যখন আপনি আপনার শরীরে বিশেষতঃ আপনার মুখ এবং হাতে কালো দাগ লক্ষ্য করেন তখন একটা নিখুঁত ত্বক একটা স্বপ্নের মত লাগে যা মনে হয় ধরাছোঁয়ার বাইরে। আপনার শরীরের একটা অথবা সমস্ত অংশ জুড়ে বহুবিধ কালো দাগের উপস্থিতি কালো দাগ বা অতিশয় কালো দাগ হিসাবে পরিচিত। এটা লিঙ্গ, বয়স, এবং স্ত্রী-পুরুষ নির্বিশেষে যেকোন ব্যক্তির ঘটতে পারে।

কালো দাগের সর্বাধিক পরিচিত কারণ হল দীর্ঘক্ষণ রোদের মধ্যে থাকা। যাই হোক, এছাড়াও অন্য বিভিন্ন কারণ আছে যা আপনার শরীরে কালো দাগ সৃষ্টি করতে পারে, যেমন হরমোনগত পরিবর্তন, গর্ভাবস্থা, অ্যান্টিবায়োটিকসমূহ (টেট্রাসাইক্লিন), লোম তোলা, অ্যালার্জি, জন্মনিরোধক বড়ি, বংশগত ত্রুটি, ভিটামিনের অভাব (ভিটামিন B12 এবং ফোলিক অ্যাসিড), ত্বকের প্রদাহ, রাসায়নিক অথবা শারীরিক আঘাত, ইত্যাদি।

কালো দাগের জন্য প্রচুর ঘরোয়া টোটকা আছে যেগুলো আপনি বাড়িতে চেষ্টা করতে পারেন, যাই হোক, আপনার ত্বক নিয়ে যেকোন পরীক্ষা-নিরীক্ষা এড়ানো উচিত বিশেষ করে যখন আপনার অবস্থা গুরুতর। যদিও গুরুতর অন্তর্নিহিত চিকিৎসাগত অবস্থাগুলি দূর করার জন্য আপনাকে সর্বদা একজন ডাক্তার দেখানোর পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে, এখানে কিছু ব্যবস্থা দেওয়া হল যা আপনি বাড়িতে বসে কালো দাগ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য চেষ্টা করতে পারেন। যাই হোক, নীচে উল্লিখিত সবকটা উপকরণ হচ্ছে প্রাকৃতিক এবং এগুলো আপনার দৈনন্দিন নিয়মিত ত্বক চর্চার একটা অংশ হিসাবে ব্যবহার করা যেতে পারে, আপনার ত্বকের ধরণে প্রতিষেধকটি খাপ খাচ্ছে কিনা দেখার জন্য আপনার হাতের সামনের দিকে (কনুই থেকে কবজির মধ্যে) একটা প্যাচ টেস্ট করে দেখা সর্বদা ভাল। আমরা আপনাকে পরামর্শ দিচ্ছি এমন কোনও প্রতিষেধক ব্যবহার না করতে যা প্যাচ টেস্ট-এর সময় লালচেভাব, চুলকানি বা জ্বলনের সংবেদন সৃষ্টি করে কারণ এটা দেখায় যে প্রতিষেধকে ব্যবহৃত উপকরণগুলির প্রতি আপনার ত্বক সংবেদনশীল।    

  1. কালো দাগের জন্য ঘরোয়া প্রতিকার - Home remedies for pigmentation in Bengali
  2. দাগের জন্য ফলের লেপ - Fruit masks for pigmentation in Bengali
  3. কালো দাগের জন্য ভেষজ লেপ - Herbal masks for pigmentation in Bengali
  4. কালো দাগের জন্য খাবার - Foods to eat for pigmentation in Bengali
  5. কালো দাগ কিভাবে দূর করা যায়ঃ পরামর্শ - How to remove pigmentation: tips in Bengali
মুখের কালো দাগ কমানোর উপায় ৰ ডক্তৰ
  • কাঁচা আলু

কাঁচা আলুগুলিতে একটা এনজাইম ক্যাটেকোলেস আছে যা আপনার ত্বকে মেলানিন উৎপাদন কমায়। সেগুলোতে ভিটামিন সিও থাকে যার উৎকৃষ্ট অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট গুণগুলো রয়েছে।

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

আপনি একটা আলু টুকরো করতে পারেন, এতে খানিকটা জল ছেটান এবং সংক্রামিত ত্বক এটা দিয়ে বৃত্তাকার ভঙ্গীতে ঘষুন। দিনে 2-3 বার এটা চার সপ্তাহ ধরে করা হলে আপনার কালো দাগযুক্ত ত্বক হালকা হবে।  

  • অ্যাপল সাইডার ভিনিগার

অরগ্যানিক অ্যাসিড হচ্ছে সেই অ্যাসিড যেগুলো জীবন্ত প্রাণী বিশেষ করে উদ্ভিজ্জ থেকে বার করা হয়। ত্বকের সমস্যাগুলির জন্য অরগ্যানিক অ্যাসিডের ব্যবহারের উপর একটা পর্যালোচনা বলে যে ম্যালেয়িক অ্যাসিড, সিট্রিক অ্যাসিড, ওলেয়িক অ্যাসিড, ইত্যাদির মত অরগ্যানিক অ্যাসিডগুলো ত্বকের কালো দাগ কমানোয় সহায়ক। অ্যাপল সাইডার ভিনিগার হল এই ধরণের একটা দ্রব্য যা ত্বকের কালো দাগ দূর করায় অত্যন্ত কার্যকর।

