গিলয় (গুলঞ্চ) বা টিনোস্পোরা হচ্ছে একটি পর্ণমোচী উদ্ভিদ যা ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে বহুলভাবে জন্মায়। প্রশমণের গুণ এবং স্বাস্থ্যকর উপাদানের জন্য আয়ুর্বেদিক এবং ঘরোয়া চিকিৎসায় এটির কদর অসামান্য। বস্তুত, স্বাস্থ্যের সার্বিক উপকারিতার ক্ষেত্রে এর কার্যকারিতার জন্য আয়ুর্বেদে এটিকে ‘‘রসায়ন’’ নামে অভিহিত করা হয়। শুনলে আপনি আগ্রহী হয়ে উঠবেন যে সংস্কৃতে এটিকে ‘‘অমৃত’’ বলা হয়েছে, যার অর্থ ‘‘অমরত্বসুধা’’। এই উদ্ভিদের অসাধারণ গুণের দিকে তাকিয়ে আমার মনে হয়, পুরাণে ‘‘দেবতারা’’ যা পান করে চিরকালীন যৌবন এবং স্বাস্থ্যের অধিকারী হতেন বলে বর্ণিত আছে, তা হয়তো ছিল এই গুলঞ্চ বা গিলয়।

গুলঞ্চ হচ্ছে একটি লতানে উদ্ভিদ, যার কাণ্ড দুর্বল এবং রসালো। কাণ্ডের রং হচ্ছে সাদা থেকে ধূসর এবং তা 1-5 সেমি পর্যন্ত মোটা হতে পারে। গুলঞ্চের পাতা দেখতে হৃদয়ের (হার্ট) আকারের এবং তাতে মেমব্রেন (ঝিল্লি) আছে। তাতে গ্রীষ্মকালে সবজেটে-হলুদ রঙের ফুল ফোটে আর গুলঞ্চের ফল সাধারণত শীতকালে দেখা যায়। গুলঞ্চের সবুজ রঙের আঁটিযুক্ত ফল (ড্রুপ) হয়ে থাকে যা পাকলে লাল বর্ণ ধারণ করে। গুলঞ্চের কাণ্ডেই অধিকাংশ নিরাময়যোগ্য গুণ আছে, তবে পাতা, ফল, এবং শিকড় বা মূলেও অল্পবিস্তর গুণ আছে।

গুলঞ্চের কিছু প্রাথমিক তথ্য:

  • বৈজ্ঞানিক নামটিনোস্পোরা কর্ডিফোলিয়া
  • পরিবার:  মেনিসপার্মেসিয়া
  • সাধারণ নামগিলয়, গুড়ুচি, গুলবেল, হার্ট-লিভড মুনসিড, টিনোস্পোরা
  • সংস্কৃত নাম :: অমৃত, তন্ত্রিকা, কুণ্ডলিনী, চক্রলক্ষ্মীণি
  • ব্যবহৃত অংশ: কাণ্ড, পাতা
  • আদিতে কোথায় উদ্ভূত এবং ভৌগৌলিক বণ্টন: আদিতে ভারতীয় উপমহাদেশে পাওয়া যেত গুলঞ্চ লতা কিন্তি চিনেও পাওয়া যায়।
  • বলকারী: উষ্ণ
  1. গুলঞ্চের স্বাস্থ্য- উপকারিতা - Giloy benefits for health in Bengali
  2. গুলঞ্চ কীভাবে ব্যবহার করা হয় - How giloy is used in Bengali
  3. গুলঞ্চ ডোজ - Giloy dosage in Bengali
  4. গুলঞ্চ ব্যবহারে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া - Giloy side effects in Bengali
গুলঞ্চ লতার উপকার, ব্যবহার, পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এবং ডোজ: ৰ ডক্তৰ

আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা শাস্ত্রে গুলঞ্চ একটি পরিচিত গুল্ম। গুলঞ্চের কাণ্ড শুধুমাত্র নিরাময়ের একটি চমৎকার এজেন্ট নয়, কিন্তু রাসায়নিকভাবে এটি আপনার শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ যাতে ঠিকভাবে এবং তাদের সম্পূর্ণ শক্তি-সহ কাজ করে তা নিশ্চিত করে। এই আয়ুর্বেদিক মহৌষধের স্বাস্থ্যের উপকারিতা একবার দেখে নেওয়া যাক।

