myUpchar प्लस+ के साथ पूरेे परिवार के हेल्थ खर्च पर भारी बचत

জবার অন্য নাম হল রোজমেলো অথবা চিনা গোলাপ। এর রঙিন ফুলের জন্য সাধারণত জবা গাছ বাগানের শোভা বৃদ্ধির জন্যই লাগান হয়। গাছটি সুন্দর হলেও চিকিৎসার জগতে এর গুরুত্ব অপরিসীম। জবা গাছ মাল্ভেল গোষ্ঠীর মালভেসিয়া পরিবারের অন্তর্ভুক্ত। এটি পৃথিবীর ক্রান্তীয় এবং উপক্রান্তীয় অঞ্চলে উদ্ভূত, যেখানে ব্যাপকভাবে এর বিতরণ দেখা যায়। 

এর ইংরাজি নাম হিবিসকাস'এর উৎপত্তি গ্রীক ভাষার 'হিবিসকস' শব্দটি থেকে। এই চির সবুজ গুল্মটি সাধারণত 5 মিটার উচ্চতা পর্যন্ত হয় এবং পাতা চকচকে। প্রতিটি ফুল আলাদা আলাদা ভাবে ফোটে। এর ফুলই চিকিৎসা ক্ষেত্রে বেশি ব্যবহৃত হয়। ফুলগুলি সাধারণত বেশ বড় হয় এবং নানা রঙের হয়, যেমন লাল, হলুদ, সাদা অথবা রক্তবেগুনী।

সব চেয়ে সাধারণ গাছটি হল, হিবিসকাস রোজা-সিনেনসিস। এই গুল্মটির ফুলের রঙ উজ্জ্বল লাল। এই ফুল খেলে অশেষ উপকার পাওয়া যায়। বিভিন্ন অসুখ, যেমন, বদহজম, উৎকণ্ঠা, স্কার্ভি এবং এমন কি জ্বরেও আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের নির্দেশ অনুসারে এই ফুল খেলে চিকিৎসা হয়।

জবা সম্পর্কে কিছু মৌলিক তথ্য

  • বৈজ্ঞানিক নাম: হিবিসকাস রোজা-সিনেনসিস
  • পরিবার: ম্যালিয়েসি
  • সাধারণ নাম: জবা, চিনা গোলাপ, রোজমেলো
  • সংস্কৃত নাম: জবা, রুদ্রপুষ্প, জপা, অরুণা, ওদ্রাপুষ্প
  • যে অংশ ব্যবহৃত হয়: ফুল (পাপড়ি)
  • আদি উৎপত্তি স্থল এবং ভৌগলিক বিতরণ: বিশ্বের ক্রান্তিয় এবং উপক্রান্তীয় অঞ্চল।
  1. জবার শ্রেণীবিন্যাস এবং প্রকার - Classification and varities of Hibiscus in Bengali
  2. জবা ফুলের নির্যাসের উপকারিতা - Hibiscus flower extract benefits in Bengali
  3. জবা চাষের নিয়ম - How to grow Hibiscus in Bengali
  4. জবার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া - Hibiscus side effects in Bengali

জবার শ্রেণীবিন্যাস

কিংডম: প্ল্যান্টই
ডিভিশান: এ্যাঞ্জিয়োস্পার্মস
ক্লাস: ইউডিকটস
অর্ডার: ম্যালভেলিস
ফ্যামিলি: ম্যালভেসি
জিনাস: হিবিস্কাস

জবার প্রকার
বিভিন্ন প্রকারের জবা বিভিন্ন প্রকারের স্বাস্থ্যের সুবিধা প্রধান করে। জবার 100'এর বেশি প্রকারের কথা জানা আছে। যে গুলি সাধারণত ব্যবহার করা হয়, সেগুলি হল:

  • হিবিসকাস রোজা-সিনেনসিস
    একে সাধারণত চিনা জবা বলা হয় এবং এটিই সব চেয়ে বেশি পাওয়া যায়। ছোট গুল্ম বা গাছ হয়, আর ফুলের রঙ হয় উজ্জ্বল লাল। পাতাগুলি চকচকে। ফুল খাওয়া যায় এবং তাই স্যালাড সাজাতে ব্যবহার করা হয়। এই ফুলের নির্যাস কেশ চর্চা এবং ত্বকের উপকারী বিভিন্ন পণ্যতে ব্যবহার করা হয়। এই জবা পণ্যগুলিকে দীপ্তি প্রদান করে এবং সেই জন্য জুতোর পালিশে এর ব্যবহার হয়।
     
  • হিবিসকাস সাইরাকিয়াস
    এই ফুলেরও আদি নিবাস চিন দেশে। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলে এই গাছ বেশি দেখতে পাওয়া যায়। ঝোপরা গুল্ম গাছে ফুলগুলি সাধারণত সাদা, নীল বা হালকা পার্পল রঙের হয়। স্থানীয় মানুষরা ভেষজ চায়ে একে ইনফিউশান হিসাবে ব্যবহার করে। দেখা গিয়েছে যে এই জবা ক্ষুধা বৃদ্ধি করতে পারে এবং কাশির চিকিৎসায় ব্যবহার করা যায়।
     
  • হিবিসকাস টিলাসিয়াস
    এশিয়া এবং আফ্রিকার ক্রান্তীয় অঞ্চলের উপকূল এলাকায় এই গাছ জন্মায়। ফুলের রঙ হয় উজ্জ্বল কমলা এবং ধীরে ধীরে তা লাল রঙের হয়ে যায়। এটি গাছ হয়ে বৃদ্ধি লাভ করে। এর কাঠ দিয়ে মজবুত দড়ি প্রস্তুত হয় এবং নৌকা মেরামত করা হয়। শিকড় এবং বাকল সিদ্ধ করে ইফিউশান পোস্ট করা হয় যা দিয়ে জ্বরের চিকিৎসা করা হয়।
     
  • হিবিসকাস সাবডারিফা
    এই গাছকে সাধারণ ভাবে রোজেলি বলা হয় এবং পশ্চিম আফ্রিকাতেই এই গাছ বেশি দেখা যায়। এই গাছের প্রভাব খুব ভাল করে পরীক্ষা করা হয়েছে। এর ফুল জবার চা তৈরিতে ব্যবহার করা হয়, এবং এর প্রচুর প্রয়োগ আছে। এই গাছের ফুলের সাথে পুদিনা মিশিয়ে সতেজ-কারক পানীয় তৈরি হয়। অনেক সংস্কৃতিতে এর পাতা সবজি হিসাবে রান্না করা হয়। এই গাছের ডাল থেকে প্রাপ্ত তন্তু পাটের তন্তুর সাথে মিশ্রিত করে আরও মজবুত পণ্য তৈরি হয়।

বিভিন্ন প্রকারের জবা ফুলে নানা রকমের ফাইটো-রাসায়নিক (বায়ো-সক্রিয় যৌগগুলি, যা ওষুধে ব্যবহৃত হয়) থাকে। জবা ফুলের বিভিন্ন অংশ থেকে নিষ্কাশিত অপরিহার্য তেলের অনেক গুণ এবং ব্যবহার আছে। নিচে সেগুলি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হল।