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

এক কাপ অ্যাপল সাইডার ভিনিগার সমান পরিমাণ জলের সাথে মেশান এবং কালো দাগযুক্ত ত্বক এটা দিয়ে ধোন। 10-15 মিনিট এটা রেখে দিন এবং ঈষদুষ্ণ জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। চার সপ্তাহ ধরে এটা দিনে দুবার করুন।

  • লাল পেঁয়াজ

লাল রঙের পেঁয়াজে বিদ্যমান ত্বক-ফর্সা করার মাধ্যমগুলির উপর একটা সমীক্ষা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে যে এটার টাইরোসিনেস এনজাইম দমন করার এবং মেলানিন উৎপাদনে বাধা দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে। এভাবে এটা কালো দাগ কমাতে সাহায্য করে।

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

আপনি একটা পেঁয়াজ টুকরো করতে পারেন এবং সেটা কালো দাগযুক্ত স্থানে ঘষতে পারেন অথবা পেঁয়াজটা পিষে এর রস নিংড়ে বার করুন। এই রস কালো দাগযুক্ত ত্বকে রোজ একবার লাগান এবং সেটা 10 মিনিট ধরে রেখে দিন। ঈষদুষ্ণ জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটা করতে থাকুন যতদিন পর্যন্ত না আপনি পরিবর্তনগুলি দেখতে পান। পেঁয়াজ ব্যবহার করার পর আপনার হাতগুলো ধোয়া নিশ্চিত করুন কারণ আপনি ঘটনাক্রমে আপনার চোখগুলোর ক্ষতি করতে পারেন।    

  • অ্যামন্ড

ভিটামিন ই এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টগুলির একটা সমৃদ্ধ উৎস হওয়ার জন্য অ্যামন্ড বিখ্যাত যেগুলি আমাদের ত্বকে জাদুর মত কাজ করে। ত্বকের সমস্যাগুলির চিকিৎসায় ব্যবহৃত এগুলো হল প্রাচীনতম পদ্ধতিগুলির অন্যতম। স্বাস্থ্যের উপর অ্যামন্ডের প্রভাবগুলির বিষয়ে ভিত্তি করে একটা নিবন্ধ বলে যে এগুলোতে অনেকগুলি গুণ থাকে যা পোড়া ত্বক নতুন করে উজ্জীবিত করে এবং সেই সাথে ক্ষতচিহ্নও প্রশমিত করে।       

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

আপনি 5-6টা অ্যামন্ড সারা রাত ভিজিয়ে রাখতে পারেন এবং সকালে সেগুলোর খোসা ছাড়ান। একটা মুষল এবং হামানদিস্তার সাহায্যে, সেগুলোকে মিহি করে পিষুন এবং সামান্য পরিমাণ দুধ মেশান যতক্ষণ পর্যন্ত না আপনি একটা লেপের মত ঘন মিশ্রণ পাচ্ছেন। এই লেপ পরিস্কার হাতে নিন এবং সংক্রামিত ত্বকে এটা লাগান এবং 15 মিনিট ধরে এটা রাখুন। পরের 3-4 সপ্তাহ ধরে এটা করুন।

  • লাল মসুরডাল

লাল মসুরডালেরও সাদা করার গুণ (ব্লিচিং) আছে এবং এগুলো আপনার কালো দাগযুক্ত ত্বক হালকা (ফর্সা) করায় কার্যকর। 

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

সারা রাত একটা পাত্র ভর্তি লাল মসুরডাল ভেজান। সকালে, আপনি সেগুলো পিষে একটা লেপ তৈরি করুন এবং দুই চা-চামচ দুধ, আধ চা-চামচ মধু, এবং এক চিমটে হলুদ মেশান। এই লেপটা আপনার মুখে মাখিয়ে রাখুন এবং এটা ধোয়ার আগে আধ ঘণ্টা ধরে এটা রেখে দিন। দৃশ্যমান ফলাফল দেখার জন্য এই পদ্ধতি এক মাস ধরে ব্যবহার করুন।   

  • ছাঁচ (দই)

“ত্বকের উপর গাঁজানো দুগ্ধজাত দ্রব্যের প্রভাব”-এর উপর একটা সমীক্ষা যা 2014 সালে চালানো হয়েছিল, নির্দেশ করেছিল যে দই খাওয়াতে স্বাস্থ্য উপযোগিতা আছে এবং যখন ত্বকে এটা লাগানো হয় তখনও উপকারী। সেজন্য, এই লেপ আপনার ত্বককে বিভিন্ন উপায়ে উপকার করবে। দই ত্বকের শুকনো ভাব কমায় এবং হালকা করে এবং লেবুর ব্লিচিং এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট গুণগুলো আছে যা কালো দাগগুলো হালকা করায় সাহায্য করে।   

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

আপনি দুই চা-চামচ চানা বা ছোলার আটা, এক চা-চামচ ছাঁচ বা দই, আধ চা-চামচ লেবুর রস এবং এক চিমটে হলুদ নিতে পারেন। ভাল করে লেপটা মেশান এবং আপনার মুখে এটা 20 মিনিট ধরে লাগিয়ে রাখুন। সামান্য উষ্ণ জল দিয়ে আপনার মুখ ধুয়ে ফেলুন। চার সপ্তাহ ধরে এই লেপ ব্যবহার করুন।

  • গ্রীন টি

“প্রোটেক্টিভ মেকানিজমস অব গ্রীন টি পলিফিনলস ইন স্কিনস” বিষয়ে অক্সিডেটিভ স্টাডি অ্যান্ড সেলুলার লংজেভিটি-র একটা জার্নাল বলে যে গ্রীন টি-এর প্রদাহ-প্রতিরোধী এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট গুণগুলি এর মধ্যে ফ্লেবোনয়েডস উপস্থিত থাকার কারণে রয়েছে। এই ক্যাটেচিনগুলি টাইরোসিন এনজাইম নিবারণ করে এবং মেলানিন গঠনে বাধা দেয়।  