  • ওজন কমাতে গুলঞ্চ: গুলঞ্চ হাইপোলিপিডেমিক হিসাবে কাজ করে বলে নিয়মিত সেবন করলে ওজন কমানোর ক্ষেত্রে চমৎকার কাজ দেয়। শরীরের পরিপাক প্রক্রিয়ার উন্নতি ঘটাতে সাহায্য করে এবং যক্কৃৎ রক্ষা করে।
  • জ্বরের জন্য গুলঞ্চ: গুলঞ্চ ইমিউনোমডিউলেটরি প্রক্রিয়া করে এবং তার অ্যান্টিবায়োটিক উপাদান আছে। ডেঙ্গি জ্বরের মতো জীবাণুর সংক্রমণের হাত থেকে এটি রক্ষা করে।
  • ডায়বিটিসের জন্য গুলঞ্চ:  ইনসুলিনের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সক্ষম হয় বলে ডায়বিটিসের ক্ষেত্রে এটি কার্যকরী হয়।
  • শ্বাসকষ্ট রুখতে গুলঞ্চ: দেখা গিয়েছে, দীর্ঘস্থায়ী কাশি, অ্যালার্জিক রাইনাইটিস-এর চিকিৎসায় গুলঞ্চ কার্যকরী ভূমিকা নেয় এবং হাঁপানি বা অ্যাজমার উপসর্গ কমানোর ক্ষেত্রেও এটি কাজে লাগে।
  • মহিলাদের জন্য গুলঞ্চ: রোগ প্রতিরোধী উপাদানগুলির জন্য রজঃনিবৃত্তি উত্তর (পোস্টমেনোপজাল) মহিলাদের জন্য গুলঞ্চ খুব কাজে লাগে। এর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট উপাদান অস্টিওপোরোসিস (হাড়ের ক্ষয়)  রোধ কমাতে পারে।
  • পরুরষদের জন্য  গুলঞ্চ: গুলঞ্চের ব্যবহারে বীর্যধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধির সঙ্গে পুরুষদের যৌন ক্ষমতা বা ইচ্ছা বৃদ্ধি পায়।
  • ক্যান্সারের জন্য গুলঞ্চ: কয়েকটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, গুলঞ্চের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট উপাদানের জন্য গুলঞ্চের ব্যবহার করা যেতে পারে।
  • মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য গুলঞ্চ: দুশ্চিন্তা, অবসাদ এবং অন্যান্য মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতির জন্য গুলঞ্চের ব্যবহার হয়।

গুলঞ্চ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় - Giloy boosts immunity in Bengali

প্রতিরোধ ক্ষমতার (ইমিউনোমডুলেটিং) জন্য ঘরোয়া চিরাচরিত চিকিৎসা পদ্ধতিতে গুলঞ্চের ব্যপক বাবহার হয়ে থাকে। আয়ুর্বেদ চিকিৎসকেরা মনে করেন, গুলঞ্চ হচ্ছে সর্বোত্তম প্রতিরোধ ক্ষমতাশীল ভেষজের অন্যতম। শারীরিক পরীক্ষার জন্য কোনওরকম মানদণ্ড ব্যতিরেকে 68 জন HIV আক্রান্ত রোগীদের দু’ভাগে ভাগ করা হয়েছিল। ছ’মাসের জন্য এক ভাগের রোগীদের দেওয়া হয় গুলঞ্চ অন্য দলটিকে প্ল্যাসিবো (এমন কোনও পদার্থ যার কোনও ভেষজ গুণ নেই) দেওয়া হয়। নির্ধারিত সময়ের পর দেখা যায় যাঁদের গুলঞ্চ দেওয়া হয়েছিল তাঁদের স্বাস্থ্যের উল্লেখযোগ্য উন্নতি ঘটার সঙ্গে রোগের সার্বিক উপসর্গ কমেছে। এথনোফার্মাকোলজিতে প্রকাশিত একটি প্রবন্ধে লেখা হয়েছে, গুলঞ্চ বা টিনোস্পোরায় উপস্থিত একগুচ্ছ প্রাকৃতিক বায়োকেমিক্যাল এই গুল্মের ইমিউনোমডুলেটরি (প্রতিরোধ) ক্ষমতার জন্য দায়ি। অন্যান্য গবেষণায় ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে, শরীরে ফ্যাগোসাইট (এক ধরনের প্রতিরোধী কোশ) উত্তেজিত হলে ইমিউনোমডুলেটরি প্রক্রিয়া শুরু হয়।

ডেঙ্গির জন্য গুলঞ্চ - Giloy for Dengue in Bengali

আয়ুর্বেদ চিকিৎসকদের মতে ডেঙ্গির প্রাথমিক উপসর্গ ঠেকাতে গুলঞ্চের রস উপকারী। ফলিত গবেষণার একটি আন্তর্জাতিক পত্রিকায় প্রকাশিত এক রোগিনীর কথা বলা হয়েছে যাঁকে 15 দিন দিনে দু’বার করে 40ml গুলঞ্চের রস খাওয়ানো হয়েছিল। 15 দিন পরে রোগিনীকে পরীক্ষা করে দেখা যায় তাঁর প্লেটলেট সংখ্যা বেড়েছে, জ্বর এবং র‌্যাশ কমেছে। তেমন কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া চোখে পড়েনি। সংখ্যায় কম প্লেটলেট বহনকারী  200 জন রোগীর ওপর আরও একটি সমীক্ষা করা হয়েছিল, যেখানে রোগীদের 5 দিন পেঁপে এবং গুলঞ্চ পাতা ছেঁচে তার রসের 5ml করে মিশ্রণ খাওয়ানো হয়। সমস্ত রোগীদের মধ্যে প্লেটলেট সংখ্যার উল্লেখযোগ্য উন্নতি দেখা দিয়েছিল। কাজেই, একথা নিশ্চিন্তে বলা যায় যে ডেঙ্গির প্রাথমিক চিকিৎসা গুলঞ্চ বা টিনোস্পোরার সাহায্যে করা হলে উপকার পাওয়া যায়।