  • চুলের উপকার: যারা দীর্ঘ, উজ্জ্বল এবং স্বাস্থ্যকর চুল কামনা করেন, তাদের জন্য জবা হল চুলের যত্নের আদর্শ সম্পূরক। এটি তেল, শ্যাম্পু, কন্ডিশনার অথবা মাস্ক হিসাবে ব্যবহার হয় এবং মাথার ত্বক শীতল হয় এবং চুলের শক্তি এবং দীপ্তি বৃদ্ধি পায়।
  • রক্তচাপ হ্রাস করে: জবার প্রদাহ-বিরোধী এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ধর্ম থাকায় রক্তচাপ হ্রাস করে বলে প্রস্তাব করা হয়েছে। এতে কিছু পলিফেনল আছে, ক্লিনিক্যাল পরীক্ষায় যাদের রক্তচাপ হ্রাস করার গুণ দেখা গিয়েছে।
  • ক্ষত নিরাময়ে সাহায্য করে: জবা ফুলের নির্যাস ক্ষত নিরাময় করে এবং চামড়ার ভাঙার বল বৃদ্ধি করে। এটি ক্ষতের স্থানে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ রোধ করে।
  • স্থূলতা প্রতিরোধ করে: জবা বিপাক প্রক্রিয়াকে উদ্দীপিত করে, ফলে স্থূলতা এবং অতিরিক্ত ওজনের সমস্যা কমাতে সাহায্য করে। এই ফুলে বিভিন্ন সক্রিয় যৌগগুলি ফ্রি র‍্যাডিকেল সংক্রান্ত ক্ষতির প্রতিরোধ করে এবং অক্সিডেটিভ চাপ কমায়, যা স্থূলতার একটি অন্যতম কারণ।
  • উপ-বিষ বিতারণ করে: জবা একটি মূত্রবর্ধক এবং এর উপ-বিষ (টক্সিন) বিতারণ ক্ষমতা আছে। ফলে প্রস্রাবের সাথে উপ-বিষ যৌগগুলি এবং অন্যান্য রাসায়নিকগুলি দেহ থেকে বেড়িয়ে যায়।
  • মধুমেহ বিরোধী ধর্ম: গবেষণাগুলি দেখাচ্ছে যে জবার চা ইনসুলিন-প্রস্তুতকারী কোষগুলিকে ইতিবাচক ভাবে প্রভাবিত করে।। ফলে ইনসুলিনের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। মধুমেহ রোগীদের ক্ষেত্রে জবা ইনসুলিন-রেজিস্ট্যান্স এবং অক্সিডেটিভ চাপ হ্রাস করে। ফলে রক্তের চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রিত থাকে।
  1. চুলের উপকারে জবা - Hibiscus benefits for hair in Bengali
  2. মধুমেহর জন্য জবার নির্যাস - Hibiscus extract for diabetes in Bengali
  3. জবা ফুলের নির্যাসের ব্যথা এবং প্রদাহ-বিরোধী ধর্ম - Hibiscus flower extract as analgesic and anti-inflammatory in Bengali
  4. রক্তচাপ ও জবা - Hibiscus for blood pressure in Bengali
  5. ক্ষত নিরাময়ে জবার চা - Hibiscus for wound healing in Bengali
  6. জবা ফুলের নির্যাসের ঔষধি ব্যবহার - Hibiscus flower extract for medicinal uses in Bengali

চুলের উপকারে জবা - Hibiscus benefits for hair in Bengali

হিবিসকাস রোজা-সিনেনসিস ফুল এবং পাতার নির্যাস তেলের উপাদান হিসাবে ব্যবহার করা হয়। চুলের বিভিন্ন গুণ, যেমন দৈর্ঘ্য এবং চুলের গোঁড়ার চক্রাকার পর্যায় নিরীক্ষণ করে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছানো গিয়েছে যে ফুলের চেয়ে পাতার নির্যাসই  চুলের জন্য ভাল ফল প্রদান করে।

চুলের জন্য জবার পণ্য

  • জবার তেল:
    জবার দ্বিতীয় বৃহত্তম পণ্য হল জবার তেল। এই তেল ভিটামিন সি সমৃদ্ধ। ভিটামিন সি অ্যামিনো অ্যাসিডকে উদ্বুদ্ধ করে চুলের দৃঢ়তা এবং কোলাজেন বৃদ্ধি করে। ফলে চুল দীর্ঘ হয়, চুলের গোঁড়া শক্ত হয় এবং চুলের পরিমাণ বাড়ে।
     
  • জবার শ্যাম্পু:
    চুলের বৃদ্ধিতে এর প্রভাবের কারণে জবা ফুলের বিভিন্ন অংশ দিয়ে শ্যাম্পু তৈরি হয়। সাধারণ শ্যাম্পুর পরিবর্তে জবার শ্যাম্পু ব্যবহার করলে চুলের ঔজ্জ্বল্য বৃদ্ধি পায়।
     
