
  • উভয় স্তনের আকার একই রকম হওয়া উচিত।
  • উভয় স্তনবৃন্তের অবস্থান প্রায় একই সমতায় থাকা উচিত।
  • দেখুন স্তনবৃন্তগুলির কোনও অন্তর্মুখী ঢাল বা সংকোচন আছে কিনা। 

স্তন পিণ্ডগুলোর নীচের এক বা একাধিক উপসর্গসমূহ আপনি অনুভব করতে পারেনঃ 

  • স্তনগুলোর কোনও একটার অন্যটার তুলনায়, হঠাৎ পরিবর্ধন।   
  • স্তনবৃন্তের চারপাশের, এবং স্তন এলাকার ত্বকের কমলালেবুর খোসার মত চেহারা।   
  • এক বা উভয় স্তনবৃন্তের অবস্থানে একটা অস্বাভাবিক বদল।
  • স্তনবৃন্তগুলো থেকে ক্ষরণ যা জলপূর্ণ, সাদাটে হলুদ, সবুজাভ, বাদামী আভাযুক্ত এবং লালচে হতে পারে। লালচে ক্ষরণগুলি প্রায়শঃ প্রকৃতিতে রক্তবৎ হয় এবং একজন ডাক্তারকে তৎক্ষণাৎ জানানো উচিত।    
  • এক বা উভয় স্তনে স্তন টিস্যুর একটা টোল অথবা একটা নতি। 
  • এক বা উভয় স্তনে আপনি ব্যথা বা ভারীভাব অনুভব করতে পারেন।
  • ওজন হ্রাস অথবা ক্ষুধা হ্রাস।
  • আপনার স্তনে একটা গোলাকার স্তুপ অথবা অসমান নরম থেকে শক্ত পিণ্ডের আকার বা অনুভূতি। 

কারণসমূহ

কোনও স্তন পিণ্ড গড়ে ওঠার কারণগুলির মধ্যে নীচেরগুলো সামিল থাকেঃ

  • সংক্রমণ
    স্তনবৃন্তগুলির মাধ্যমে অথবা ইতিমধ্যেই রক্ত সঞ্চালনে থাকা কোনও সংক্রমণ থেকে স্তন টিস্যুর সংক্রমণ কোনও পিণ্ড গড়ে ওঠার কারণ সৃষ্টি করতে পারে। বগলের কোনও সংক্রমণ এছাড়া আপনার স্তনগুলোতে সংক্রমণ ঘটাতে পারে।  
     
  • প্রদাহ
    স্তন টিস্যুর স্ফীতিও ব্যথা বা অস্বস্তি সৃষ্টি করতে পারে।
     
  • আঘাত
    স্তনগুলোতে কোনও হঠাৎ আঘাত বা জখম স্তন টিস্যুতে কোনও পিণ্ড, সংক্রমণ অথবা স্ফীতি গঠন করতে পারে। 
     
  • রেডিয়েশন (বিকিরণ)
    আপনার শরীরে কোনও অসুখের জন্য যদি আপনি রেডিওথেরাপি নিতে থাকেন, আপনার স্তন কোষগুলি রেডিয়েশনের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে স্তনে একটা অস্বাভাবিক অতিবৃদ্ধি হতে পারে।
     
  • ক্যান্সার-সৃষ্টিকারী রোগজীবাণুসমূহ
    কতগুলি রোগজীবাণু এবং ব্যাক্টেরিয়া আছে যা স্তন কোষগুলিকে বদলে দিতে পারে এবং সেগুলোর অস্বাভাবিক বৃদ্ধি ঘটাতে পারে। এগুলির অন্তর্ভুক্ত হল হিউম্যান প্যাপিলোমাভাইরাস (এইচপিভি), এপস্টাইন-বার ভাইরাস, বোভাইন লিউকেমিয়া ভাইরাস, ইত্যাদি।

ঝুঁকির বিষয়গুলি
কতগুলি বিষয় আছে যেগুলো স্তন পিণ্ড এবং স্তন ক্যান্সার গড়ে ওঠার উচ্চতর বিপদের দিকে আপনাকে ঠেলে দেয়। এগুলো হলঃ

