myUpchar प्लस+ के साथ पूरेे परिवार के हेल्थ खर्च पर भारी बचत

কর্পূর হল কর্পূর গাছের ছাল থেকে প্রাপ্ত একটা প্রাকৃতিকভাবে ঘটা রাসায়নিক যৌগ। মোমতুল্য কর্পূর বলগুলি প্রধানতঃ তার্পিন (গাছপালা দ্বারা উৎপন্ন জৈব যৌগ) দিয়ে গঠিত যা এর তীব্র গন্ধের জন্য দায়ী। প্রকৃতিতে, এই তার্পিনগুলি হচ্ছে গাছপালাগুলির মধ্যে প্রাকৃতিক প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার গুরুত্বপূর্ণ অংশ। তার্পিন বিষাক্ত যখন খাওয়া হয়, সুতরাং, এর গন্ধ তৃণভোজী প্রাণীদের দ্বারা খাওয়া থেকে কর্পূর গাছকে রক্ষা করে। কিন্তু কর্পূরের উপযোগিতা প্রচুর।    

পরম্পরাগত এবং পাশ্চাত্য ঔষধ ব্যবস্থাগুলিতে কর্পূর এর ঔষধি এবং নিরাময়কারী গুণাবলীর জন্য সুপরিচিত। এটা কোনও শরীরগত তরল অস্বাভাবিক জমা হেতু অবরুদ্ধ অবস্থা, ব্যথা, এবং প্রদাহের মত বিভিন্ন দশার জন্য একটা পরম্পরাগত প্রতিষেধক। বস্তুতঃ কিছু গবেষণা বলে যে কর্পূর পোড়া এবং ছত্রাকঘটিত সংক্রমণগুলি নিরাময়ে কার্যকর হতে পারে।   

মূলতঃ ভারত, চীন এবং জাপানের একটা দেশজ, কর্পূর বিশ্বের বেশির ভাগ ক্রান্তীয় অঞ্চলে ব্যাপকভাবে চাষ করা হয়। কৌতূহলজনকভাবে, ‘গ্লোবাল ইনভেসিভ স্পিশিজ ডেটাবেস’-এ একে একটা বিনাশকারী গাছ হিসাবে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

কর্পূর 60 ফুট উচ্চতা পর্যন্ত বেড়ে ওঠা একটা চিরহরিৎ গাছ। কর্পূর গাছ দেশীয় বনজঙ্গলগুলিকে ছাপিয়ে যেতে পারে এবং বেশ দ্রুতভাবে বিস্তৃত হয়। এর শাখাগুলি বিস্তার-প্রবণ, গাছটাকে একটা ছাতা-সদৃশ চেহারা দেয়। কর্পূর গাছে ডিম্বাকৃতি পাতা এবং ক্ষুদ্র সাদা ফুল ধরে। এর ফল আকারে গোল এবং সাধারণতঃ ময়ূরপঙ্খী থেকে কালো রঙের হয়।    

আপনি কি জানতেন?

কর্পূর শুধুমাত্র একটা গাছ নয়, এটা একটা তেল এবং একটা রাসায়নিক যৌগও। একটা রাসায়নিক যৌগ হিসাবে, ল্যাভেন্ডার, ক্যাম্ফর বেসিল এবং রোজমেরির মত গাছগুলির এসেনশিয়াল অয়েল থেকে এটা পাওয়া যেতে পারে।

ক্যাম্ফর (কর্পূর) লরেল বা ক্যাম্ফর (কর্পূর) গাছ সম্বন্ধে কিছু মৌলিক তথ্যঃ 

  • উদ্ভিদবিজ্ঞানসম্মত নাম: সিনামোমাম ক্যাম্ফোরা
  • জাতি: লরেসিয়াই
  • প্রচলিত নাম: ক্যাম্ফর (কর্পূর) লরেল, ক্যাম্ফর (কর্পূর) , ক্যাম্ফর (কর্পূর) গাছ, কপূর
  • ব্যবহৃত অংশ: পাতা, ছাল
  • দেশীয় অঞ্চল এবং ভৌগোলিক বিস্তৃতি: কর্পূর জাতি চীন, ভারত এবং জাপানের মত ক্রান্তীয় অঞ্চলগুলির দেশজ, কিন্তু এটা ইউএসএ-তেও প্রবর্তিত হয়েছে, বিশেষ করে ফ্লরিডায়।
  • কর্মশক্তি: শীতলকরণ
  1. কর্পূরের স্বাস্থ্য উপযোগিতা - Camphor health benefits in Bengali
  2. কর্পূর কিভাবে ব্যবহৃত হয় - How is camphor used in Bengali
  3. কর্পূরের মাত্রা - Camphor dosage in Bengali
  4. কর্পূরের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া - Camphor side effects in Bengali