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

এক কাপ জল ফোটান এবং একটা গ্রীন টি ব্যাগ এর মধ্যে দিন। আপনি এর জন্য গ্রীন টি পাতাও ব্যবহার করতে পারেন। চা-টা 1-2 মিনিট ধরে ফোটানোর পর টি ব্যাগটা সরিয়ে ফেলুন বা পাতাগুলো ছাঁকুন। রোজ গ্রীন টি পান করুন, ব্যবহৃত টি ব্যাগ আপনার ত্বকে সংক্রামিত স্থানে লেপন করুন এক মাস। জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। 

  • সয়াবিন

কালো দাগমুক্তির উপরে সয়াবিনের দুধ এবং সয়াবিন নির্যাসের প্রভাবের উপর একটা সমীক্ষা ইঙ্গিত দিয়েছিল যে এই দ্রব্যগুলি খাওয়া অথবা সংক্রামিত স্থানে সয়াবিন নির্যাস লাগানো কালো দাগের একটা বিকল্প প্রাকৃতিক নিরাময়।

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

প্রতিদিন এক গ্লাস সয়াবিনের দুধ পান করুন অথবা ত্বকের যেখানে কালো দাগ হয়েছে সেখানে প্রতিদিন সয়াবিন নির্যাস লাগান। সয়াবিন নির্যাস সাধারণতঃ বাজারে ওষুধের দোকান, প্রসাধনী দোকান, এবং অনলাইন শপিং ওয়েবসাইটগুলিতে পাওয়া যায়। নির্মাতাদের দ্বারা যেমন নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সেভাবে দ্রব্যটি ব্যবহার করুন। ব্যবহার, প্রয়োগের পদ্ধতি এবং কতক্ষণ এটা ব্যবহার করা উচিত সেই স্থিতিকালের নির্দেশের বিষয়ে তথ্য সাধারণতঃ দ্রব্যটির সঙ্গেই দেওয়া থাকে।  

  • লেবু

মধু এবং লেবুর বিষয়ে কিছু পর্যালোচনামূলক নিবন্ধ, উদাহরণস্বরূপ, “ট্র্যাডিশনাল অ্যান্ড মডার্ন ইউজেস অব ন্যাচারাল হানি ইন হিউম্যান ডিজিজেজ”, এবং “সিট্রাস ফ্রুটস অ্যাজ আ ট্রেজার ট্রোভ অব অ্যাক্টিভ ন্যাচারাল মেটাবোলাইটস দ্যাট পোটেনশিয়ালি প্রোভাইড বেনিফিটস ফর হিউম্যান হেলথ” সেগুলোর ত্বকের উপকারিতাগুলির বিষয়ে একটা সূত্র দেয়। এইসমস্ত পর্যালোচনাগুলো দেখিয়েছে যে লেবু এবং মধু উভয়ের অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট, ত্বকের মৃত কোষ তুলে সেটার চেহারা সুন্দর করা, মেলানোজেনেসিস-প্রতিরোধী (মেলানিন গঠনে বাধাদান) এবং প্রদাহ-প্রতিরোধী গুণগুলো রয়েছে। এগুলো কালো দাগ থেকে মুক্ত করতে সাহায্য করে, প্রদাহ কমায়, এবং আপনার ত্বক স্বাস্থ্যকর, উজ্জ্বল, এবং চকচকে করে তোলে।   

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

মধু এবং লেবুর রসের প্রতিটির এক চা-চামচ করে ব্যবহার করতে পারেন, সেগুলোকে ভাল করে মেশান, এবং এক টুকরো তুলো এর সাথে রাখুন। এর পরে, সংক্রামিত এলাকা এই তুলো দিয়ে হাতের আলতো ছোঁয়ায় বৃত্তাকার ভঙ্গীতে মালিশ করুন এবং 15-20 মিনিট এটা এভাবেই রেখে দিন। 3-4 সপ্তাহ সময় ধরে আপনি এটা দিনে দুবার করতে পারেন। আপনি এটা দৈনন্দিন ভিত্তিতেও ব্যবহার করতে পারেন কারণ এর উপকরণগুলি হচ্ছে প্রাকৃতিক।

  • শসা

ভিটামিন এ এবং সি, এবং ক্যারোটিন-এর (উদ্ভিজ্জে থাকা কমলা এবং লাল রঙের পদার্থ) উপস্থিতির কারণে শসার অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট গুণগুলো আছে। শসায় বিদ্যমান জিয়াজ্যানথিন এবং লুটিন ত্বকের লোমকূপের ছিদ্রগুলি সঙ্কুচিত করতে, ত্বক হালকা করতে এবং ত্বকের মৃত কোষগুলো দূর করতে সাহায্য করতে।

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

টাটকা শসার রস নিন এবং সেটা ত্বকের সংক্রামিত স্থানে লাগান। আধ ঘন্টার মত এটা রেখে দিন, ধুয়ে ফেলুন এবং ত্বক শুকিয়ে নিন। যতক্ষণ পর্যন্ত সংক্রামিত ত্বকে পরিবর্তনগুলি স্পষ্ট না হয় এটা রোজ একবার করে করুন। 