ডায়বিটিসের জন্য গুলঞ্চ - Giloy for diabetes in Bengali

চিরাচরিত এবং ঘরোয়া চিকিৎসা পদ্ধতিতে রক্তে শর্করার পরিমাণ কমাতে (হাইপোগ্লাইসেমিক)বরাবর গুলঞ্চ ব্যবহার হয়ে আসছে। গুলঞ্চের ডায়বিটিস প্রতিরোধী ক্ষমতা প্রমাণে প্রাণীদের ওপর এবং পরীক্ষাগারে প্রচুর গবেষণা করা হয়েছে। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, এক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণে গুলঞ্চ বা টিনোস্পোরা যথেষ্ট কার্যকরী। আরও বলা হয়েছে যে এই গুল্মটি ইনসুলিনের ক্ষমতা বাড়িয়ে এবং শরীরে অক্সিডেটিভ চাপ কমিয়ে এর হাইপোগ্লাইসেমিক প্রভাব বিস্তার করে। এছাড়া, গ্লুকোজের বিপাকীয় প্রক্রিয়ার (গ্লুকোনিওজেনেসিস এবং গ্লুকোজেনোলাইসিস) জটিল পর্যায়ে হস্তক্ষেপ করে এবং তার ফলে সার্বিকভাবে রক্তে শর্করার মাত্রা কমে। কাউন্সিল ফর সায়েন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল রিসার্চ (CSIR) এবং ন্যাশনাল বটানিক্যাল রিসার্চ ইনস্টিটিউট ইন ইন্ডিয়া যৌথভাবে একটি পলিহার্বাল ট্যাবলেট পণ্য (একটির বেশি গুল্মের সমন্বয়ে তৈরি) বাজারজাত করছেন যার অন্যতম একটি উপাদান হচ্ছে গুলঞ্চ। CSIR জানিয়েছে, এটি একটি আয়ুর্বেদিক সংযোজন হিসাবে আনা হয়েছে, যা রক্তে শর্করার হার কম করার কাজে লাগে এবং অন্যান্য ডায়বিটিস প্রতিরোধী ওষুধের যে সব পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে এতে তা নেই। যে কোনও ভেষজ বা ঔষধি গুল্ম গ্রহণের আগে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করা জরুরি। (আরও পড়ুন: ডায়বিটিস ট্রিটমেন্ট (ডায়বিটিসের চিকিৎসা) ).

গেঁটে বাত বা আর্থারাইটিসের জন্য গুলঞ্চ - Giloy for arthritis in Bengali

প্রিক্লিনিক্যাল পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে গেঁটে বাতের প্রদাহ (ফুলে যাওয়া) এবং হাড়ের ক্ষতি কমাতে গুলঞ্চ উৎকৃষ্ট ফল দেয়। আরও বলা হয়েছে, শরীরের প্রদাহজনিত সমস্যার জন্য দায়ি কিছু সাইটোকাইনের (শরীরের প্রতিরোধী প্রক্রিয়া বা ইমিউন সিস্টেম থেকে নিঃসৃত প্রোটিন) এবং T Cell -এর (এক ধরনের অ্যান্টিবডি কোশ) ক্রিয়াকলাপ কমিয়ে ফোলা বা প্রদাহ হ্রাস করতে পারে গুলঞ্চ। এছাড়া, এটাও দেখা গিয়েছে যে গুলঞ্চ অস্টিওক্লাস্টের কার্যকলাপ হ্রাস করে যে কোশগুলি মানবশরীরে হাড়ের রিজর্পশন এবং রিমডেলিংয়ের জন্য দায়ি। তবে এই বিষয়ে এখনও শারীরিক পরীক্ষা করা হয়নি। কাজেই, যদি আপনি আর্থারাইটিসে বা গেঁটে বাতে ভুগছেন তাহলে গুলঞ্চ সেবনের পূর্বে আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলে নেবেন। (আরও পড়ুন: আর্থারাইটিস টাইপ ( গেঁটে বাতের রকমফের)).