  • জবার হেয়ার কন্ডিশনার:
    জবা ফুল এবং পাতা থেকে জেল'এর মত যে বস্তুটি পাওয়া যায়, তার উত্তম কন্ডিশানিং গুণ আছে। শুষ্ক ও জীর্ণ চুলকে জবার নির্যাস দিয়ে তৈরি কন্ডিশনার দিয়ে নরম এবং মসৃণ করা যায়।
     
  • জবার মাস্ক:
    জবা ফুল, জবা পাতা এবং দই দিয়ে তৈরি মাস্ক চুলের বৃদ্ধি হতে সাহায্য করবে। এই মাস্ক চুলের গোঁড়ায় পুষ্টি যোগায় এবং চুলের গুণমান বৃদ্ধি করে। জবা ফুল এবং মেথির বীজ দিয়ে তৈরি মাস্ক চুলের খুস্কি দূর করে মাথার ত্বকের স্বাস্থ্যের উন্নতি করে। আবার জবা ফুল এবং আমলকীর মিশ্রণে প্রস্তুত মাস্ক চুলের গোঁড়াকে শক্ত করে এবং চুলকে নরম করে।

আরেকটি জরুরী তথ্য হল জবার সাথে আলাদা আলাদা ভাবে সঠিক পরিমাণে নারকেল তেল, অলিভ তেল, আদা, ডিম, পিঁয়াজ, ঘৃতকুমারী এবং নিম মিশিয়ে ব্যবহার করলে দ্রুত চুল গজায়।

মধুমেহর জন্য জবার নির্যাস - Hibiscus extract for diabetes in Bengali

হিবিসকাস রোজা-সিনেমসিস'এর পাপড়ির ফ্ল্যাভোনয়েড সমৃদ্ধ নির্যাসের ইথাইল অ্যাসিটেট ফ্র্যাকশানের মধুমেহ-বিরোধী ধর্ম আছে। ডায়াবেটিস মেলিটাস রোগীদের অগ্ন্যাশয়ের বিটা কোষগুলিকে রক্ষা করতে সাহায্য করে জবা ফুলের পাপড়ির নির্যাস। মধুমেহ রোগীদের নিয়ে একটি সমীক্ষাতে পাওয়া যাচ্ছে যে হিবিসকাস সাবডারিফা ফুলের  ইনফিউশান দিয়ে প্রস্তুত 150 মিলি লিটার চা অক্সিডেটিভ চাপ হ্রাস করে এবং ইনসুলিন প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস করে মধুমেহর ব্যবস্থাপনায় সাহায্য করে।

(আরও পড়ুন: মধুমেহর লক্ষণগুলি)

জবা ফুলের নির্যাসের ব্যথা এবং প্রদাহ-বিরোধী ধর্ম - Hibiscus flower extract as analgesic and anti-inflammatory in Bengali

হিবিসকাস রোজা-সিনেনসিস গাছের শিকড়ের নির্যাসের ব্যথা কমানোর এবং প্রদাহ-বিরোধী ধর্ম আছে। দেখা গিয়েছে এই নির্যাস পান করলে প্রতিক্রিয়ার সময় বৃদ্ধি পায় (এনালজেসিক) এবং ইডিমা (প্রদাহ-বিরোধী) বন্ধ হয়। তবে এই প্রভাব নির্ভর করে নির্যাসের মাত্রার উপরে।

রক্তচাপ ও জবা - Hibiscus for blood pressure in Bengali

বিশ্বের অধিকাংশ মানুষেরই উচ্চ রক্তচাপ সমস্যা আছে। গবেষণা ইঙ্গিত দিচ্ছে যে জবার প্রদাহ-বিরোধী এবং অ্যান্টি-অক্সিডেটিভ ধর্ম আছে, যার প্রভাবে রক্তচাপ হ্রাস পায়। এ'ছাড়াও জবা ফুলের নির্যাসের ডিইউরেটিক (দেহ থেকে অতিরিক্ত জল নিষ্কাসন করে) ধর্ম আছে, এবং তাই প্রস্রাবের পরিমাণ বৃদ্ধি করে রক্তচাপ হ্রাস করে।

উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের নিয়ে একটি পরীক্ষা আবিষ্কার করেছে যে যখন এই রোগীদের হিবিসকাস সাবডারিফা ফুলের পলিফিনাইল নির্যাস দেওয়া হয়, তখন তাদের  বিপাক ক্রিয়া উন্নত হয় এবং উল্লেখযোগ্য ভাবে রক্তচাপ হ্রাস করে।

ক্ষত নিরাময়ে জবার চা - Hibiscus for wound healing in Bengali

পরীক্ষার ফল দেখাচ্ছে যে জবা ফুলের ইথানল নির্যাসের ক্ষত নিরাময়ের এবং অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল ধর্ম আছে। দেখা গিয়েছে নিয়ন্ত্রিত ব্যবস্থার চেয়ে (যেখানে জবার ইথানল নির্যাস ব্যবহার করা হয়নি) জবার ইথানল নির্যাসের ক্ষত নিরাময়ের ক্ষমতা খুবই উল্লেখযোগ্য ভাবে (প্রায় 11%) বেশি। জবার নির্যাস দিয়ে ক্ষত নিরাময়ের পরে দেখা গিয়েছে যে হাইড্রক্সিপ্রোলিন'এর (চামড়ার প্রোটিন তৈরিতে প্রয়োজন) পরিমাণ ও চামড়া ভেঙে যাওয়ার বল উল্লেখযোগ্য ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

জবা ফুলের নির্যাসের ঔষধি ব্যবহার - Hibiscus flower extract for medicinal uses in Bengali

হিবিসকাস সাবডারিফা ফুলের নির্যাস ভিটামিন সি (এসকরবিক অ্যাসিড) সমৃদ্ধ। জবার বৃত্যংশের নির্যাস ফার্মাকোলজিকাল বৈশিষ্ট্য প্রদর্শন করে যা ইন ভিট্রো এবং ইন ভিভো অবস্থায় শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ক্রিয়া ঘটায়। হিবিসকাস সাবডারিফা নির্যাস থেকে প্রাপ্ত এন্থোসায়ানিন এবং প্রোটোক্যাটিচুইক অ্যাসিড (ফাইটো-রাসায়নিক) ব্যবহার করে পণ্য প্রস্তুত করা যায় যারা ভেষজ প্রয়োগে উপকারী।

সঠিক পরিস্থিতি বজায় রাখলে জবা সহজেই চাষ করা যায়। বাড়িতে জবার চাষ করতে এবং একে রক্ষণাবেক্ষণ করতে নিচের ধাপগুলি অনুসরণ করুন।

  • সাধারণ নিয়ম:
    জবা বিশ্বের ক্রান্তীয় এবং উপক্রান্তীয় অঞ্চলের গুল্ম। কাজেই জবার জন্য আদর্শ পরিস্থিতি হচ্ছে সূর্যালোক এবং আর্দ্রতার সঠিক সংমিশ্রণ। জবার বিভিন্ন প্রজাতির জন্য উত্তাপ, সূর্যালোক, আর্দ্রতার তফাত হবে।
     
  • জমির গুণমান:
    জমিতে বাতাসের পরিমাণ এবং আর্দ্রতা বেশি দরকার। জমি জৈব সার সমৃদ্ধ হতে হবে।
     
  • মরশুম:
    গ্রীষ্মকাল হল জবার জন্য আদর্শ সময়। এছাড়া বসন্ত এবং শরৎকালও উপযুক্ত। কাটিং এবং রুটিং করে গাছ লাগান হয়। কচি গাছে পিঞ্ছিং করলে গাছগুলি উপযুক্ত আকার নেয় এবং কুঁড়ির সংখ্যা ও ঘনত্ব বাড়ে।
     
  • বৃদ্ধির নিয়ন্ত্রক:
    গাছ উপযুক্ত উচ্চতা পেলে আবহাওয়া এবং গাছের কোন অংশটির প্রয়োজন, তার উপরে নির্ভর করে গ্রোথ রেগুলেটার প্রয়োগ করা হয়।