  • টমেটো

লাইকোপিন-এর উপস্থিতির কারণে টমেটো এর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট গুণগুলোর জন্য বিদিত। লাইকোপিন আপনার ত্বকের কালো দাগ কমাতে সাহায্য করে যা রোদের তাপের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

আপনি টমেটোগুলো মিশ্রণ করতে পারেন অথবা টমেটোর মসৃণ মণ্ড (পিউরি) বার করে এর সাথে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল মেশাতে পারেন। এই লেপ কালো দাগযুক্ত ত্বকে লাগান। আপনি এটা 15-20 মিনিট রেখে দিন এবং সামান্য উষ্ণ জল দিয়ে এটা ধুয়ে ফেলুন। 2-3 সপ্তাহে আপনি পরিবর্তনগুলি দেখা শুরু করবেন।   

  • অ্যাভোকাডো

ইউভি রশ্মি থেকে গাছগাছড়ার ঔষধির দ্বারা ত্বকের সুরক্ষার বিষয়ে একটা জার্নাল বলে যে অ্যাভোকাডোগুলো হচ্ছে ভিটামিন সি, ই এবং ওলেয়িক অ্যাসিডে সমৃদ্ধ যেগুলি ইউভি রশ্মির বিরুদ্ধে এবং ত্বকের কালো দাগ কমানোর জন্য ত্বক সুরক্ষায় কার্যকর।  

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

অ্যাভোকাডোর একটা টুকরো ঘষুন এবং একটা মসৃণ লেপ তৈরি করুন এবং কালো দাগগুলিতে এটা এক মাস ধরে দিনে দুবার করে লাগান। লেপটিতে আপনি খানিকটা মধু এবং দুধও মেশাতে পারেন এবং ত্বকে এটা শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত রেখে দিন। ঈষদুষ্ণ জল দিয়ে এটা পরিস্কার করে ধুয়ে ফেলুন। এক মাস ধরে রোজ এটা একবার করুন।   

  • পেঁপে

2014 সালে চালানো একটা সমীক্ষা পেঁপে এবং এর বীজগুলির অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট প্রভাবের উপর ভিত্তি করে করা হয়েছিল। এটা বলেছিল যে কাঁচা পেঁপের মৃত কোষগুলি তোলা এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট গুণগুলি রয়েছে যা ত্বকের ক্ষতি প্রতিরোধ করে, মৃত ত্বকের কোষগুলো অপসারণ করতে সাহায্য করে। সেজন্য, এটা আপনার ত্বকে কালো দাগ কমাতে সাহায্য করে।   

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

আপনি একটা তিন-ইঞ্চি পেঁপের টুকরো নিতে পারেন এবং আধ চা-চামচ মধু, এক চিমটে হলুদ, কয়েক ফোঁটা লেবুর রস এবং দুধ এর সাথে মেশান। আপনি একটা লেপ তৈরি করার জন্য এগুলো মেশান এবং কালো দাগযুক্ত স্থানে এটা দিনে দুবার লাগান। লেপটা ত্বকে 20 মিনিট ধরে রাখতে দিন এবং শেষে, ঈষদুষ্ণ জলে এটা ধুয়ে ফেলুন। অন্ততঃ এক মাস ধরে এটা করুন।

  • কলা

“অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটোরি অ্যান্ড অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট অ্যাক্টিভিটিজ অব এক্সট্র্যাক্টস ফ্রম মুসা সেপিয়েন্টাম পিল” (কলার খোসার নির্যাসের প্রদাহ-প্রতিরোধী এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট কার্যকলাপ) সমীক্ষায়, এটা দেখা গেছে যে কলা একটা অত্যন্ত উৎকৃষ্ট প্রাকৃতিক মৃত কোষ দূরকারী এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট। এটা ত্বকের মৃত কোষগুলি অপসারণ করতে সাহায্য করে। এভাবে এটা আলতোভাবে কালো দাগযুক্ত কোষগুলোও দূর করতে সাহায্য করে।   

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

আপনি একটা কলার (অপক্ক) অর্ধেক, এক চা-চামচ মধু, এবং এক চা-চামচ দুধ একটা মসৃণ ক্রিমের মত লেপ তৈরি করে আপনার ত্বকের জন্য ব্যবহার করতে পারেন। এগুলোকে মেশান অথবা একত্রে পিষুন যাতে এগুলো ডেলা মুক্ত থাকে। এটা সংক্রামিত ত্বকে লাগানোর আগে আপনার হাতগুলো ধুয়ে নেবেন। এই লেপের একটা মসৃণ পরত লাগান এবং এটা সেখানে 30 মিনিট ধরে রাখুন। পরিণতি দেখার জন্য এই লেপ এক মাস ধরে ব্যবহার করুন। ঈষদুষ্ণ জল দিয়ে আলতোভাবে এটা ধুয়ে ফেলুন এবং আপনার ত্বক শুকান।   

  • মালবেরি (কালোজামের মত গাঢ় বেগুনী রঙের ফল)

রোদের তাপে অত্যধিক পুড়ে কালো হয়ে যাওয়া ত্বকে প্রাকৃতিক উপকরণের কার্যকারিতার উপরে ক্লিনিক্যাল অ্যান্ড এস্থেটিক ডার্মাটোলজি-র একটা জার্নাল জানাচ্ছে যে মালবেরির একটা সক্রিয় উপাদান আছে যা শুধু টাইরোসিন-এর কাজকর্ম প্রতিরোধ করে তাই নয়, উপরন্তু ফ্রি-অক্সিজেন র‍্যাডিক্যালগুলি দূর করায় সাহায্য করে যা ত্বকের ক্ষতির জন্য দায়ী। 