যক্কৃতের জন্য গুলঞ্চ - Giloy for liver in Bengali

আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে গুলঞ্চকে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ হেপাটোপ্রোটেক্টিভ বা পাকস্থলীর জন্য প্রতিরোধী গুল্ম বলে গণ্য করা হয়েছে। জন্ডিসের মতো পরিস্থিতির নিরাময়ের জন্য আয়ুর্বেদ চিকিৎসকেরা গুলঞ্চের সুপারিশ করেছেন। পরীক্ষাগার এবং প্রাণীদের ওপর গুলঞ্চের ক্কাথের (পাতা, শাখা, কাণ্ড) বিভিন্ন সাম্প্রতিক পরীক্ষার পর হেপাটোপ্রোটেক্টিভ কার্যকলাপের নির্দিষ্ট নিদর্শন পাওয়া গিয়েছে। আরও দাবি করা হয়েছে যে যক্কৃত নিঃসৃত অ্যামিনোট্রানসফারেজ, অ্যালেন অ্যামিনোট্রানসফারেজ জাতীয় বিভিন্ন বায়োকেমিক্যালের মাত্রা কমানোর সঙ্গে সঙ্গে গুলঞ্চ সুপারঅক্সাইড ডিসমিউটেজ-এর মাত্রা বাড়ায়। চিকিৎসকদের মতে, এই এনজাইমগুলি সুস্থ যক্কৃত থেকে কম ডোজে নিঃসৃত হয়, কিন্তু ক্ষতিগ্রস্ত বা সমস্যাদীর্ণ যক্কৃত থেকে অনেক বেশি হারে বার হয়। যা তখন শরীরে যক্কৃত সংক্রান্ত বিষাক্ততার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। পরীক্ষাগারে গবেষণায় দেখা গিয়েছে গুলঞ্চের মধ্যে উপস্থিত টিনোস্পোরিন এবং টিনোস্পোনোন হেপাটাইটিস B এবং E প্রতিরোধে সাহায্য করে। ইন্ডিয়ান জার্নাল অফ ট্র‌্যাডিশনাল নলেজ-এ প্রকাশিত একটি সমীক্ষামূলক প্রবন্ধে লেখা হয়েছে যে গুলঞ্চের হেপাটোপ্রোটেক্টিভ কার্যকারিতা প্রমাণের জন্য শারীরিক পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। ওই সমীক্ষায় 20 জন হেপাটাইটিস আক্রান্ত রোগীকে দিনে তিনবার করে 4 টি করে গুলঞ্চ ট্যাবলেট 4 সপ্তাহ খেতে দেওয়া হয়েছিল। প্রতিটি রোগীর মধ্যে যক্কৃতের ক্ষতি এবং হেপাটাইটিসের উপসর্গ কম হওয়ার উল্লেখযোগ্য লক্ষণ দেখা গিয়েছিল। তবে, আপনি যদি যক্কৃতের কোনও অসুখে ভোগেন তাহলে সর্বদা  গুলঞ্চ গ্রহণের পূর্বে কোনও আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের কাছে পরীক্ষা করে নেওয়া প্রয়োজন। 

জ্বরের জন্য গুলঞ্চ - Giloy for fever in Bengali

দীর্ঘস্থায়ী জ্বরের চিকিৎসার জন্য চিরাচরিতভাবে গুলঞ্চ ব্যবহার হয়। বিভিন্ন প্রাণীর ওপর প্রয়োগ করে গুলঞ্চের অ্যান্টিপাইরেটিক কার্যকারিতার প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। কোনও কোনও ক্ষেত্রে ডেঙ্গির বিরুদ্ধে কার্যকারিতা বুঝতে শারীরিক পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে জ্বর উল্লেখযোগ্য ভাবে কমেছে। তবে কীভাবে এই গুল্ম কাজ করার জন্য শারীরের তাপমাত্রা কমে তার তেমন কোনও নির্দিষ্ট কারণ পাওয়া যায়নি। কাজেই গুলঞ্চের অ্যান্টিপাইরেটিক কার্যকারিতা সম্পর্কে জানতে কোনও আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের কাছে এ ব্যাপারে জেনে নেওয়া প্রয়োজন।।

অ্যান্টিবায়োটিক হিসাবে গুলঞ্চ - Giloy as an antibiotic in Bengali

পরীক্ষাগারে ইন-ভিট্রো (টেস্টটিউবের মধ্যে) পরীক্ষায় প্রমাণিত গুলঞ্চ বা টিনোস্পোরা কাণ্ডের ক্কাথ-এর মধ্যে যে ব্যাকটিরিয়া বিরোধী (অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল) পরিবর্তনশীল উপাদান আছে তা কাজ করে। সমীক্ষাতে এও দেখা গিয়েছে যে সিউডোমোনাস spp এই গুল্মের ক্ষেত্রে খুব সংবেদনশীল যেখানে ক্লেবশীলা এবং প্রোটিউস আংশিক সংবেদনশীল। প্রিক্লিনিক্যাল (শারীর পরীক্ষার আগে) সমীক্ষায় ইঙ্গিত মিলেছে এসচেরিচিয়া কলির কারণে পেরিটোনাইটিসের (পাকস্থলীর ভিতরের লাইনিংয়ে প্রদাহ) সংক্রমণের বিরুদ্ধে কাজ করার জন্য গুলঞ্চ বা টিনোস্পোরা একটি উৎকৃষ্ট অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল এজেন্ট। তবে মানব শরীরে তেমন পরীক্ষা না হওয়ার কারণে এই গুল্মের অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল উপাদান এখনও নিশ্চিত করে বলা যায়নি।