  • লিঙ্গ
    “অ্যান ইন্টারন্যাশনাল কম্প্যারিজন অব মেল অ্যান্ড ফিমেল ব্রেস্ট ক্যান্সার ইন্সিডেন্স রেটস” অনুসারে, পুরুষদের তুলনায়  তাঁদের শরীরে এস্ট্রোজেন-এর উচ্চতর মাত্রার কারণে মহিলারা স্তন পিণ্ড গড়ে ওঠার প্রতি বেশি প্রবণ।  
     
  • স্থূলতা
    মাত্রাতিরিক্ত ওজনদার হওয়া শুধুমাত্র আপনার একটা স্তন পিণ্ড গড়ে ওঠার ঝুঁকি বাড়ায় না, উপরন্তু হার্টের অসুখগুলির উচ্চতর ঝুঁকির সঙ্গেও জড়িত থাকে। (আরও পড়ুন: স্থূলতার  জটিলতা
     
  • বয়স
    একটা সমীক্ষা, “বিনাইন ব্রেস্ট ডিজিজ হেটেরোজিনিয়েটিঃ অ্যাসোসিয়েশন উইথ হিস্টোপ্যাথোলজি, এজ, অ্যান্ড এথনিসিটি” নির্দেশ করে যে 56 বৎসর বয়সের উপরের বয়স্ক মহিলারা বয়সে তরুণ মহিলাদের তুলনায় ক্যান্সারযুক্ত এবং অ-ক্যান্সারযুক্ত পিণ্ডগুলো গড়ে ওঠার অনেক কম ঝুঁকিতে থাকেন। এটা এজন্য কারণ স্তনগুলোয় যৌন হরমোনগুলোর প্রভাব রজঃনিবৃত্তির পর (মাসিক চক্রগুলোর অবসান) কম হয়ে যায়। এছাড়া, এই বয়সের পর স্তন টিস্যু ক্ষয়প্রাপ্ত হতে শুরু করে এবং কোষ বৃদ্ধির একটা অত্যন্ত কম হার থাকে।  
     
  • স্তন পিণ্ড বা ক্যান্সারের একটা বংশগত ইতিহাস
    আপনার পিতৃ বা মাতৃ সম্পর্কীয় অথবা ঘনিষ্ঠ পরিবারের কোনও সদস্যের যদি স্তন পিণ্ড বা ক্যান্সার থেকে থাকে, আপনিও এধরণের অসুখের লক্ষণাক্রান্ত হওয়ার প্রতি প্রবণ হবেন। এই পিণ্ডগুলোরও একটা বংশগত গতিধারা আছে বলে দেখা গেছে। 
     
  • আগের স্তন বায়োপ্সি
    যদি আপনার স্তন টিস্যুর আগে কোনও বায়োপ্সি হয়ে থাকে, সম্ভাবনা থাকে যে আপনি সেই বায়োপ্সি ক্ষতযুক্ত টিস্যুর সঙ্গে সঙ্গে একটা স্তন পিণ্ডও পেতে পারেন।  
     
  • হরমোন রিপ্লেসমেন্ট থেরাপি
    “বিনাইন ব্রেস্ট ডিজিজ ইন উয়োমেন”-এর একটা পর্যালোচনা নির্দেশ করে যে মহিলারা যাঁরা রজঃনিবৃত্তির পর হরমোন রিপ্লেসমেন্ট থেরাপি নেন তাঁরা স্তন পিণ্ডগুলো গড়ে ওঠার উচ্চতর ঝুঁকিতে রয়েছেন, বিশেষ করে তাঁরা যাঁরা ঋতুচক্রের অবসানের অল্প সময়ের মধ্যে এটা শুরু করেন। 
     
  • ধূমপান এবং অ্যালকোহল
    “রিসেন্ট ইনসাইটস ইন্টু সিগারেট স্মোকিং অ্যাজ আ লাইফ স্টাইল রিস্ক ফ্যাক্টর ফর ব্রেস্ট ক্যান্সার” অনুযায়ী, ধূমপান এবং অ্যালকোহল সেইসমস্ত বিষয়ের মধ্যে পড়ে যা মহিলাদের ক্ষেত্রে যাঁরা এগুলো পরিমিত পরিমাণের চেয়ে বেশি পান করেন স্তনের অসুখগুলো এবং ক্যান্সারের বিপদ বাড়ায়।   
     