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

অন্যান্য এসেনশিয়াল অয়েলের সঙ্গে মালবেরি নির্যাস ত্বকের সিরাম হিসাবে পাওয়া যায়। দ্রব্যটা ব্যবহার করার সঠিক উপায় জানার জন্য আপনি প্যাকেজিং দেখতে পারেন।

  • স্ট্রবেরিজ

ইন্ডিয়ান জার্নাল অব ডার্মাটোলজির একটা জার্নাল বলে যে স্ট্রবেরিতে ফ্লেবোনয়েডস থাকে যা কার্যকরভাবে মেলানিন-এর সংশ্লেষ প্রতিরোধ করে। সেজন্য, এগুলো স্ট্রবেরিকে ত্বকের কালো দাগ চিকিৎসা করার জন্য একটা বিকল্প পদ্ধতি হিসাবে উপস্থিত করে।   

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

আপনি 2-3টা টাটকা স্ট্রবেরি নিতে পারেন এবং সেগুলোকে ভাল করে পিষে একটা লেপ বানান। এর সাথে, আপনি আধ চা-চামচ মধু যোগ করে ভাল করে মেশান। পরিস্কার হাতে এই লেপটা ধরুন এবং সংক্রামিত ত্বকের জায়গায় লাগান। আপনি প্রায় 2-3 মিনিট ধরে বৃত্তাকার ভঙ্গীতে ত্বক নরমভাবে মালিশ করুন। এর পরে, 15 মিনিট যাবত এটা আপনার ত্বকে রেখে দিন এবং ঈষদুষ্ণ জলে এটা ধুয়ে পরিস্কার করুন। এর পরে, ত্বকের লোমকূপের ছিদ্রগুলি বন্ধ করার জন্য আপনার মুখ ঠাণ্ডা জল দিয়ে ধুয়ে নিন। ফলাফল দেখার জন্য এই পদ্ধতি অন্ততঃ এক মাস ধরে ব্যবহার করুন। 

  • হলুদ

হলুদ হল ত্বকের অসংখ্য ব্যাধির জন্য এর নিরাময় করার এবং সেই সাথে ত্বক হালকা (ফর্সা) করায় সহায়তা করার ক্ষমতার জন্য একটা যুগ-প্রাচীন প্রতিষেধক। ত্বকের স্বাস্থ্যে হলুদের প্রভাবগুলির উপর ভিত্তি করে একটা সমীক্ষা দেখিয়েছে যে হলুদের প্রদাহ-প্রতিরোধী, অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট, রোগজীবাণু-রোধক এবং ক্যান্সার-প্রতিরোধী গুণগুলি আছে যা ত্বকের অনেক ব্যাধিতে সাহায্য করে।    

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?
অনেকগুলি উপায়ে হলুদ ব্যবহৃত হয়ে থাকে। আপনি দইয়ের লেপ, লেবুর রস, মধু, দুধ, মুলতানি মাটির লেপ, ইত্যাদির সাথে হলুদ মেশাতে পারেন। এইসমস্ত লেপগুলোর যেকোন একটা এক চিমটে হলুদের সঙ্গে মিশিয়ে রোজ ব্যবহার করতে থাকুন যতক্ষণ পর্যন্ত না আপনার কালো দাগযুক্ত ত্বকে পরিবর্তনগুলো দেখা শুরু করেন। 

  • অ্যালো ভেরা

কালো দাগের চিকিৎসায় অ্যালো ভেরার কার্যকারিতার সঙ্গে সম্পর্কিত 2012 সালের একটা সমীক্ষা নির্দেশ করে যে কালো দাগ কমানোয় অ্যালো ভেরা সহায়ক। এটার অ্যালোয়িন নামে একটা সক্রিয় উপাদান আছে যা সংমিশ্রণে সাহায্য করে এবং সেজন্য যেখানে এটা লাগানো হয়েছে সেই স্থানে কালো দাগ কমায়।  

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

আপনি অ্যালো ভেরার নির্যাস বাজার থেকে কিনতে পারেন অথবা আপনার বাগান থেকে একটা অ্যালো ভেরা পাতা তুলে নিতে পারেন। এটার খোসা ছাড়ান এবং অ্যালো ভেরা জেল বার করে নিন এবং এক চা-চামচ মধুর সঙ্গে এটার দুই চা-চামচ মেশান। 10 মিনিটের জন্য এটা একপাশে সরিয়ে রাখুন। সংক্রামিত ত্বকে এই মিশ্রণ দিনে দুবার লাগান এবং 20 মিনিটের জন্য এটা রেখে দিন। ঈষদুষ্ণ জল দিয়ে এটা ধুয়ে ফেলুন এবং অন্ততঃ চার সপ্তাহ ধরে এই রুটিন মেনে চলুন।  

  • চন্দনকাঠ

চন্দনকাঠের বিষয়ে একটা সমীক্ষা নির্দেশ করেছিল যে এটা টাইরোসিনেস এনজাইম (একটা এনজাইম যা টাইরোসিনকে মেলানিন-এ রূপান্তরিত করে। মেলানিন হল আমাদের ত্বক দ্বারা উৎপন্ন রঞ্জক পদার্থ।) প্রতিরোধ করতে সক্ষম এবং কালো দাগ হালকা করায় সাহায্য করে।  

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

আপনি চন্দনকাঠের গুঁড়ো অথবা চন্দনকাঠের তেল আপনার কালো দাগ চিকিৎসা করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন।