অ্যাজমার (হাঁপানি) জন্য গুলঞ্চ - Giloy for asthma in Bengali

আয়ুর্বেদে দীর্ঘস্থায়ী কাশি, অ্যাজমা (হাঁপানি) এবং অ্যাজমা-সংক্রান্ত উপসর্গের নিরাময়ের জন্য গুলঞ্চের ব্যাপক ব্যবহার আছে। প্রাণীদের ওপর সমীক্ষা চালিয়ে দেখা গিয়েছে, অ্যাজমা সম্পর্কিত হাইপারসেনসিটিভিটি বা অ্যালার্জি কমাতে গুলঞ্চের নির্যাস খুবই কার্যকরী হয়ে থাকে। ভেষজ শাস্ত্রের (ফার্মাকগনসি) ওপর প্রকাশিত একটি প্রবন্ধে লেখা হয়েছে টিনোস্পোরা বা গুলঞ্চ একটি ক্ষমতাসম্পন্ন অ্যাজমারোধী গুল্ম। তবে, অ্যাজমা রোগীদের ওপর গুলঞ্চের প্রক্রিয়া এবং কার্যকারিতা সম্পর্কে তেমন কিছু জানা যায়নি কারণ মানব শরীরে কোনও পরীক্ষা করা হয়নি। সুতরাং, গুলঞ্চের অ্যাজমারোধী গুণ সম্পর্কে বিশদে জানতে আপনার আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলুন।

অ্যালার্জিক রাইনাইটিসের জন্য গুলঞ্চ - Giloy for allergic rhinitis in Bengali

শারীরিক পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে গুলঞ্চ হচ্ছে উৎকৃষ্ট অ্যালার্জিরোধী ভেষজ, বিশেষত অ্যালার্জিক রাইনাইটিসের ক্ষেত্রে। ভারতে একটি সমীক্ষায় 75 জনকে 8 সপ্তাহ ধরে গুলঞ্চ বা প্ল্যাসিবো দেওয়া হয়েছিল। সমীক্ষার ফলাফলে জানা গিয়েছিল যাঁদের গুলঞ্চ দেওয়া হয়েছিল তাঁদের মধ্যে রাইনাইটিসের উপসর্গ উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস হয়েছিল। এছাড়া, ইয়োসেনোফিল বা নিউট্রোফিলের (রক্তে এক ধরনের শ্বেত কণিকা) সংখ্যাও উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়েছিল। সুতরাং, অ্যালার্জি রোধে গুলঞ্চের কিছু ব্যবহার আছে।

গুলঞ্চের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান - Giloy antioxidant properties in Bengali

শরীরের ফ্রি র‌্যাডিক্যালের (রিঅ্যাক্টিভ অক্সিজেন স্পিজিজ) বিরুদ্ধে প্রাথমিক নিরাপত্তা দেয় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। শরীরের বিভিন্ন বিপাকীয় কার্যকলাপের জন্য ফ্রি র‌্যাডিক্যাল গঠিত হয়। কিন্তু জীবনশৈলী এবং মানসিক চাপের জন্য শরীরের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফ্রি র‌্যাডিক্যালের মধ্যে বৈষম্য তৈরি হয়। তার ফলে যে অবস্থার সৃষ্টি হয় তাকে বলা হয় অক্সিডেটিভ স্ট্রেস। শরীরের যদি সর্বক্ষণ অক্সিডেটিভ স্ট্রেস তৈরি হয় তাহলে স্বাভাবিক কার্যপ্রণালীতে ধীরে ধীরে অবনতি দেখা দেয়। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এর ফলে উচ্চ রক্তচাপ, ডায়বিটিস জাতীয় সমস্যার সৃষ্টি হয়। অক্সিডেটিভ স্ট্রেস বা চাপের কারণে অকাল বার্ধক্য দেখা দেয়। সমীক্ষায় প্রকাশিত যে টিনোস্পোরা হচ্ছে উৎকৃষ্ট অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট।  অতিরিক্ত সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে গুলঞ্চের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট গুণের জন্য ফেনোলিক উপাদান দায়ি। গবেষকদের মতে শরীরে উপযুক্ত পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শুধু হৃদরোগ বা ডায়বিটিসের ঝুঁকি কমায় না, শরীরের সামগ্রিক কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

আলসারের জন্য গুলঞ্চ - Giloy for ulcer in Bengali

আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে অজীর্ণতা, বায়ুর প্রকোপ, এবং পেট ফাঁপার উপশমে গুলঞ্চের ব্যবহারের কথা স্বীকৃত। পরীক্ষাগারে সমস্ত পরীক্ষায় দাবি করা হয়েছে গুলঞ্চের ক্কাথ গ্যাস্ট্রিক আলসারের উপসর্গ কমাতে কার্যকরী ভুমিকা নেয় এবং সেই সঙ্গে পাকস্থলীতে pH এবং অম্লতা কমায়। কিন্তু মানব শরীরে পরীক্ষা না হওয়ায় আলসার রোধের চিকিৎসায় এই ভেষজের গুণাগুণ নিশ্চিত করা কঠিন। যে কোনও প্রকারেই গুলঞ্চ সেবন করা হোক, তা যেন চিকিৎসকের পরামর্শ মতো করা হয়।