  • জিন মিউটেশন (জিন পরিবর্তন)
    BRCA1 অথবা BRCA2 জিনগুলো এমন প্রোটিন উৎপাদনের সাথে যুক্ত যেগুলি স্তন এবং ডিম্বাশয়গুলিতে টিউমারগুলি দমন করতে সাহায্য করে। এগুলো ডিএনএ মেরামত করতেও সাহায্য করে এবং সেজন্য জিনগত পদার্থের স্থিতিশীলতা বজায় রাখে। এইসমস্ত জিনগুলিতে কোনও পরিবর্তন মহিলাদের মধ্যে স্তন এবং ডিম্বাশয়গত ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়। 

স্তন পিণ্ডের রোগ লক্ষণ নির্ণয়ে তিনটি পর্যায় আছে যা সাধারণভাবে “ট্রিপল অ্যাসেসমেন্ট” হিসাবে জ্ঞাত। এই পর্যায়গুলো হল ক্লিনিক্যাল অ্যাসেসমেন্ট, ইমেজিং, এবং বায়োপ্সি।

ক্লিনিক্যাল অ্যাসেসমেন্ট (চিকিৎসাগত মূল্যায়ন)
এটা হচ্ছে রোগ লক্ষণ নির্ণয়ের প্রথম পর্যায় যাতে একজন উপযুক্ত যোগ্যতাসম্পন্ন ডাক্তার আপনাকে স্তন পিণ্ডগুলোর সাথে যুক্ত স্থিতিকাল এবং উপসর্গগুলি সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করবেন। আপনার চিকিৎসক আপনাকে অন্যান্য বিষয়গুলি সম্বন্ধে যেমন ঋতুচক্রের সূচনার বয়স, রজঃনিবৃত্তির বয়স, আপনার সন্তান সংখ্যা, আপনার বংশে কোনও সদস্য স্তন ক্যান্সার বা অন্য কোনও ক্যান্সারযুক্ত কিনা, ইত্যাদি। এর পর, আপনার ডাক্তার পিণ্ডগুলোর প্রকৃতি, আকার, এবং ব্যাপ্তি জানার জন্য আপনার স্তনগুলোর একটা বিশদ শারীরিক পরীক্ষা সম্পাদন করবেন। যদি আপনার ডাক্তার একজন পুরুষ হন, একজন মহিলা অ্যাটেন্ড্যান্ট অথবা একজন নার্স পরীক্ষার সময় সেখানে থাকবেন।   

ইমেজিং (ছবি তোলা)
ক্লিনিক্যাল পরীক্ষার পর, আপনার চিকিৎসক আপনাকে নীচের একটি অথবা কয়েকটি অনুসন্ধান প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যাওয়ার পরামর্শ আপনাকে দিতে পারেনঃ   

  • ম্যামোগ্রাফি
    এটা একটা পদ্ধতি যাতে স্তন টিস্যুর ভিতরের এবং বাইরের ছবি পাওয়ার জন্য কম-মাত্রার এক্স-রে ব্যবহার করা হয়। এটা লুকানো ক্যান্সারযুক্ত বৃদ্ধি এবং পিণ্ড চিহ্নিত করার জন্য অত্যন্ত সহায়ক। এই পদ্ধতি একটা স্ক্রিনিং পদ্ধতি হিসাবেও ব্যবহৃত হয় যাতে 30 বৎসর বয়সের উপরে থাকা মহিলারা অজানা এবং লক্ষণহীন স্তন পিণ্ডগুলোর উপস্থিতির জন্য অবেক্ষিত (ইনভেস্টিগেটেড) হন।
     
  • আল্ট্রাসাউন্ড
    এটা সাধারণতঃ সেইসমস্ত মহিলাদের ক্ষেত্রে করা হয় যাঁরা 30 বৎসরের কম বয়স্ক। এই পদ্ধতিতে, শব্দ প্রবাহ আপনার স্তন টিস্যুগুলির মধ্য দিয়ে চালানো হয় এবং ছবিগুলি একটা কম্পিউটার পর্দায় উপস্থিত হয়।
     