দুই চা-চামচ চন্দনকাঠের গুঁড়ো নিন, এক চিমটে হলুদ, কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল এবং গোলাপ জল/দুধ এর সাথে মেশান। একটা লেপ তৈরি করুন এবং সংক্রামিত ত্বকে এটা রাখুন। 10-15 মিনিট ধরে এটা রাখুন। সামান্য উষ্ণ জল দিয়ে এটা ধুয়ে ফেলুন। যতক্ষণ পর্যন্ত না আপনার কালো দাগযুক্ত ত্বকে কোনও পরিবর্তন আপনি দেখছেন এটা রোজ একবার করে করুন।  

  • যষ্টিমধু (লিকোরিশ)

কালো দাগের উপর যষ্টিমধুর নির্যাসের প্রভাব দর্শানোর জন্য একটা সমীক্ষা নির্দেশ করে যে যষ্টিমধুর নির্যাসের গ্ল্যাবরিডিন নামক একটা সক্রিয় উপাদান আছে যা টাইরোসিন দমন করায় এবং কালো দাগ প্রতিরোধ করতে কার্যকর বলে দেখা গেছে। এর কালো দাগ দূর করা ক্রিয়াকলাপ বাদে, এটা ত্বকের কোষগুলোতে প্রদাহ (স্ফীতি) কমানোয়ও সহায়ক।    

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

বাজারে যষ্টিমধু ক্রিম, জেল, এবং সিরাম হিসাবে পাওয়া যায়। প্যাকেজিং-এর উপর যেমন উল্লেখ করা আছে সেভাবে ব্যবহার করুন। আপনি শুকনো যষ্টিমধুর শিকড় থেকে গুঁড়োও তৈরি করতে পারেন এবং গোলাপ জলের সাথে একটা লেপ তৈরি করে ব্যবহার করুন। পরিস্কার হাত দিয়ে, সংক্রামিত এলাকার পুরোটা জুড়ে এই লেপ লাগান এবং 15 মিনিট ধরে এটা সেখানে রেখে দিন। এর পর, ঈষদুষ্ণ জল দিয়ে এটা ধুয়ে ফেলুন। অন্ততঃ এক মাস ধরে এই রুটিন মেনে চলুন।   

  • জাফরান

ত্বক ফর্সা করায় ব্যবহৃত জাফরান হচ্ছে একটা যুগ-প্রাচীন উপকরণ। একটা নিবন্ধ, “ক্রিটিক্যাল রিভিউ অব আয়ুর্বেদিক বর্ণীয় হার্বস অ্যান্ড দেয়ার টাইরোসিনেস ইনহিবিশন এফেক্ট” বলে যে জাফরান মেলানিন উৎপাদন কমানোয় কার্যকর এবং কালো দাগ কমানোয় সাহায্য করে।

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?
আপনি 3-4 টুকরো জাফরান উপরে-উল্লিখিত যেকোন লেপের সাথে মেশাতে পারেন এবং যেমন আমরা আগে ব্যাখ্যা করেছি সেভাবে সংক্রামিত এলাকায় সেটা রাখুন। 

আমরা যা খাই আমাদের ত্বক তাই প্রতিফলিত করে। 2012 সালে চালানো একটা সমীক্ষা, “ইউ আর হোয়াট ইউ ইট: উইদিন-সাবজেক্ট ইনক্রিজেজ ইন ফ্রুট অ্যান্ড ভেজিটেব্‌ল কনজাম্পশন কনফার বেনিফিশিয়াল স্কিন-কালার চেঞ্জেস”, বলে যে বেশি ফল এবং শাকসবজি সহ একটা স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার একটা প্রত্যক্ষ প্রভাব আমাদের ত্বকের দৃঢ়তা এবং চেহারায় থাকে। অত্যধিক কালো দাগ কমানোর জন্য নীচে কিছু দ্রব্যের তালিকা আছে যেগুলো আপনি আপনার খাদ্যতালিকায় সামিল করতে পারেনঃ   

  • ফল
    কিছু কিছু ফল ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট সমৃদ্ধ এবং ত্বকের পক্ষে অত্যন্ত উপকারী যেমন লেবু, কমলালেবু, স্ট্রবেরি, ব্লুবেরি, অ্যাভোকাডো, পেঁপে, কলা, আঙুর, চেরি, আম, টমেটো, ইত্যাদি। এইসমস্ত বিভিন্ন ফল দিয়ে নিজে একটা ভাল স্যালাড বানান এবং রোজ খান।
     
  • শাকসবজি
    যেসমস্ত শাকসবজি ক্যারোটেনয়েড এবং ফ্লেবোনয়েড সমৃদ্ধ সেগুলো ত্বকের কালো দাগ কমানোয় সহায়ক। এগুলোর মধ্যে আছে শসা, গাজর, পালং, লাল এবং হলুদ সিমলা মরিচ, ব্রোকোলি, ইত্যাদি। এগুলো আপনার ত্বক ভিতর থেকে নিরাময় করার জন্য আপনার খাবারগুলিতে অথবা স্যুপে সামিল করুন।  
     
  • অ্যালো ভেরা রস
    অ্যালো ভেরা রস এর ঔষধি গুণাবলীর জন্য যা ত্বকের পক্ষে অত্যন্ত উপকারী, বহুদিন ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। অ্যালো ভেরা রস এককভাবে পান করুন, অথবা অন্যান্য ফলের রসের সাথে আরও ভাল স্বাদের জন্য এটা মেশান এবং প্রতিদিন পান করুন। আমরা আপনাকে অ্যালো ভেরার 10-15 ml প্রতিদিন নিতে পরামর্শ দিচ্ছি, তার চেয়ে বেশি নয়। 
     