গুলঞ্চ যৌন ইচ্ছা (লিবিডো) বাড়ায় - Giloy boosts libido in Bengali

ইন ভিভো (vivo) সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে গুলঞ্চ হচ্ছে একটি উৎকৃষ্ট যৌন ক্ষমতা বৃদ্ধিকারী ভেষজ। প্রাণীদের ওপর প্রয়োগ করে সঙ্গমের ক্ষমতা, যৌন ইচ্ছার পরিবর্তন এবং বীর্যপাতের ক্ষমতার উন্নতি দেখা গিয়েছে। তবে, মানব শরীরে যৌন সমীক্ষার কাজ এখনও চলছে। 

ত্বকের ক্ষতের জন্য গুলঞ্চ - Giloy for skin wounds in Bengali

বিভীন্ন প্রাণীর ওপর একাধিক সমীক্ষা চালিয়ে দেখা গিয়েছে, ক্ষত নিরাময়ের জন্য টিনোস্পোরা বা গুলঞ্চ উৎকৃষ্ট কাজ দেয়। আরও বলা হয়েছে, গুলঞ্চের ব্যবহারে শুধুমাত্র ক্ষত নিরাময় হয় না কিন্তু জখম এলাকায় সংশ্লিষ্ট তন্তু বা টিস্যু পুনর্গঠনে কার্যকরী ভূমিকা নেয়। দুর্ভাগ্যবশত, এই ভেষজের নিরাময়ের গুণাগুণ পরীক্ষার জন্য কোনও মানবশরীর এখনও পাওয়া যায়নি।

কোলেস্টেরলের জন্য গুলঞ্চ - Giloy for cholesterol in Bengali

প্রিক্লিনিক্যাল সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, নিয়মিত কার্যকরীভাবে গুলঞ্চ ব্যবহার করলে শরীরে স্বাস্থ্যকর লিপিড প্রোফাইল বজায় থাকে। দেখা গিয়েছে, গুলঞ্চের ব্যবহারে উল্লেখযোগ্যভাবে লো-ডেনসিটি স্নেহ পদার্থ (খারাপ কোলেস্টেরল) এবং মুক্ত ফ্যাটি অ্যাসিডের হার কমে। তবে, মানব শরীরে পরীক্ষা না হওয়ায় কোলেস্টেরল কমাতে গুলঞ্চ গ্রহণ করার আগে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া শ্রেয়।

মানসিক চাপ এবং অবসাদ কমাতে গুলঞ্চ - Giloy for anxiety and depression in Bengali

ভারতে একটি সমীক্ষায় সুস্পষ্ট প্রমাণ মিলেছে যে, মানসিক অসুস্থতায় আক্রান্তদের মানসিক চাপ এবং অবসাদ কমাতে গুলঞ্চের ব্যাপক ক্ষমতা রয়েছে। ইন ভিভো পরীক্ষায় ইঙ্গিত মিলেছে অবসাদ প্রতিরোধী যে কোনও ওষুধের মতো গুলঞ্চ একইরকম কার্যকরী। তবে এখনও মানব শরীরে পরীক্ষা হয়নি। আয়ুর্বেদ চিকিৎসকদের মতে, স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধির ক্ষেত্রে সর্বোত্তম ভেষজের মধ্যে টিনোস্পোরা অন্যতম।

মেনোপজে গুলঞ্চ - Giloy for menopause in Bengali

মহিলাদের মেনোপজ হওয়ার অর্থ প্রজননকাল শেষ হওয়া, কিন্তু এর সঙ্গে আসে কিছু অস্বস্তিকর অথচ স্বাভাবিক উপসর্গ। মনে করা হয়, প্রতিরোধ ক্ষমতার সঙ্গে এর কার্যকারণ সম্পর্ক আছে। সমীক্ষা বলছে, রজোনিবৃত্তি উত্তর (মেনোপজের পর) মহিলাদের মধ্যে সংক্রমণের হাত থেকে সুরক্ষিত রাখতে প্রয়োজনীয় অ্যান্টিবডি এবং অন্যান্য সংশ্লিষ্ট কোশ উল্লেখযোগ্যভাবে কম হওয়ার প্রবণতা দেখা যায়। ফলত, মহিলারা জীবনের পরবর্তী অধ্যায়ে অপেক্ষাকৃতভাবে বেশি অসুস্থতা আর সংক্রমণের শিকার হন। সৌভাগ্যবশত মেনোপজ হয়ে যাওয়া মহিলাদের ক্ষেত্রে গুলঞ্চ উৎকৃষ্ট প্রতিরোধী শক্তিবর্ধক হিসাবে কাজ করে। 200 রজোনিবৃত্তি উত্তর মহিলাদের ওপর শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছিল, যার মধ্যে 100 মহিলাকে দেওয়া হয় গুকঞ্চের তরল ক্কাথ এবং অন্য 100 জন মহিলাকে দেওয়া হয় প্ল্যাসিবো। ছ’মাস ধরে শরীরের বিভিন্ন পরিসংখ্যান এবং প্রতিরোধী কোশের পরিবর্তন লক্ষ্য করা হয়। এই সমীক্ষার শেষে দেখা যায়, যে সব মহিলাদের গুলঞ্চের তরল ক্কাথ দেওয়া হয়েছিল তাঁদের প্রতিরোধী ক্ষমতা প্ল্যাসিবো যাঁদের দেওয়া হয়েছিল তাঁদের চেয়ে অনেক বেশি কার্যকরী। সুতরাং, প্রতিরোধী সিস্টেমে মেনোপজের দরুন পরিবর্তনের ক্ষেত্রে গুলঞ্চের অবশ্যই কার্যক্ষমতা রয়েছে।

