myUpchar प्लस+ के साथ पूरेे परिवार के हेल्थ खर्च पर भारी बचत

কিউই ফলকে সাধারণত কিউই বলে অভিহিত করা হয়, তা হচ্ছে একটি ডিম্বাকৃতির বেরি, যা কিউই উদ্ভিদ, অ্যাক্টিনিডিয়া ডেলিসিওসা থেকে পাওয়া যায়।

এটির স্বাদ কষা এবং মিষ্টি, যার জন্য মিষ্টি এবং সুস্বাদু পদের জন্য এটি একটি নিখুঁত উপাদান। কিউইর বীজ ফলের স্যালাডে একটি অতিরিক্ত তাজা স্বাদ নিয়ে আসে। 

খোসা, শাঁসালো অংশ এবং বীজ সমেত কিউরি ফলের সবটুকুই খাওয়া যায়। যদিও অনেকেই বাইরের খোসাটি খেতে পছন্দ করেন না, তবে দেখা গিয়েছে সবটুকু খেলে পুষ্টিগুণ বেশি মেলে।

গ্রীষ্মপ্রধান দেশে কিউই ভাল জন্মায়, এবং কম তাপমাত্রায় উৎপাদন ভাল হয় না, তবে শীতপ্রধান এলাকায় কিছু মাঝারি ধরনের কিউই জন্মায়।

এটিকে চাইনিজ গুজবেরিও বলা হয়, চিনেই এর আদিনিবাস এবং সেখানে বিশ্বের মধ্যে সর্বোচ্চ কিউই উৎপাদন হয়ে থাকে। ভারতের হিমাচল প্রদেশ, উত্তর প্রদেশ, জম্মু এবং কাশ্মীর, সিকিম, কর্নাটক এবং কেরলে কিউই চাষ হয়ে থাকে।

কিউইকে বলা যেতে পারে পুষ্টির কারখানা এবং চিনে শিশু এবং সদ্যোজাত শিশুর মাকে কিউইর টনিক পথ্য হিসাবে দেওয়া হয়। 

বুকের রোগ বা কার্ডিওভাসকিউলার অসুখ সামলাতে, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে কিউই ব্যবহার করা যেতে পারে এবং এটি রেটিনার অবনতি বা ম্যাকুলার ডিজেনারেশন রোধ করে। এই ফলের অ্যান্টিব্যাক্টিরিয়াল এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান স্বাস্থ্যের পক্ষে আশীর্বাদস্বরূপ।

কিউইর কিছু প্রাথমিক তথ্য:

  • বৈজ্ঞানিক নাম:  অ্যাক্টিনিডিয়া ডেলিসিওসা
  • পরিবার: অ্যাক্টিনিডিয়াসিয়াই, ছোটজাতের ফুলের গাছ ।
  • সাধারণ নাম: কিউই,  কিউই ফল। প্রথমে এটিকে ‘‘চাইনিজ গুজবেরি’’ বলা হত।
  • সাধারণ হিন্দি নাম: কিউই ফল
  • উদ্ভাবন স্থান এবং ভৌগৌলিক বণ্টন: আদিতে  চিনের উত্তর-মধ্য এবং পূর্ব অংশে এই ফলটির চাষ হতো। চিনের পর বাণিজ্যিকভাবে এই ফলটির চাষ শুরু হয় নিউজিল্যান্ডে। পরে দ্বতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ফলটি ব্রিটিশ এবং মার্কিন সেনাদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। বর্তমানে বিশ্বের বহু এলাকায় কিউইর চাষ হচ্ছে।
  • না জানা তথ্য:  কিউই ফলকে বলা হয় ‘‘নিউট্রিশনাল অল স্টার বা পুষ্টির জগতে মহাতারকা’’ কারণ রাটগার্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা জানিয়েছেন, সাধারণভাবে যে 21 টি ফল সবচেয়ে বেশি খাওয়া হয় তার মধ্যে এর পুষ্টিগুণ সর্বাধিক।
  1. কিউইর পুষ্টির তথ্য - Kiwi nutrition facts in Bengali
  2. স্বাস্থ্যের জন্য কিউইর উপকারিতা - Kiwi health benefits in Bengali
  3. কিউইর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া - Kiwi side effects in Bengali
  4. মনে রাখতে হবে - Takeaway in Bengali

কিউই শরীরের জনা উপকারী, একাধিক জরুরি আকরিক পদার্থে সমৃদ্ধ একটি ফল। এই ফল থেকে পাওয়া যায় তন্তু, ভিটামিন সি এবং K এবং পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, লোহা এবং ম্যাগনেশিয়ামের মতো খনিজ পদার্থ।

USDA নিউট্রিয়্যান্ট ডেটাবেস অনুযায়ী 100 গ্রা কিউই আপনাকে নিম্নলিখিত পুষ্টিগুলি সরবরাহ করতে পারে:

পুষ্টি প্রতি 100 g -এমূল্যমান
শক্তি 61 kcal
প্রোটিন 1.35 g
স্নেহ পদার্থ 0.68 g
কার্বোহাইড্রেট 14.86 g
তন্তু 2.7 g
শর্করা 8.78 g
খনিজ পদার্থ প্রতি 100 g -এমূল্যমান
ক্যালসিয়াম 41 mg
লোহা 0.24 mg
পটাশিয়াম 311 mg
ম্যাগনেসিয়াম 17 mg
ভিটামিন প্রতি 100 g -এমূল্যমান
ভিটামিন সি 93.2 mg
ভিটামিন কে 37.8 µg