  • গ্রীন টি
    গ্রীন টি ফ্লেবোনয়েড যেমন ক্যাটেচিন সমৃদ্ধ যা মেলানিন উৎপাদনের পরিমাণ কমায়। অত্যধিক কালো দাগের চিকিৎসার জন্য দিনে দুবার গ্রীন টি পান করা ভাল। 
     
  • নারকেল জল
    নারকেল জল আপনার শরীর জলশূন্য হওয়ার পর পুনরায় জলযুক্ত করা এবং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ খনিজ যোগ করার জন্য অত্যন্ত উপকারী। যেই আপনার শরীর পুনরায় জলযুক্ত হয়, ত্বকের কোষগুলি পুনরুজ্জীবিত হয় এবং নতুন কোষও তৈরি হয়। এটা ত্বকের মৃত কোষগুলি সময়মত ঝরানোয়ও সাহায্য করে।    
     
  • জল
    প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণ জল পান করা আপনার শরীর থেকে ক্ষতিকারক পদার্থ নিংড়ে বার করে দেয় এবং আপনার ত্বকে একটা চমৎকার উজ্জ্বলতা দেয়। এটা ঘামের মাধ্যমে ত্বকের স্বাভাবিক সাফাই করাও বাড়ায় এবং সিবাম (মেদ থেকে ক্ষরিত রস) উৎপাদন কমায়।  
  • প্রাকৃতিক গন্ধসার তেল (এসেনশিয়াল অয়েল)

এসেনশিয়াল অয়েল-এর (প্রাকৃতিক গন্ধসার তেল) বিপুল পরিমাণ স্বাস্থ্য উপযোগিতার জন্য সেগুলো নিয়ে অনেক গবেষণা হয়েছে। একটা সাম্প্রতিক জার্নাল, “অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটোরি অ্যান্ড স্কিন বেরিয়ার রিপেয়ার এফেক্টস অব টপিক্যাল অ্যাপ্লিকেশন অব সাম প্ল্যান্ট অয়েলস”, দেখায় যে কালো দাগ চিকিৎসা করার জন্য কয়েকটি এসেনশিয়াল অয়েল ব্যবহার করা যেতে পারে। এর মধ্যে আছে অর্গান অয়েল, অলিভ অয়েল, নারকেল তেল, ল্যাভেন্ডার অয়েল, রোজহিপ অয়েল, লেমন এসেনশিয়াল অয়েল, ইত্যাদি। এই তেলগুলি এককভাবে অথবা একটা মিশ্রণে মেশানোর পর সংক্রামিত ত্বকে লাগাতে হবে। এগুলো জ্বলন কমায়, নিরাময় উন্নত করে, এবং ফ্রি র‍্যাডিক্যালস দূর করে যা আপনার ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত করে বলে বিদিত।     

কিভাবে ব্যবহার করতে হয়?

উপরে উল্লিখিত যেকোন একটা তেল ব্যবহার করুন এবং সেটা নারকেল অথবা জলপাই তেলের সাথে সমান পরিমাণে মিশিয়ে পাতলা করুন। আপনি এসেনশিয়াল অয়েল আপনার রোজকার ময়েসচারাইজিং লোশন বা ক্রিমের সাথেও মেশাতে পারেন। এই তেলগুলি রাতে শোবার সময় ত্বকে লাগানো উচিত যাতে সারারাত থাকে। আপনার ত্বকে এই অয়েল সলিউশন নিয়ে রোদে না বেরোবার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। একটা স্বাস্থ্যকর এবং উজ্জ্বল ত্বকের জন্য প্রচুর মানুষের দ্বারা এটা রাতের বেলায় সাধারণভাবে ব্যবহৃত ত্বকের যত্নের রুটিন। 

  • রোদ থেকে আপনার ত্বক সুরক্ষিত রাখুন

সানস্ক্রিন হল ক্রিম বা লোশন যা সূর্যালোকে ইউভি রশ্মির ক্ষতিকারক প্রভাব থেকে ত্বককে সুরক্ষিত রাখে। উচ্চ মাত্রার এসপিএফ সহ কোনও সানস্ক্রিন ব্যবহার করা রোদে চামড়ার বাদামী হওয়া এবং কালো দাগ প্রতিরোধ করে যা ইউভি রশ্মির কারণে ঘটে। এসপিএফ 30 সহ কোনও সানস্ক্রিন সাধারণভাবে এর জন্য সুপারিশ করা হয়। রোদে বেরোবার 30 মিনিট আগে সানস্ক্রিন লাগান।   

  • ভাল স্বাস্থ্যবিধি চর্চা মেনে চলুন

একটা দৈনন্দিন ত্বক চর্চার রুটিন থাকা সবসময় ভাল যাতে আপনার উচিত আপনার ত্বক পরিস্কার করা, সেটা ধোয়া এবং আর্দ্র করা। স্নান করার জন্য গরম জল ব্যবহার করবেন না। সর্বদা ঈষদুষ্ণ জল ব্যবহার করুন এবং স্নানের ঠিক পরেই আপনার ত্বকে আর্দ্রভাব স্থায়ী করার জন্য আপনার ত্বক আর্দ্র (ময়েসচারাইজ) করুন। আপনার ত্বক চর্চার রুটিনে অন্যান্য পদ্ধতি যা আপনার অন্তর্ভুক্ত করা উচিত তার মধ্যে সামিল সাফাই, টোনিং এবং ত্বকের মৃত কোষ তোলা। ত্বকের মৃত কোষগুলি তোলা সপ্তাহে একবার করা উচিত। যেসমস্ত ব্যক্তির ব্রণ আছে তাঁদের ত্বকের একটা রুটিনের জন্য একজন ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা উচিত যা তাঁদের ত্বকের ধরণে মানানসই হয়।  