  • এমআরআই (ম্যাগনেটিক রেজোন্যান্স ইমেজিং)
    এমআরআই স্তন ক্যান্সার চিহ্নিত করায় অত্যন্ত সংবেদনশীল। এটা আক্রমণকারী এবং অনাক্রমণকারী উভয় ধরণের স্তন পিণ্ডগুলো চিহ্নিত করতে পারে।

বায়োপ্সি
এটা হচ্ছে তৃতীয় পর্যায় এবং স্তন পিণ্ডের ধরণ নির্ণয়ে অত্যন্ত নির্দিষ্ট এবং কার্যকর। এতে, আপনার স্তনের একটা টিস্যু বার করে নেওয়া হয় এবং আপনার স্তনগুলোতে অস্বাভাবিকতার ধরণ জানার জন্য অনুসন্ধান করা হয়। কোনও বায়োপ্সি একটা পাতলা ফাঁপা সূঁচ, বড় ফাঁপা সূঁচ বা কর্তন ব্যবহার করে করা হতে পারে।

  • ফাইন নিডল অ্যাস্পিরেশন সাইটলজি (এফএনএসি)
    এতে, একটা অত্যন্ত পাতলা ফাঁপা সূঁচ আপনার স্তনের আক্রান্ত এলাকায় কোষগুলি এবং তরল বার করার জন্য ব্যবহৃত হয় এবং সেগুলো একটা অণুবীক্ষণ (কোষগুলো পরীক্ষা করার জন্য ব্যবহৃত বড় লেন্সযুক্ত একটা দূরবীন-সদৃশ যন্ত্র ) যন্ত্রের তলায় পরীক্ষা করা হয়। 
     
  • কোর নিডল বায়োপ্সি 
    এই পদ্ধতি ফাইন নিডল বায়োপ্সির পদ্ধতির অনুরূপ। একমাত্র পার্থক্য হল এই যে এফএনএসি-তে ব্যবহৃত সূঁচের চেয়ে সামান্য বড় সূঁচ ব্যবহৃত হয়।
     
  • এক্সিশনাল বায়োপ্সি
    এই পদ্ধতিতে, একটা জীবাণু-মুক্ত ব্লেড ব্যবহার করে আপনার স্তন থেকে আক্রান্ত টিস্যুর একটা ক্ষুদ্র পরিমাণ কাটা হয়। টিস্যুটা তারপর একটা ল্যাবে প্রক্রিয়াকরণের জন্য পাঠানো হয় যেখানে একজন বিশেষজ্ঞ দ্বারা পিণ্ডের ধরণ নির্ণয় করার জন্য এটা পরীক্ষা করা হয় যা আপনার স্তনে থাকতে পারে।  

মেটাস্ট্যাসিস-এর জন্য ইমেজিং
এই পরীক্ষা করা হয় যদি ক্যান্সারের বিস্তৃতি শরীরের অন্যান্য অংশগুলিতে অথবা এর স্থানান্তরণ সন্দেহ করা হয়। একটা বুকের এক্স-রে ফুসফুসে মেটাস্ট্যাসিস নির্ণয় করতে সক্ষম। লিভার এবং পেটের সিটি স্ক্যান সহায়ক হতে পারে যদি এইসমস্ত এলাকা পর্যন্ত মেটাস্ট্যাসিস (স্থানান্তরণ) সন্দেহ করা হয়।  

ঔষধ

আপনার স্তন পিণ্ডের কারণের উপর ভিত্তি করে, আপনার চিকিৎসক আপনার অবস্থা নিরাময় করার জন্য আপনাকে ঔষধের বিধান দিতে পারেন।

  • অ্যান্টিবায়োটিকস এবং প্রদাহ-প্রতিরোধী ঔষধ
    আপনার চিকিৎসক এই ঔষধগুলোর বিধান দিতে পারেন যদি আপনার স্তন পিণ্ডের অন্তর্নিহিত কারণ আপনার স্তনগুলোতে কোনও সংক্রমণ অথবা প্রদাহ (স্ফীতি) হয়ে থাকে। 
     