কিউয়ো শুধুমাত্র কোনও উপকারী ফল নয়, এর মধ্যে একাধিক বায়োঅ্যাক্টিভ কম্পাউন্ড বা সক্রিয়জৈবের যৌগ আছে যা স্বাস্থ্যকে চাঙা রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। স্বাস্থ্য বিষয়ে কিউইর কিছু বিজ্ঞানসম্মত উপকারিতা  দেখে নেওয়া যাক।  

  • পরিপাক প্রক্রিয়ার জন্য: তন্তু সমৃদ্ধ হওয়ার কারণে বিপাকীয় প্রক্রিয়ায় কিউইর নির্দিষ্ট উপকারিতা আছে এবং রেচক (ল্যাক্সেশন) বৃদ্ধি করে কোষ্ঠ্যকাঠিন্য এবং পেটের সমস্যা (ইরিটেবল বাওয়েল সিনড্রোম) থেকে মুক্তি দেয়। প্রোটিন ভালভাবে পরিপাকেও সাহায্য করে।
  • হার্টের জন্য:  পটাশিয়াম সমৃদ্ধ হওয়ার জন্য কিউই রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে এবং কার্ডিওভাসকিউলার সমস্যার ঝুঁকি কমায়। সিস্টোলিক এবং ডায়াস্টোলিক রক্তচাপ কমানো ছাড়া কিউই রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় এবং হার্টের অক্সিডেটিভ ক্ষতি কমায়।
  • প্রতিরোধী ক্ষমতার জন্য: কিউই যেহেতু ভিটামিন সি  সমৃদ্ধ, সে কারণে আপনার প্রতিরোধী ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। এটি ব্যাক্টিরিয়া এবং ফাঙ্গাস বিরোধী হওয়ায় আপনার ঊর্ধ্ব শ্বাসনালীতে সংক্রমণ ঠেকায় এবং পোড়ার ঘায়ের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে। কিউই ক্যান্সারের ঝুঁকিও কমাতে পারে।
  • ত্বকের জন্য: অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট খাদ্য হওয়ার কারণে আপনার শরীরে বার্ধক্যজনিত বলিরেখা এবং ত্বকে কুঞ্চন কমায় এবং একই সঙ্গে সূর্যের রশ্মির ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রক্ষা করে।
  • চোখের জন্য: বার্ধক্যবিরোধী উপাদান শুধুমাত্র ত্বকের ওপরেই কাজ করে না, বয়সের কারণে ম্যাকিউলার ডিজেনারেশন বা রেটিনার ক্ষতি হলে তা রোধ করতে পারে কারণ এর মধ্যে লুটিন আছে।
  • ঘুমের জন্য:  কিউই খেলে ভাল ঘুম হয় এবং তার সময়সীমা উপযুক্ত হয় বলে ঘুমের সমস্যার মোকাবিলায় কার্যকরী ভূমিকা নিতে পারে।
  • রক্ত জমাট হওয়া কম করে কিউই ফল। কাজেই, আপনি যদি এমন কোনও ওষুধ গ্রহণ করেন যা রক্ত পাতলা করে বা আপনার ওপর অস্ত্রোপচারের সম্ভাবনা থেকে তাহলে কিউই থেকে বিরত থাকাই শ্রেয়।
  • কোনও কোনও ব্যক্তির কিউই ফলে অ্যালার্জি হয়। কিউই থেকে অ্যালার্জির ঘটনা খুব একটা বেশি জানা যায়নি, তবে কিছু ক্ষেত্রে অ্যালার্জি হলে বিভিন্ন উপসর্গ, যেমন মুখ ফুলে যাওয়া, গলার ভিতরে চুলকানি, শ্বাসকষ্ট, পেট ব্যাথা এবং বমি হতে পারে। কারোর কারোর ক্ষেত্রে কিউই ফলের সংস্পর্শে এলে ত্বকের অ্যালার্জি দেখা দেয়।
  • কিউই অক্সালেট র‌্যাপাইড ক্রিস্টালসের উৎস। কিউই অতিরিক্ত খাওয়া হলে ক্যালসিয়াম অক্সালেট কিডনিতে পাথরের উৎপত্তি হতে পারে।.
  • জানা তথ্য যে কিউই রক্তচাপ হ্রাস করে। যে সব ব্যক্তি নিম্ন রক্তচাপে ভোগেন বা যাঁরা উচ্চ রক্তচাপের রোগী বলে ওষুধ খান, তাঁদের খাদ্যতালিকায় কিউই যোগ করতে হলে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করা প্রয়োজন।

কিউই শুধু আপনার ডেজার্ট এবং স্যালাড দেখতে আকর্ষণীয় করে না, এটি পুষ্টিতে ভরপুর যা আপনার শরীরের প্রাত্যহিক প্রয়োজনের জন্য জরুরি। এতে প্রচুর পরিমাণে আছে অ্যামাইনো অ্যাসিড, ফ্ল্যাভোনাইড এবং অন্য ফেনোলিক যৌগ যা ক্যান্সার প্রতিরোধ করে, রক্তচাপ কমায়, হার্ট রক্ষা করে এবং বার্ধক্যজনিত অন্ধত্ব প্রতিরোধ করে। কিউই এমন একটি খাদ্যের উদাহরণ যা অপ্রমাণ করে যে সমস্ত স্বাস্থ্যকর খাদ্যই বিস্বাদ হয়। কিউই ফল খাওয়ার সঙ্গে বেশি পার্শ্বপ্রতিক্রয়ার সম্পর্ক নেই। তবে, কোনও কোনও ব্যক্তির ক্ষেত্রে কিউই ব্যবহারের পর অ্যালার্জির উপসর্গ দেখা দেয়।

और पढ़ें ...