চুলকানি, পোড়া, এবং ছত্রাকঘটিত সংক্রমণগুলির মত বেশ কিছু সংখ্যক ত্বকের রোগে কর্পূর একটা চট-জলদি প্রতিষেধক। এটা ত্বকের দ্বারা সহজেই শোষিত হয় এবং এভাবে, প্রদাহ এবং ব্যথা দূর করায় উপযোগী। চলুন কর্পূরের কয়েকটি নিরাময়কারী উপকারিতা অনুসন্ধান করা যাক। 

  • চুলকানি উপশম করে: গবেষণামূলক অনুসন্ধানে কর্পূরকে ক্ষত-ভিত্তিক প্রুরাইটিস (চুলকানি) কমাতে দেখা গেছে। এটা একটা আয়ন চ্যানেল TRP1-এর ক্রিয়া দমন করে, যা ক্রনিক চুলকানির জন্য দায়ী।
  • ত্বকের বার্ধক্য বিলম্বিত করে: কর্পূর কোলাজেন সংশ্লেষণ বাড়ায় এবং ত্বকের সূক্ষ্ণ রেখা এবং কুঞ্চন কমায় বলা হয়। এটা ত্বকে রক্ত সঞ্চালনও উন্নত করে, যা উন্নত পুষ্টি এবং আরও ভাল অক্সিজেন সরবরাহ ঘটায়, এর দ্বারা আপনার ত্বককে তরুণতর এবং সতেজ দেখায়।
  • আর্থ্রাইটিস (গ্রন্থিবাত) উপসর্গগুলি প্রশমিত করে: ঐতিহ্যগতভাবে, কর্পূর গ্রন্থিবাতগত (বা সন্ধিবাত) প্রদাহ প্রশমিত করার জন্য ব্যবহৃত হয়। এটা বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে যে কর্পূরে সক্রিয় যৌগগুলি থাকে যা আর্থ্রাইটিস বা গ্রন্থিবাতের ক্ষেত্রে ফোলা এবং ব্যথা কমায়।   
  • কাশি এবং অস্বাভাবিক তরল জমা কমায়: কাশির জন্য কিছু স্থানীয় প্রস্তুত প্রণালীতে কর্পূর একটা গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ। কর্পূর শ্বাসের সাথে গ্রহণ করা হলে শ্বাসনালী খুলে যায় বলে বিশ্বাস করা হয়।  
  • ছত্রাক-প্রতিরোধী: ল্যাব গবেষণাগুলি ইঙ্গিত দেয় যে কর্পূর হচ্ছে একটা চমৎকার ছত্রাক-প্রতিরোধী যৌগ। কর্পূরের স্থানীয় প্রয়োগ 48 সপ্তাহের মধ্যে পায়ের আঙুলের নখের ছত্রাক দূর করতে কার্যকর হিসাবে দেখা গেছে।
  • মাথার উকুন দূর করেইন ভিভো (প্রাণী-ভিত্তিক) গবেষণাগুলি ইঙ্গিত দেয় যে নারকেল তেলের সাথে মিশিয়ে কর্পূরের স্থানীয় প্রয়োগ মাথার উকুন দূর করায় এবং এর পুনরাবৃত্তি রোধ করায় সহায়ক। 
  • প্রাকৃতিক মশা বিতাড়ক: গবেষণামুলক অনুসন্ধানগুলি দেখায় যে কর্পূর এসেনশিয়াল অয়েল এবং কর্পূরের প্রাকৃতিক মশা বিতাড়ক ক্ষমতা আছে। এটা পি-মেনথেন-এর মত জৈব-সক্রিয় যৌগগুলির বিদ্যমানতার কারণে হয়।
  • যদিও কর্পূরকে মানুষের খাওয়ার পক্ষে বিষাক্ত গণ্য করা হয়, কর্পূর চূর্ণ পাচন (কড়া) কাশি এবং উচ্চ কোলেস্টেরলের মত নানাবিধ স্বাস্থ্য দশার চিকিৎসার জন্য আয়ুর্বেদে ব্যবহৃত হয়েছে। 
  • এটা বিভিন্ন ক্রিম এবং লোশনে অন্যতম প্রধান উপকরণ যা সাধারণভাবে শরীরে অস্বাভাবিক তরল জমে অবরুদ্ধ দশা, সর্দি এবং কাশি প্রশমিত করার জন্য ব্যবহৃত হয়।