  • কেমোথেরাপি
    কেমোথেরাপি হল একটা ব্যাপক পরিভাষা যার অর্থ কোনও অসুখ বা ব্যাধি ঔষধ প্রয়োগ করে চিকিৎসা করা। যাই হোক, এই শব্দটা সাধারণভাবে ঔষধ ব্যবহার করে টিউমারের কোনও চিকিৎসা নির্দেশ করার জন্য ব্যবহৃত হয়। সেজন্য, যদি আপনার স্তনগুলোতে টিউমার থাকে, এই ঔষধগুলি এটা গলিয়ে দেওয়া অথবা অস্ত্রোপচারের আগে এর আকার কমানোর জন্য ব্যবহৃত হয়।  

রেডিওথেরাপি

রেডিওথেরাপি টিউমার কোষগুলি ধ্বংস করার জন্য কোনও অস্ত্রোপচারের আগে পিণ্ড গলানো অথবা এর আকার কমানোর জন্য রেডিয়েশন (বিকিরণ) ব্যবহার করে।

অস্ত্রোপচার

যদি উপরের পদ্ধতিগুলি আপনার স্তন পিণ্ডকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে না দেয়, অথবা যখন ক্যান্সার নির্ণীত হয়েছে, আপনার স্তনগুলো থেকে টিউমার অপসারণ করার জন্য আপনাকে হয়তো কোনও অস্ত্রোপচার করাতে হতে পারে। গুরুতর ক্ষেত্রগুলিতে, সম্পূর্ণ স্তন অপসারণের পরামর্শ দেওয়া হতে পারে। 

  • লাম্পেক্টোমি
    এই পদ্ধতিতে, সার্জন আপনার স্তনের পিণ্ড অপসারণ করবেন এটাকে আরও বেশি বাড়ার থেকে এবং স্তন টিস্যুর বাকি অংশ ক্ষতিগ্রস্ত করতে বাধা দেবার জন্য। 

মাস্টেক্টমি
মাস্টেক্টমি হচ্ছে একটা পদ্ধতি যাতে আপনার স্তন আংশিকভাবে অথবা সম্পূর্ণভাবে বাদ দেওয়া হয় যখন অন্য আর কোনও পদ্ধতি আপনার অবস্থার চিকিৎসায় সহায়ক না হয়। কখনও কখনও, পিণ্ডটা আপনার বগলগুলি বা অন্তর্নিহিত পেশীগুলি পর্যন্তও ছড়াতে পারে। সেক্ষেত্রে, স্তনের সাথে এইসমস্ত টিস্যুগুলির কিছু অংশও বাদ দেওয়া হয়।

और पढ़ें ...

References

  1. Toomey A, Le JK. Abscess, Breast. [Updated 2019 Jan 11]. In: StatPearls [Internet]. Treasure Island (FL): StatPearls Publishing; 2019 Jan-.
  2. MedlinePlus Medical Encyclopedia: US National Library of Medicine; Breast self-exam
  3. Colin B Seymour, Carmel Mothersill. Breast cancer causes and treatment: where are we going wrong? Breast Cancer (Dove Med Press). 2013; 5: 111–119. PMID: 24648764
  4. Diana Ly, David Forman, Jacques Ferlay, Louise A. Brinton, Michael B. Cook. An International Comparison of Male and Female Breast Cancer Incidence Rates. Int J Cancer. 2013 Apr 15; 132(8): 1918–1926. PMID: 22987302
  5. Shannon Kispert, Jane McHowat. Recent insights into cigarette smoking as a lifestyle risk factor for breast cancer. Breast Cancer (Dove Med Press). 2017; 9: 127–132. PMID: 28331363
  6. Jingfang Cheng, Shijing Qiu, Usha Raju, Sandra R. Wolman, Maria J. Worsham. Benign Breast Disease Heterogeneity: Association with histopathology, age, and ethnicity. Breast Cancer Res Treat. 2008 Sep; 111(2): 289–296. PMID: 17917807
  7. Shannon Kispert, Jane McHowat. Recent insights into cigarette smoking as a lifestyle risk factor for breast cancer. Breast Cancer (Dove Med Press). 2017; 9: 127–132. PMID: 28331363
  8. Santen RJ. Benign Breast Disease in Women. [Updated 2018 May 25]. In: Feingold KR, Anawalt B, Boyce A, et al., editors. Endotext [Internet]. South Dartmouth (MA): MDText.com, Inc.; 2000-.
  9. National Cancer Institute [Internet]. Bethesda (MD): U.S. Department of Health and Human Services; BRCA Mutations: Cancer Risk and Genetic Testing