Dr. Neha Baig

Dr. Neha Baig

Dermatology
3 Years of Experience

Dr. Avinash Jhariya

Dr. Avinash Jhariya

Dermatology
5 Years of Experience

Dr. R.K . Tripathi

Dr. R.K . Tripathi

Dermatology
12 Years of Experience

Dr. Deepak Kumar Yadav

Dr. Deepak Kumar Yadav

Dermatology
2 Years of Experience

তথ্যসূত্র

  1. Rashmi Sarkar, Pooja Arora, K Vijay Garg. Cosmeceuticals for Hyperpigmentation: What is Available?. J Cutan Aesthet Surg. 2013 Jan-Mar; 6(1): 4–11. PMID: 23723597
  2. Misra BB, Dey S. TLC-bioautographic evaluation of in vitro anti-tyrosinase and anti-cholinesterase potentials of sandalwood oil. Nat Prod Commun. 2013 Feb;8(2):253-6. PMID: 23513742
  3. Vaughn AR, Sivamani RK. Effects of Fermented Dairy Products on Skin: A Systematic Review. J Altern Complement Med. 2015 Jul;21(7):380-5. PMID: 26061422
  4. Mukherjee PK, Nema NK, Maity N, Sarkar BK. Phytochemical and therapeutic potential of cucumber. Fitoterapia. 2013 Jan;84:227-36. PMID: 23098877
  5. Pumori Saokar Telang. Vitamin C in dermatology. Indian Dermatol Online J. 2013 Apr-Jun; 4(2): 143–146. PMID: 23741676
  6. Tzu-Kai Lin, Lily Zhong,2, Juan Luis Santiago. Anti-Inflammatory and Skin Barrier Repair Effects of Topical Application of Some Plant Oils. Int J Mol Sci. 2018 Jan; 19(1): 70. PMID: 29280987
  7. Tahereh Eteraf-Oskouei, Moslem Najafi. Traditional and Modern Uses of Natural Honey in Human Diseases: A Review Iran J Basic Med Sci. 2013 Jun; 16(6): 731–742. PMID: 23997898
  8. Burlando B, Cornara L. Honey in dermatology and skin care: a review. J Cosmet Dermatol. 2013 Dec;12(4):306-13. PMID: 24305429
  9. Ahmad Z. The uses and properties of almond oil. Complement Ther Clin Pract. 2010 Feb;16(1):10-2. PMID: 20129403
  10. Kapuścińska A, Nowak I. [Use of organic acids in acne and skin discolorations therapy]. Postepy Hig Med Dosw (Online). 2015 Mar 22;69:374-83. PMID: 25811473
  11. Vaughn AR, Branum A, Sivamani RK. Effects of Turmeric (Curcuma longa) on Skin Health: A Systematic Review of the Clinical Evidence.. Phytother Res. 2016 Aug;30(8):1243-64. PMID: 27213821
  12. Rashmi Sarkar, Pooja Arora, K Vijay Garg. Cosmeceuticals for Hyperpigmentation: What is Available?. J Cutan Aesthet Surg. 2013 Jan-Mar; 6(1): 4–11. PMID: 23723597
  13. Elisa Panzarini, Majdi Dwikat, Stefania Mariano, Cristian Vergallo, Luciana Dini. Administration Dependent Antioxidant Effect of Carica papaya Seeds Water Extract. Evid Based Complement Alternat Med. 2014; 2014: 281508. PMID: 24795765
  14. Patricia OyetakinWhite, Heather Tribout, Elma Baron. Protective Mechanisms of Green Tea Polyphenols in Skin. Oxid Med Cell Longev. 2012; 2012: 560682. Oxid Med Cell Longev. 2012; 2012: 560682.
  15. Radava R. Korać, Kapil M. Khambholja. Potential of herbs in skin protection from ultraviolet radiation. Pharmacogn Rev. 2011 Jul-Dec; 5(10): 164–173. PMID: 22279374
  16. Paine C, Sharlow E, Liebel F, Eisinger M, Shapiro S, Seiberg M. An alternative approach to depigmentation by soybean extracts via inhibition of the PAR-2 pathway. J Invest Dermatol. 2001 Apr;116(4):587-95. PMID: 11286627
  17. Jasmine C. Hollinger, MD, Kunal Angra, MD, and Rebat M. Halder. Are Natural Ingredients Effective in the Management of Hyperpigmentation? A Systematic Review. J Clin Aesthet Dermatol. 2018 Feb; 11(2): 28–37. PMID: 29552273
  18. Yokota T, Nishio H, Kubota Y, Mizoguchi M. The inhibitory effect of glabridin from licorice extracts on melanogenesis and inflammation. Pigment Cell Res. 1998 Dec;11(6):355-61. PMID: 9870547
  19. Debabrata Bandyopadhyay. TOPICAL TREATMENT OF MELASMA. Indian J Dermatol. 2009 Oct-Dec; 54(4): 303–309. PMID: 20101327
  20. Khemchand Sharma, Namrata Joshi, Chinky Goyal. Critical review of Ayurvedic Varṇya herbs and their tyrosinase inhibition effect. Anc Sci Life. 2015 Jul-Sep; 35(1): 18–25. PMID: 26600663
  21. Ross D. Whitehead, Daniel Re, Dengke Xiao, Gozde Ozakinci, David I. Perrett. You Are What You Eat: Within-Subject Increases in Fruit and Vegetable Consumption Confer Beneficial Skin-Color Changes. PLoS One. 2012; 7(3): e32988. PMID: 22412966