  • কর্পূর তেল এবং কর্পূর নারকেল তেলের সাথে মিশিয়ে বিভিন্ন ত্বক এবং মাথার খুলির রোগে ব্যবহৃত হয়।
  • কর্পূরের এসেনশিয়াল অয়েল একটা শরীর চাঙ্গাকারী এবং একটা অ্যান্টিসেপ্টিক রূপে ব্যবহার হয়।
  • কর্পূর ট্যাবলেটগুলি সাধারণ কীটপতঙ্গ এবং মশা দূরে রাখার জন্য ব্যাপকভাবে একটা বিতাড়ক হিসাবে ব্যবহৃত হয়।
  • মানুষের খাওয়ার পক্ষে এর বিষাক্ততার কারণে, কর্পূর সাধারণতঃ খাওয়া হয়না। যাই হোক, যদি আপনি আয়ুর্বেদ অনুসরণ করেন অথবা মৌখিকভাবে কর্পূর নিতে চান, একজন আয়ুর্বেদীয় ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা সবচেয়ে ভাল।
  • ভাবপ্রকাশ নিঘণ্টু অনুসারে (একটা প্রাচীন আয়ুর্বেদীয় গ্রন্থ) , 125-375 mg কর্পূর সারাদিন ধরে অল্প মাত্রায় ভাগ করে পাকস্থলীতে গ্রহণ করা যেতে পারে। 
  • এফডিএ নির্দেশিকা অনুসারে, কর্পূর লেপের একটা 3-10% ফর্মুলেশন ব্যথা উপশম করার জন্য নিরাপদে ব্যবহার করা যযেতে পারে।
  • কর্পূর স্তন্যদানকারিণী মায়েদের মধ্যে দুধ উৎপাদন কমায় এবং এটাকে একটা অ্যাবর্টিফেশেন্ট (গর্ভপাত ঘটায়) হিসাবে দেখা গেছে। সুতরাং, যদি আপনি গর্ভবতী হন অথবা বাচ্চাকে বুকের দুধ খাওয়ান, কর্পূর থেকে দূরে থাকা সবচেয়ে ভাল।   
  • যদিও কর্পূরকে একটা উর্বরতা বর্ধক হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে, গবেষণাগুলি বলে যে কর্পূর শুক্রাণু সংখ্যা এবং সক্রিয়তায় একটা হ্রাস ঘটায়। কর্পূর ব্যবহারের আগে আপনার ডাক্তারকে জিজ্ঞাসা করা বাঞ্ছনীয়।
  • যখন খাওয়া হয় কর্পূর অত্যন্ত বিষাক্ত হয়। 2 গ্রামের মত একটা কম মাত্রাও মানুষের মধ্যে বিষাক্ততা ঘটাতে পারে। বিষাক্ততার প্রাথমিক উপসর্গগুলির মধ্যে আছে বমি বমিভাব, মাথাধরা, বমি, পাকস্থলীতে উত্তাপ। সাধারণতঃ, এই উপসর্গগুলি কর্পূর খাওয়ার 5 থেকে 10 মিনিটের মধ্যে লক্ষণ দেখানো শুরু করে। যদি চিকিৎসা না করে ফেলে রাখা হয়, এটা মুর্ছা, কোমা এবং গুরুতর ক্ষেত্রগুলিতে, মৃত্যু পর্যন্ত ঘটাতে পারে। সৌভাগ্যক্রমে, কর্পূরজনিত বিষাক্ততা প্রথম 24 ঘণ্টার মধ্যে কার্যকরভাবে নিরাময় করা যেতে পারে। অতএব, যদি কোনও উপসর্গ লক্ষ্য করা যায় আপনার ডাক্তারের সাথে আলোচনা করার জন্য আপনাকে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।   
  • কর্পূর বাচ্চাদের ক্ষেত্রে কখনও ব্যবহার করা উচিত নয় যেহেতু এটা তাদের জন্য “অনিরাপদ” হিসাবে তালিকাভুক্ত আছে।
  • দীর্ঘ-মেয়াদী কর্পূর ব্যবহার গুরুতর লিভার বিষাক্ততার সাথে জড়িত হতে পারে। 
और पढ़ें ...