ক্যান্সার প্রতিরোধে গুলঞ্চ - Giloy anticancer properties in Bengali

ব্রেস্ট ক্যান্সার, ত্বকের ক্যান্সার, এবং ব্রেন ক্যান্সার-সহ বিভিন্ন ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীর ওপর প্রয়োগ করে গুলঞ্চের ক্যান্সার প্রতিরোধী গুণের পরীক্ষা করা হয়েছে। সমস্ত ইন ভিভো পরীক্ষায় দাবি করা হয়েছে গুলঞ্চের ক্কাথ ক্যান্সার প্রতিরোধী এজেন্ট হিসাবে ভাল কাজ করে। এও বলা হয়েছে যে টিনোস্পোরায় উপস্থিত পামাটাইন অ্যালক্যালয়েড এর ক্যান্সার প্রতিরোধী গুণাবলীর জন্য দায়ি। তবে, মানব শরীরে পরীক্ষা না হওয়ায় এই ভেষজের ক্যান্সার প্রতিরোধী গুনাবলী সম্পর্কে বিশদে জানতে আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া শ্রেয়।

ওজন কমাতে গুলঞ্চ - Giloy for weight loss in Bengali

ওজন কমাতে চমৎকারিত্ব দেখানোর কারণে আয়ুর্বেদ চিকিৎসা শাস্ত্রে বিপ্লব এনে দিয়েছে গুলঞ্চ। যদি আপনি চিরায়ত বা সার্বিক চিকিৎসায় আগ্রহী হন তাহলে আপনি নিশ্চয় ওজন হ্রাসের সঙ্গে গুলঞ্চের উপকারিতার সম্পর্ক জানেন। এ যাবৎ ওজন কমানোর ক্ষেত্রে গুলঞ্চের উপকারিতা বিষয়ে কোনও নির্দিষ্ট সমীক্ষা চালানো হয়নি। কিন্তু সমীক্ষায় জানা গিয়েছে এই ভেষজটি উৎকৃষ্ট হাইপোলিপিডেমিক এবং হেপাটোপ্রটেক্টিভ। নিয়মিত গুলঞ্চ সেবন করলে শুধুমাত্র আপনার শরীরের ক্ষতিকর স্নেহ পদার্থ হ্রাস হয় না, আপনার যক্কৃৎ ভাল থাকে যাতে খাদ্য পরিপাক প্রক্রিয়া সুচারু হয়। গুলঞ্চের প্রকৃত ডোজ জানতে হলে সর্বদা আপনার আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া শ্রেয়। (আরও পড়ুন: ওবেসিটি ট্রিটমেন্ট (স্থূলতার চিকিৎসা) ).

গুলঞ্চ গাছের কাণ্ড এবং পাতা থেকে ক্কাথ (কাধা) বার করে তা খাওয়া যেতে পারে তবে পাওডার আকারে বা গুঁড়ো করে গ্রহণের চলই বেশি। আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের পরামর্শ মতো গুলঞ্চের অন্য পণ্য যেমন ট্যাবলেট, ক্যাপসুল, এবং গুলঞ্চের রস পান করা যেতে পারে। যদি আপনার এই গুল্মের স্বাদ অপছন্দ হয় তাহলে আপনি ভেষজ (হার্বাল) চা  হিসাবেও পান করতে পারেন।

আয়ুর্বেদ চিকিৎসকদের মতে, পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার দুশ্চিন্তা ত্যাগ করে 1-2 g গুলঞ্চের কাণ্ড বা পাতার গুঁড়ো এবং 5 ml পর্যন্ত গুলঞ্চ কাণ্ড বা পাতার রস গ্রহণ করা যেতে পারে। তবে, অতিরিক্ত সংযোজিত খাদ্য হিসাবে গ্রহণ করার আগে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া শ্রেয়।

  • গুলঞ্চ হচ্ছে একটি উৎকৃষ্ট হাইপোগ্লাইসেমিক এজেন্ট (রক্তে শর্করা কমায়), কাজেই যদি এমন হয় যে আপনি ডায়বিটিসে আক্রান্ত হয়ে ওষুধ খাচ্ছেন, তাহলে যে কোনও প্রকারেই গুলঞ্চ সেবন করার আগে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নিন।
  • অন্তঃসত্ত্বা থাকাকালীন বা সন্তানকে মাতৃদুগ্ধ পান করানোকালীন সময়ে গুলঞ্চের সম্ভাব্য উপকারিতা কী, সে সম্পর্কে কোনও প্রমাণ পাওয়া যায় না। কাজেই অন্তঃসত্ত্বা বা মাতৃদুগ্ধ পান করানোকালীন সময়ে কোনও মহিলা গুলঞ্চ সেবন করতে ইচ্ছুক হলে আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া জরুরি।
  • টিনোস্পোরা একটি উৎকৃষ্ট ইমিউনোমডুলেটরি অর্থাৎ যা আপনার প্রতিরোধ ক্ষমতাকে উজ্জীবিত করে যাতে আপনি আরও সক্রিয়ভাবে কাজ করেতে পারেন। সুতরাং আপনি যদি কোনও অটোইমিউন রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকেন তাহলে গুলঞ্চ সেবনের আগে আপনার চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া শ্রেয়।
Dr. Anil Sharma