জবা গাছের যত্ন

জবা গাছের বৃদ্ধির জন্য জমির আর্দ্রতা ধরে রাখা জরুরী। আর্দ্রতার অভাবে গাছ তাজা ভাব হারাবে। তাই নিয়মিত গাছের গোড়ায় জল দিতে হবে। জমির আর্দ্রতা বজায় রাখার একটি উপায় হল গাছের গোড়ার চারধারে ভেজা খড়, পাতা, ইত্যাদি জমা করে রাখা। এতে গোড়ার চারদিকে আগাছা এবং পরগাছার জন্মানো প্রতিরোধ করা যাবে। মাঝে মাঝে গাছ ছেঁটে দিয়ে আকার ঠিক রাখতে হবে। শীতকালে জবা গাছের সমস্ত বাড়তি ডাল-পালা, মরা ডাল, ইত্যাদি নির্মম ভাবে ছেঁটে ফেলতে হবে। পোকা মাকড়ের সংক্রমণ হলে পোকা নিধনকারী সাবান জল অথবা উদ্যানপালনসংক্রান্ত সাবান জল ব্যবহার করতে হবে।

জবা ফুলের নির্যাসের অনেক গুণ আছে যার জন্য দৈনন্দিন জীবনে এর অনেক ব্যবহার আছে। কিছু মানুষ হয়তো বা এর কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পেতে পারেন। যেমন:

  • যাদের নিম্ন রক্তচাপ আছে তারা জবা সেবন করলে স্বাস্থ্যের কিছু ক্ষতিকারক প্রভাব পেতে পারেন। মাথা ঘোরা, বমি বমি ভাবের সাথে বুক ধড়ফড় করতে পারে। এই রকম অভিজ্ঞতা হলে জবা নেওয়া বন্ধ করুন এবং বুক ধড়ফড়ানি থাকলে চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করুন।
  • জবা ফুলে প্রচুর পরিমাণে এলুমিনিয়াম থাকে। যাদের বৃক্কের (কিডনি) সমস্যা আছে তাদের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত এলুমিনিয়াম জমা হলে সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। গর্ভাবস্থায় ভ্রূণের বিকাশে এবং অনেক স্নায়ুর রোগে এলুমিনিয়ামের নেতিবাচক প্রভাব আছে।
  • কারুর আবার জবাতে এলার্জি হতে পারে। এলার্জি হলে জবার চা পান তৎক্ষণাৎ বন্ধ করতে হবে এবং চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করতে হবে যাতে এলার্জির বৃদ্ধি না হয়।
और पढ़ें ...

References

  1. María Herranz-López et al. Multi-Targeted Molecular Effects of Hibiscus sabdariffa Polyphenols: An Opportunity for a Global Approach to Obesity. Nutrients. 2017 Aug; 9(8): 907. PMID: 28825642
  2. McKay DL, Chen CY, Saltzman E, Blumberg JB. Hibiscus sabdariffa L. tea (tisane) lowers blood pressure in prehypertensive and mildly hypertensive adults. J Nutr. 2010 Feb;140(2):298-303. PMID: 20018807
  3. Frankova A et al. In Vitro Digestibility of Aluminum from Hibiscus sabdariffa Hot Watery Infusion and Its Concentration in Urine of Healthy Individuals.. Biol Trace Elem Res. 2016 Dec;174(2):267-273. Epub 2016 Apr 23. PMID: 27107884
  4. Shivananda Nayak B, Sivachandra Raju S, Orette FA, Chalapathi Rao AV. Effects of Hibiscus rosa sinensis L (Malvaceae) on wound healing activity: a preclinical study in a Sprague Dawley rat. Int J Low Extrem Wounds. 2007 Jun;6(2):76-81. PMID: 17558005
  5. Adhirajan N, Ravi Kumar T, Shanmugasundaram N, Babu M. In vivo and in vitro evaluation of hair growth potential of Hibiscus rosa-sinensis Linn. J Ethnopharmacol. 2003 Oct;88(2-3):235-9. PMID: 12963149