Dr. Anil Sharma

Ayurveda
8 Years of Experience

Dr. Prerna Choudhary

Dr. Prerna Choudhary

Ayurveda
6 Years of Experience

Neelam Choudhary

Neelam Choudhary

Ayurveda
12 Years of Experience

Dr. pawan kumar

Dr. pawan kumar

Ayurveda
17 Years of Experience


उत्पाद या दवाइयाँ जिनमें Giloy है

তথ্যসূত্র

  1. M.V. Kalikar et al. Immunomodulatory effect of Tinospora cordifolia extract in human immuno-deficiency virus positive patients. Indian J Pharmacol. 2008 Jun; 40(3): 107–110. PMID: 20040936
  2. Sharma U, Bala M, Kumar N, Singh B, Munshi RK, Bhalerao S. Immunomodulatory active compounds from Tinospora cordifolia. J Ethnopharmacol. 2012 Jun 14;141(3):918-26. PMID: 22472109
  3. Soham Saha, Shyamasree Ghosh. Tinospora cordifolia: One plant, many roles. Anc Sci Life. 2012 Apr-Jun; 31(4): 151–159. PMID: 23661861
  4. Sannegowda KM, Venkatesha SH, Moudgil KD. Tinospora cordifolia inhibits autoimmune arthritis by regulating key immune mediators of inflammation and bone damage. Int J Immunopathol Pharmacol. 2015 Dec;28(4):521-31. PMID: 26467057
  5. V. Sharma, D. Pandey. Protective Role of Tinospora cordifolia against Lead-induced Hepatotoxicity. Toxicol Int. 2010 Jan-Jun; 17(1): 12–17. PMID: 21042467
  6. B. T. Kavitha, S. D. Shruthi, S. Padmalatha Rai, Y. L. Ramachandra1. Phytochemical analysis and hepatoprotective properties of Tinospora cordifolia against carbon tetrachloride-induced hepatic damage in rats. J Basic Clin Pharm. June 2011-August 2011; 2(3): 139–142. PMID: 24826014
  7. Hussain L, Akash MS, Ain NU, Rehman K, Ibrahim M. The Analgesic, Anti-Inflammatory and Anti-Pyretic Activities of Tinospora cordifolia. Adv Clin Exp Med. 2015 Nov-Dec;24(6):957-64. PMID: 26771966
  8. B. K. Ashok, B. Ravishankar, P. K. Prajapati, Savitha D. Bhat. Antipyretic activity of Guduchi Ghrita formulations in albino rats. Ayu. 2010 Jul-Sep; 31(3): 367–370. PMID: 22131741
  9. Thatte UM, Kulkarni MR, Dahanukar SA. Immunotherapeutic modification of Escherichia coli peritonitis and bacteremia by Tinospora cordifolia. J Postgrad Med. 1992 Jan-Mar;38(1):13-5. PMID: 1512717
  10. Tiwari M, Dwivedi UN, Kakkar P. Tinospora cordifolia extract modulates COX-2, iNOS, ICAM-1, pro-inflammatory cytokines and redox status in murine model of asthma. J Ethnopharmacol. 2014 Apr 28;153(2):326-37. PMID: 24556222
  11. Badar VA et al. Efficacy of Tinospora cordifolia in allergic rhinitis. J Ethnopharmacol. 2005 Jan 15;96(3):445-9. Epub 2004 Nov 23. PMID: 15619563
  12. Mohanjit Kaur, Amarjeet Singh, Bimlesh Kumar. Comparative antidiarrheal and antiulcer effect of the aqueous and ethanolic stem bark extracts of Tinospora cordifolia in rats. J Adv Pharm Technol Res. 2014 Jul-Sep; 5(3): 122–128. PMID: 25126533
  13. Stanely Mainzen Prince P, Menon VP, Gunasekaran G. Hypolipidaemic action of Tinospora cordifolia roots in alloxan diabetic rats. J Ethnopharmacol. 1999 Jan;64(1):53-7. PMID: 10075122
  14. Gameiro CM, Romão F, Castelo-Branco C. Menopause and aging: changes in the immune system--a review. Maturitas. 2010 Dec;67(4):316-20. PMID: 20813470
  15. Singh N, Singh SM, Shrivastava P. Effect of Tinospora cordifolia on the antitumor activity of tumor-associated macrophages-derived dendritic cells. Immunopharmacol Immunotoxicol. 2005;27(1):1-14. PMID: 15803856
ऐप पर पढ़ें